Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ২৩ জানুয়ারি ২০২১, ০৯ মাঘ ১৪২৭, ০৯ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

সুশান্তকে খুনের কোনো প্রমাণ পায়নি সিবিআই

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০০ এএম

জনপ্রিয় বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ঘটনা বর্তমানে তদন্ত করছে ভারতের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআই। সর্বশেষ তথ্যমতে, সুশান্তকে হত্যা করা হয়েছে, তদন্তে এমন কোন প্রমাণ এখনও পাওয়া যায়নি। ফলে, তিনি আত্মহত্যাই করেছেন ধরে নিয়ে, তার কারণ উদঘাটনে এখন চেষ্টা চালানো হচ্ছে।
সিবিআই-এর ৩ জন অফিসার, যারা এই তদন্তের দায়িত্বে রয়েছেন, সংবাদমাধ্যম ‘ইন্ডিয়া টুডে’-কে দেয়া একটি সাক্ষাৎকারে জানান, সুশান্ত সিং রাজপুতের অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনায় এখনও পর্যন্ত খুনের কোনও ইঙ্গিত পায়নি সিবিআই। তবে তদন্ত এখনও চলছে! যদি সুশান্ত আত্মহত্যা করে থাকেন, তবে কেউ বা কারা কি তাকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দিয়েছে? এই মুহ‚র্তে সেই বিষয়টিই খতিয়ে দেখছে সিবিআই।

ইতিমধ্যেই সুশান্তের ফ্ল্যাটে ‘ক্রাইম সিন’-এর পুননির্মাণ করেছে সিবিআই! খতিয়ে দেখা হয়েছে মুম্বাই পুলিশের সংগ্রহ করা সমস্ত তথ্য-প্রমাণ। জেরা করা হয়েছে রিয়া চক্রবর্তী-সহ মামলার মূল অভিযুক্তদের। সিবিআই-এর ৩ সদস্যের এই দল সাক্ষাৎকারে জানান, এখনও পর্যন্ত যাবতীয় ফরেনসিক রিপোর্ট, মূল অভিযুক্তদের বয়ান, ‘ক্রাইম সিন’-এর পুনর্নিমাণ করেও এমন কোনও প্রমাণ মেলেনি যাতে এই ঘটনাকে ‘খুন’ বলা যায়। তবে, অফিসাররা এও জানান, এই মুহূর্তে সুশান্তের আত্মহত্যার বিষয়টী খতিয়ে দেখা হচ্ছে ঠিকই, কিন্তু সুশান্ত সিং রাজপুতের ‘খুন’-এর তদন্ত এখনও অফিশিয়ালি বন্ধ করা হয়নি। এইমসের ফরেনসিক দল সুশান্তের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পরীক্ষা করে দেখছেন। তারা রিপোর্ট জমা দেওয়ার পর বড় কোনও লিড মিলতে পারে বলে মনে করছে সিবিআই।

এদিকে, সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর তদন্তে নেমে রিয়ার মাদকযোগ সামনে আসে ইডির হাতে। এরপরই নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো এই মামলায় পৃথকভাবে তদন্ত শুরু করে। এই মামলার সূত্র ধরে বলিউডের বড়সড় ড্রাগচক্রের রহস্যভেদ করতে উঠেপড়ে গেলেছে এনসিবি। মঙ্গলবার চার মাদক পাচারকারীকে হেফাজতে নেয় এনসিবি। যার মধ্যে জায়েদ ভিলাট্রা এবং আবদুল বাসিত পারিহার নামের দুই মাদক পাচারকারীকে বান্দ্রা থেকে গ্রেফতার করেছে এনসিবি। সূত্র : টিওআই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সুশান্ত


আরও
আরও পড়ুন