Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

এক ইঞ্চি জমিও ছাড়া হবে না, ভারতকে বার্তা চীনের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:০২ পিএম

সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশন (এসসিও)-এর বৈঠকে যোগ দিতে রাশিয়া সফরে রয়েছেন ভারত ও চীনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী। শনিবার মস্কোয় চীনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেনারেল ওয়েই ফেংহের সঙ্গে রাজনাথ সিংয়ের বৈঠক হয়। বৈঠকে চীন পূর্ব লাদাখে সংঘাতের জন্য ‘সম্পূর্ণভাবে’ ভারতকে দায়ী করে বলেছে, তারা এক ইঞ্চি জমিও ছেড়ে দেবে না।

প্রথম থেকেই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় (এলএসি) উত্তজেনা বৃদ্ধির জন্য নয়াদিল্লিকে অভিযুক্ত করে আসছে বেইজিং। দুই দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রী পর্যায়ে বৈঠকের পরেও ভারত এবং চীনের মধ্যে সীমান্ত বিরোধ ঘিরে চলতি উত্তেজনা হ্রাসের কোনও সম্ভাবনা আপাতত দেখা যাচ্ছে না। শনিবার বৈঠকের পরে চীনের তরফে যে বিবৃতি দেওয়া হয়েছে তা দু’দেশের সম্পর্ক আরও তলানিতে টেনে নিয়ে যাওয়ার জন্য যথেষ্ট।

চীনের এই মন্তব্যের কড়া জবাব দিয়েছে ভারতও। বৈঠক শেষে নিজের অফিসিয়াল ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকে ট্যুইট করেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ। তিনি জানান, ২ ঘণ্টা ২০ মিনিট ধরে বৈঠক হয়েছে। বৈঠকের বিষয়বস্তু ছিল লাদাখের উত্তেজনা। দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের তরফে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘বিশাল সংখ্যক সেনা সমাবেশ, আগ্রাসী আচরণ এবং স্থিতাবস্থা বিঘ্নিত করার মতো কার্যকলাপের মাধ্যমে' শি জিনপিংয়ের দেশ দ্বিপাক্ষিক চুক্তি ভঙ্গ করছে।’ বিবৃতিতে তারা আরও বলেছে, ‘সার্বভৌমত্ব এবং ভৌগলিক অখণ্ডতা সুরক্ষিত রাখতে ভারত দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।’ পাশাপাশি এলএসিতে উত্তেজনা প্রশমিত করে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনার জন্য চীনের কাছেও বার্তা পাঠিয়েছে নয়াদিল্লি।

প্রসঙ্গত, গত ১৫ জুন রাতে পূর্ব লাদাখের গলওয়ান উপত্যকায় দুই দেশের সেনাদের মধ্যে সংঘাত বেধে যায়। রক্তক্ষয়ী সেই সংঘাতে ২০ ভারতীয় জওয়ান নিহত হন। লালফৌজকেও এই সংঘাতের মাশুল দিতে হয়েছে। গলওয়ানের এই সংঘাতের পর থেকেই দু-দেশের সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনা অব্যাহত রয়েছে। সূত্র: টিওআই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত-চীন


আরও
আরও পড়ুন