Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

অসহায় বাবার পাশে সমাজসেবা অধিদফতর

দৈনিক ইনকিলাবে সংবাদ প্রকাশের পর

মাদারীপুর জেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

মাদারীপুরে চিকিৎসার অভাবে ৫দিন ধরে হাসপাতালের ফ্লোরে পড়ে থাকা বাবার পাশে দাঁড়িয়েছে জেলা সমাজসেবা অধিদফতর। মুমূর্ষ নুরু মাতুব্বরের দেখাশোনা করার জন্য অস্থায়ীভাবে একজন আয়াও নিয়োগ দেয়া হয়েছে। গতকাল সকাল থেকে শুরু হয় তার চিকিৎসা কার্যক্রম। মাদারীপুর সদর হাসপাতালের দায়িত্বে থাকা সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. রাসেদুল জানান, গত রোববার থেকে হাসপাতালের দোতলার ফ্লোরে মুমূর্ষ অবস্থায় পড়ে থাকেন এক সময়ের তাজ বিড়ি ফ্যাক্টরির মালিক ও কোটিপতি ব্যবসায়ী নুরু মাতুব্বর। ৫ দিন পেরিয়ে গেলেও নুরু মাতুব্বরের পরিবারের পক্ষ থেকে কেউ নেয়নি কোনো খোঁজ-খবর। খবর পেয়ে তার চিকিৎসার দায়িত্ব নেয় সমাজসেবা অধিদফতর। নুরু মাতুব্বরকে দেখাশোনা করার জন্য আছিয়া আক্তার নামে একজন আয়া অস্থায়ীভাবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। গত ৪দিনে স্যালাইন ছাড়া কিছু না খেতে পারলেও এখন আয়ার মাধ্যমে গতকাল ভোর থেকে ফল ও নরম খাবার খাচ্ছেন তিনি। সঠিক চিকিৎসা পেলে তিনি আবার স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারবে বলে আশা সংশ্লিষ্টদের।

জানা যায়, বেশ কয়েক বছর আগে বন্ধ হয়ে যায় চরমুগরিয়া এলাকার ‘তাজ বিড়ি ফ্যাক্টরি’। পরে ফ্যাক্টরির মালিক নুরু মাতুব্বর বাড়ি বিক্রি করে ছেলেকে লন্ডন পাঠান পড়াশুনা করাতে। লন্ডন থেকে ফিরে এসে ছেলে বিয়ে করে ঢাকায় ব্যবসা করছেন। পরে নুরু মাতুব্বরের বিঘার পর বিঘা জমি তিন মেয়ে ও এক ছেলেকে লিখে দেয়ার পাশাপাশি তাদের সভ্রান্ত পরিবারে বিয়েও দেন। অথচ, গত ১৫ বছর ধরে বাড়িছাড়া বৃদ্ধ ওই বাবা। মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে খাবার সংগ্রহ করলেও আজ চিকিৎসার অভাবে মৃত্যুশয্যায়।



 

Show all comments
  • Nannu chowhan ৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৭:২৪ এএম says : 0
    Very sad,father has given education property assets every things to establish the childrens. Is this the cruel unhuman brutality feed back given by the childrens?
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সমাজসেবা-অধিদফতর
আরও পড়ুন