Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭, ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

সঙ্গীতজীবনে ইমরানের একযুগ

বিনোদন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০৩ এএম

সঙ্গীতাঙ্গনে এই সময়ে শ্রোতাপ্রিয় শিল্পীদের মধ্যে অন্যতম ইমরান। দেশ-বিদেশে রয়েছে তার গানের অগণিত ভক্ত। শ্রোতাপ্রিয় এই শিল্পী তার সঙ্গীতজীবনের একযুগ পার করছেন। এই একযুগে তাকে অনেক সাধনা করে শ্রোতাদের মন জয় করতে হয়েছে। ইমরানের গান মানেই এই প্রজন্মের শ্রোতাদের কাছে নতুন ও ভিন্ন ধরনের গান, এমন এক মনোভাব তৈরি হয়েছে। শুধু শ্রোতা নয়, ইমরানের সমসাময়িক এবং নতুন প্রজন্মের শিল্পীদের কাছেও ইমরান প্রিয়। সঙ্গীতাঙ্গনে যাত্রার শুরু থেকে আজ পর্যন্ত ইমরান চেষ্টা করে আসছেন শ্রোতা-দর্শকের চাহিদা অনুযায়ী ভালো গীতিকবিতা এবং শ্রুতিমধুর সুরকে গুরুত্ব দিয়ে গান করতে। তার অধ্যবসায়, সাধনা, শ্রম এবং চেষ্টা তাকে একযুগ পার করতে সহায়ক হয়ে উঠেছে। ২০০৮ সালের ৩১ আগস্ট ‘চ্যানেল আই সেরাকন্ঠ’ দিয়ে পেশাগতভাবে ইমরানের সঙ্গীতাঙ্গনে যাত্রা শুরু হয়। সেই থেকে আজকের ইমরান হয়ে উঠা। ২০১০ সালে লেজার ভিশন থেকে তার প্রথম একক অ্যালবাম ‘স্বপ্নলোকে’ প্রকাশিত হয়। ২০১২ সালে ‘তুমি দূরে দূরে আর থেকোনা’ গানটি দিয়ে প্রথম আলোড়ন সৃষ্টি করেন। এতে তার সহশিল্পী ছিলেন পূজা। গানটির মিউজিক ভিডিওতে ছিলেন অভিনেতা আফরান নিশো ও অভিনেত্রী উর্মিলা শ্রাবন্তী কর। মিউজিক ভিডিওটি নির্মাণ করেছিলেন শিমুল হাওলাদার। গানটি লিখেছিলেন অনুরূপ আইচ এবং সুর সঙ্গীত করেছিলেন ইমরান নিজেই। ২০১২ সালে ইমরানের দ্বিতীয় অ্যালবাম ‘তুমি’ প্রকাশিত হয়। এই অ্যালবামের প্রত্যেকটি গান শ্রোতাপ্রিয়তা পায়। পরবর্তীতে ‘বলতে বলতে চলতে চলতে’ গানটি নিয়ে আসে আরো আলোচনায়। অল্প সময়ে গানটি কোটি ভিউতে পরিণত হয়। গানটির বর্তমান ভিউ চার কোটিরও বেশি। সিনেমার গানেও ইমরান নিজেকে অপরিহার্য করে তুলেছেন। কণা’র সঙ্গে সিনেমায় তার গাওয়া গানগুলো সবসময়ই শ্রোতাপ্রিয়তা পেয়েছে। ইমরান প্রথম সিনেমায় গান করেন মোহাম্মদ হোসেন জেমী পরিচালিত ‘ভালোবাসার লাল গোলাপ’ সিনেমায়। সঙ্গীতজীবনে চলার পথে ইমরান তিন শতাধিক গানে কন্ঠ দিয়েছেন। এরমধ্যে একক গান, দ্বৈত গান, সিনেমার গান, নাটকের গান, কাভার সং রয়েছে। রয়েছে আরো সাতটি ইসলামি গজল। গত ঈদে ইমরান ও সিঁথি সরকারের গাওয়া ‘জানি পারবোনা’ গানটি ঈদের সবচেয়ে আলোচিত গানে পরিণত হয়। গানটি প্রকাশিত হয়েছে সিএমভি’র ইউটিউব চ্যানেলে। সঙ্গীতাঙ্গনে একযুগ প্রসঙ্গে ইমরান বলেন, ‘সঙ্গীতজীবনের চলার পথে আমি কখনো হাল ছাড়িনি, হতাশ হয়ে পড়িনি। ‘তুমি দূরে দূরে’ গানটি আগামীর পথে এগিয়ে যাবার প্রবল অনুপ্রেরণা ছিল। এই গানটিই আমাকে প্রথম সাফল্য এনে দেয়। আমি অবশ্যই আমার ভক্ত শ্রোতাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। তাদের কারণেই আমি আজকের ইমরান। বাবা মায়ের দোয়া’তো ছিলই। তাদের দোয়া ছাড়া এই কঠিন পথে আমার চলাটা সহজ হতোনা। ধন্যবাদ আমার সঙ্গীতাঙ্গনের কয়েকজন বড় ভাই বন্ধুর প্রতি। ধন্যবাদ গানে আমার সহশিল্পী’সহ আমার প্রত্যেক গানের গীতিকার, সুরকার, সঙ্গীত পরিচালক, প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের প্রতি।’ এদিকে গতকাল ছিল ইমরানের জন্মদিন। গানের একযুগ পূর্তি উপলক্ষে তার ইচ্ছা ছিল জন্মদিনটি একটু ভিন্নভাবে উদযাপন করার। করোনার কারণে তার এ ইচ্ছা পূরণ হয়নি। ইমরান বলেন, ‘আমি সবার কাছে দোয়া চাই। আমার মা’সহ পরিবারের সবাইকে নিয়ে যেন ভালো থাকতে পারি। ইমরান চ্যানেল আইয়ের ‘গানের রাজা’ অনুষ্ঠানের বিচারক হিসেবেও নতুন সঙ্গীতশিল্পী খুঁজে বের করায় ভূমিকা রেখেছেন। বর্তমানে ধ্রুব মিউজিক স্টেশন আয়োজিত ‘আমার গান’র বিচারক হিসেবেও কাজ করছেন তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইমরানের-একযুগ

৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ