Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭, ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

পটুয়াখালীতে সাংবাদিক লাঞ্ছিতের ঘটনায় জিডি, ভাঙ্গা হলো সেই স্টল

পটুয়াখালী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৪:৩১ পিএম

পটুয়াখালীর ১৫০ বছরের ঐতিহ্যবাহি টাউনহলের বারান্দায় অবৈধভাবে স্টল নির্মানের ভিডিও ধারন করতে গিয়ে যুবদল নেতা ও ব্যবসায়ী কর্তৃক দুই সাংবাদিক লাঞ্ছিত হবার ঘটনায় সদর থানায় সাধারণ ডায়রি করা হয়েছে। শুক্রবার রাতে পটুয়াখালী প্রেসক্লাবে এক জরুরী সভার সিদ্বান্ত অনুযায়ী মাছরাঙ্গা টিভির প্রতিনিধি চিনময় কর্মকার বাদী হয়ে সাধারণ ডায়রিটি করেন। ঘটনার সাথে জড়িত যুুবদলের সহ-সভাপতি আকরাম শিকদার ও লিকন গাজীর নাম উল্লেখ করে আরো ৪/৫জনকে অজ্ঞাতনামা দেখানো হয়েছে সাধারন ডায়রিতে। এর আগে ওই জরুরী সভায় এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে দোষীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য পুলিশ প্রশাসনের কাছে দাবী জানানোর সিদ্বান্ত হয় বলে প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক মুফতি সালাহ উদ্দিন জানান। এদিকে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ আকতার মোর্শেদ জানান, রাতেই সাধারণ ডায়রিটি নথিভূক্ত করা হয়েছে এবং শনিবার সকালে আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এব্যপারে পরবর্তি কার্যক্রম চলছে বলেও তিনি জানান।
এদিকে শনিবার বেলা ১১টার দিকে জেলার ইতিহাস ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি রক্ষায় স্থানীয় শহীদ স্মৃতি পাঠাগারে শহরের সকল সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ ও জনপ্রতিনিধিরা মতবিনিময় সভায় মিলিত হন। সেখানে সাংবাদিক লাঞ্ছিতের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে টাউনহল রক্ষায় দূর্বার আন্দোলনে নামার অঙ্গিকার করা হয়। মতবিনিময় সভা শেষে উপস্থিত সকলে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
অপরদিকে শুক্রবার রাত থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত বিভিন্ন মিডিয়ায় সাংবাদিক লাঞ্ছিতের সংবাদ প্রকাশ পেলে এবং তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে বিষয়টি বিচার বিভাগসহ সকল প্রশাসনের দৃষ্টিগোচর হয়। যার প্রেক্ষিতে শনিবার বেলা ১২টার দিকে বিচার বিভাগ ও পুলিশ প্রশাসনের প্রতিনিধিবৃন্দ ঘটনাস্থলে এসে টাউনহলের বারান্দার নবনির্মীত দেয়াল ভাঙ্গার নির্দেশ দেন। পরে স্টলের জন্য তৈরিকৃত দেয়ালগুলো ভাঙ্গার কাজ শুরু করে শ্রমিকরা। উল্লেখ্য, টাউনহলের জায়গা দখল করে অবৈধভাবে স্টল নির্মানের প্রতিবাদে শুক্রবার সকালে স্থানীয় ধ্রুবতারা ইয়ুথ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন নামের একটি সংগঠন মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেন। ওই কর্মসূচী শেষে মাছরাঙ্গা টিভির প্রতিনিধি চিনময় কর্মকার ও বাংলাভিশনের প্রতিনিধি কেএম শাহাদৎ হোসেন টাউনহলের ভিডিও ধারণ করতে যায়। সেখানে সুবিধাভোগি ব্যবসায়ী ও যুবদলের সহসভাপতি আকরাম শিকদার ও ব্যবসায়ী লিকন গাজী ওই দুই সাংবাদিককে লাঞ্ছিত করে এবং তাদের ভিডিও ধারণ করতে বাধা দেয়। এক পর্যায়ে উল্টো স্থানীয় অন্য ব্যবসায়ীদের দিয়ে ওই দুই সাংবাদিকের ভিডিও ধারণ করে রাখে। এসময় তারা সাংবাদিকদের সম্পর্কে নানা কটুক্তি করে। এরআগে গত কয়েকদিন ধরে টাউনহল রক্ষার দাবীতে এবং স্টল নির্মানের প্রতিবাদে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনা ও প্রতিবাদের ঝড় তৈরি হয়। পরে গত বৃহস্পতিবার জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের পক্ষ থেকে একই দাবী জানিয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত আবেদন করা হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ