Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

চিলমারীতে নিলাম ছাড়াই বিদ্যালয়ের ভবন ভাঙ্গলেন প্রধান শিক্ষক

কুড়িগ্রাম জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৪:২৩ পিএম

রকারী নিয়মনীতি তোয়াক্কা না করেই বিদ্যালয়ের ভবন ভঙ্গে নেয়ার অভিযাগ উঠেছে এক প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। অভিযাগ উঠেছে কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলার উত্তর মাচাবান্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়র একটি পাকা ভবন নিলাম ছাড়াই অজ্ঞাত ক্ষমতার জোরে ভাঙ্গার সাথে সাথে মালামাল আত্মসাতের চেষ্টা চালাচ্ছেন প্রধান শিক্ষক সহ দায়িত্বরতরা। ভাঙ্গনের দায় স্বীকার নিয়ে চলছে কাদা ছুড়াছুড়ি। সরকারী নিয়ম ছাড়াই ভবন ভাঙ্গার বিচার চাইলেন এলাকাবাসী।

জানা গেছে, উপজেলার উত্তর মাচাবান্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ওয়াস ব্লক তৈরির অজুহাতে একটি ৪রুম বিশিষ্ট পাকা ভবন নিলাম বা অনুমতি ছাড়াই ভাঙ্গার কাজ শুরু করেন প্রধান শিক্ষক। ইতিমধ্যে ভবনের কয়েকটি পিলারসহ অর্ধেক অংশ ভেঙ্গে ফেলায় এলাকায় হইচই শুরু হয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে শনিবার সকালে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ভবনের অর্ধক অংশ ইতিমধ্যে ভঙ্গে ফেলা হয়েছে বাকি অংশ ভাঙ্গার কাজ চলছে। কথা হলে মিস্ত্রিরা জানান, প্রধান শিক্ষক ও টিও (ইউইও) স্যারের নির্দেশে তারা ভাঙছেন। এলাকাবাসীরা জানান, নিলাম বা কোন অনুমতি ছাড়াই কিভাবে প্রধান শিক্ষক বা টিও (ইউইও) একটি সরকারী স্কুলের ভবন ভাঙ্গতে পারে? তারা এ সময় অভিযোগ করে বলেন , ভবনটির ভাঙ্গা ইটসহ বিভিন্ন মালামাল আত্মসাতের পাঁয়তারা করছেন। জড়িতদের আমরা সঠিক বিচার চাই। অভিযাগ অস্বীকার করে প্রধান শিক্ষক আইয়ুব আলী বলন, এটিও (এইউইও) জাহিদুল স্যারের নির্দেশে ভাঙ্গা হচ্ছে ভবনটি এবং তিনি অ্যাডহক কমিটির সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন। তবে ভবন ভাঙ্গার জন্য কোন লিখিত অনুমতি নেই স্বীকার করে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, স্কুলের বরাদ্দের স্লীপের টাকা থেকে মিস্ত্রী খচর বহন করতেও এটিও(এইউএও) স্যার বলেছেন। দায় এড়িয়ে সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ জাহিদুল ইসলাম বলেন, সব বিষয় প্রধান শিক্ষক জানেন। উপজেলা শিক্ষা অফিসার আবু সালেহ সরকার এর সাথে কথা বলার চেষ্টা করা হলে ফোন ধরলেও উক্ত বিদ্যালয়ের কথা শুনে ফোন কেটে দেন। এ ব্যাপারে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ শহীদুল ইসলাম এর কথা হলে তিনি জানান, নিলাম ছাড়া বিদ্যালয়ের কোন ভবন ভাঙ্গার নিয়ম নেই, কেউ যদি এরকম করে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে । উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ ডব্লিউ এম রায়হান শাহ্‌ বলেন বিষয়টি আমি শুনেছি এবং নিলাম ছাড়া ভাঙ্গতে নিষেধ করা হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রধান শিক্ষক


আরও
আরও পড়ুন