Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭, ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

মসজিদে বিস্ফোরণের কারণ বের করা হবে

সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০২ এএম

প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা বলেছেন, বিডিআর বিদ্রোহের পেছনে কারা ছিল? আমরা তো শুধু সরকার গঠন করেছি। এটা কোনোদিনই যুক্তিযুক্ত না, যে আমরা সরকার গঠন করেই এমন একটা ঘটনা ঘটাব, দেশে একটি অস্বাভাবিক পরিস্থিতির সৃষ্টি করব। কাজেই যারা তখন ক্ষমতায় আসতে পারেনি তারাই এটা করেছে- এতে কোনো সন্দেহ নেই। বিএনপি-জামায়াতের মিথ্যা বলার ভালো একটা আর্ট আছে। তিনি বলেন, গ্যাস লাইনের ওপর মসজিদ নির্মাণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছিল কি না তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এছাড়াও অন্য সব বিষয়ে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

গতকাল রোববার জাতীয় সংসদের অধিবেশনে শোক প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কথা বলেন। অধিবেশনে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সভাপতিত্ব করেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে অত্যন্ত সততার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছেন সাহারা খাতুন। তার সাহসী ভ‚মিকা দেখেছি বিডিআর বিদ্রোহের সময়। আমরা সরকার গঠনের মাত্র ৫২ দিনের মধ্যে বিডিআরের এ ঘটনা ঘটল। বিডিআরের ওই ঘটনায় যে সেনা অফিসাররা মারা যায় তাদের মধ্যে ৩৩ জন আওয়ামী লীগ পরিবারের। এমনকি বিডিআর ডিজি এ পার্লামেন্টের সংসদ সদস্য লুৎফর হাই সাচ্চুর আপন চাচাতো ভাই ছিলেন। দেখা গেছে, আমাদের আওয়ামী পরিবারের এমনকি আব্দুল মালেক উকিল সাহেবের নাতি অনেকেই সেখানে মৃত্যুবরণ করে। সেসময় ঘটনা ঘটার সাথে সাথে আমাদের চেষ্টা ছিল এটাকে থামানো। আমাদের যারা অফিসার আছে তাদের রক্ষা করা তাদের পরিবারগুলো রক্ষা করা। আমরা যখন সেখানে সেনাবাহিনী নিয়োগ করলাম সেনাবাহিনী নামার সাথে সাথে তাদের গুলিতে কয়েকজন সেনা সদস্য মারা গেল।

তিনি বলেন, বিডিআরের ঘটনাটি ছিল একটি অস্বাভাবিক ঘটনা। আগের দিন গেলাম একটি ভালো পরিবেশ, পরের দিন সেখানে এধরনের একটি ঘটনা ঘটল। এর পেছনে কারা আছে? আমরা তো শুধু সরকার গঠন করেছি। এটা কোনো দিনই যুক্তিযুক্ত না যে আমরা সরকার গঠন করেই এমন একটা ঘটনা ঘটাব, দেশে একটি অস্বাভাবিক পরিস্থিতির সৃষ্টি হোক। কাজেই যারা তখন ক্ষমতায় আসতে পারেনি তারাই তখন তাদের পেছনে ছিল এবং তাদের সঙ্গে ওই ১/১১ যারা সৃষ্টি করেছিল তাদের ধারণা ছিল নির্বাচনটা একটা আনপার্লামেন্ট হবে; কিন্তু যখন দেখল আওয়ামী লীগ মেজরিটি নিয়ে চলে আসল তখন সবকিছু নস্যাৎ করার অপচেষ্টা যাদের ভেতর ছিল তারাই এ ঘটনা ঘটিয়েছে তাতে কোনো সন্দেহ নেই। একদিন না একদিন এর সত্যতা বের হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, নারায়ণগঞ্জের মসজিদে বিস্ফোরণের যে ঘটনা ঘটেছে তা অত্যন্ত দুঃখজনক। ইতোমধ্যে সেখানে বিস্ফোরক তদন্ত দল গেছে, তদন্ত হচ্ছে। কেন এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে তার তদন্ত হবে। মৃতদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি। যারা আহত হয়েছেন, তাদের চিকিৎসার জন্য সব রকম ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

সংসদ নেতা বলেন, মসজিদটি- না কি গ্যাসের লাইনের ওপরে নির্মাণ করা হয়েছে। সাধারণত গ্যাস লাইনের ওপরে কোনো স্থাপনা নির্মাণের অনুমতি দেওয়া হয় না। গ্যাস লাইনের ওপর মসজিদ নির্মাণের অনুমতি দেওয়া হয়েছিল কি না তা খতিয়ে দেখা হবে। সামর্থবানরা অনেক সময় মসজিদে এসি দান করে থাকেন। এই এসির ধারণ ক্যাপাসিটি ছিল কি না তা দেখা হবে। এছাড়া মসজিদ নির্মাণে ভালোভাবে নকশা করা হয়েছিল কি না প্রত্যেক বিষয় খুঁজে বের করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, আজকাল সবার পয়সাও আছে। এয়ারকন্ডিশনও দিয়েছে। সেখানে বিদ্যুৎ সরবরাহটা, কতটা লোড নিতে পারবে সেই ক্যাপাসিটি ছিল কি না, সার্কিট ব্রেকার ছিল কি না সব বিষয় কিন্তু দেখতে হবে। অপরিকল্পিতভাবে কিছু করতে গেলে একটা দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি মন্ত্রিপরিষদ সচিবকে বলেছি। অন্য সবার কাছে আমার নির্দেশ গেছে। বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছি। এর কারণটা খুঁজে বের করা। এছাড়া সারাদেশের অন্যান্য মসজিদে যারা অপরিকল্পিতভাবে ইচ্ছামতো এয়ারকন্ডিশন লাগাচ্ছেন বা যেখানে-সেখানে একটি মসজিদ গড়ে তুলছেন, সেটা একটা স্থাপনা করার আদৌ জায়গা কি না যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন নেওয়া হয়েছে কি না, নকশা করা হয়েছে কি না, সেই বিষয়গুলো দেখা একান্ত প্রয়োজন। না হলে এ ধরনের ঘটনা-দুর্ঘটনা যেকোনও সময়ে ঘটতে পারে।

ভারতের সাবেক প্রেসিডেন্ট প্রণব মুখার্জীর মৃত্যুতে গভীর দুঃখ ও শোক প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু প্রণব মুখার্জী। সেই মুক্তিযুদ্ধের সময় এমনকি ৭৫এও তিনি আমাদের পাশে ছিলেন। তখন আপনজন হিসেবে পেয়েছিলাম প্রণব মুখার্জী ও তার পরিবারকে। ২০০৭ সালে যখন আমি বন্দি তখনও তিনি আন্তর্জাতিকভাবে আমাদের পক্ষে দাঁড়িয়ে কথা বলেছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্ব ব্যাংক যখন পদ্মা সেতু নিয়ে আমার ওপর দোষারোপ করল, তখনও তিনি সেই আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে প্রতিবাদ করেছেন। সবসময় তিনি বাংলাদেশের পাশে এবং মানুষের কল্যাণে চিন্তা করতেন। আমাদের এই উপমহাদেশে এমন জ্ঞানী রাজনীতিবিদ পাওয়া খুব মুশকিল। সাথে সাথে বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু প্রণব মুখার্জীকে হারিয়েছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি-জামায়াতের মিথ্যা বলার ভালো একটা আর্ট আছে। যেমন ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার পর খালেদা জিয়া থেকে শুরু করে তাদের দলের লোক বললো আমি নিজেই নাকি গ্রেনেড নিয়ে নিজেই গ্রেনেড মেরেছি এবং তা ব্যাপকভাবে প্রচার করে ফেলল। ঠিক বিডিআরের ঘটনা যখন ঘটল, তখন তারা ওইভাবেই অপপ্রচার শুরু করল। কিন্তু এটা কোনো দিনই কেউ এর যুক্তি খুঁজে পাবে না। সাহারা আপাকে দেখেছি সাহসে ভর করে সেখানে গেছে। বিডিআরদের অস্ত্র সমর্পণ করতে বলেছে, রাতের বেলায় অনেক সাহস করে সেখানে গিয়ে অস্ত্র সমর্পণ করতে বলেন এবং তারা করেন। সেদিন অনেক আর্মি পরিবারকে উদ্ধার করে নিয়ে এসেছে। উদ্ধার করে আনতে গিয়ে জীবনের ওপর হুমকি বয়ে এসেছে। আমি তখন যমুনায় থাকি তখন বলল নেত্রী কোনো মতো জীবনটা নিয়ে বেঁচে এসেছি। তার ওপরেও হামলা করতে গিয়েছিল ওরা। এই অবস্থায় দুঃসাহসী ভূমিকা রেখেছিলেন সাহারা আপা।

তিনি বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে সততার সাথে তিনি কাজ করেছিলেন, যার জন্য বিএনপির আমলে বাংলা ভাই সৃষ্টি, জঙ্গিবাদ সৃষ্টি এক সাথে ৫০০ জায়গায় বোমা হামলা, গ্রেনেড হামলা এরকম যেখানে অরাজকতা। তারপর আসল ১/১১ সে সময় আর একটা অস্বাভাবিক পরিস্থিতি। এই অবস্থার মধ্যে তিনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দায়িত্ব নিয়ে দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে নিয়ে আসেন। মানুষের জীবন যাত্রাটাকে স্বাভাবিক করা এবং মানুষের জীবনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার মতো কঠিন সময়ে দায়িত্ব পালন করে দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন সাহারা। তিনি নিবেদিত প্রাণ ছিলেন, তার কোনো চাওয়া-পাওয়া ছিল না। তিনি সব কিছু নেতা-কর্মীদের বিলিয়ে দিয়েছেন। সারাক্ষণ দেশের জন্যই কাজ করেছেন।

আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলম সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ইসরাফিল আলম এতো অল্প বয়সে চলে যাবে বুঝতেই পারিনি। তার করোনা হয়েছিল আবার তা ভালো হয়েছিল কিন্তু আসলে তার কিডনির সমস্যা ছিল। সে কিছু মানেনি। যখন সে একটু সুস্থ হয়ে বাড়ি গেল, তারপর চলে গেল এলাকায়, আবার অসুস্থ হলেন আর ফিরে এলো না। আওয়ামী লীগের অগণিত নেতাকর্মী হারিয়েছি করোনায়। কারণ তারা রিলিফ দিতে গিয়েছে, বন্যার সময় ত্রাণ দিতে গিয়েছে, মানুষের পাশে দাঁড়াতে গিয়ে জীবন দিতে হয়েছে। আমরা ভবিষ্যতের একজন ভালো পার্লামেন্টারিয়ান হারালাম।



 

Show all comments
  • Md Amin ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ২:২২ এএম says : 0
    মহান রাব্বুল আলামিনের কাছে দোয়া করি নিহতের জান্নাতুল ফেরদৌসের উচ্চ মাকাম দান করুন এবং আহতদের দ্রুত সুস্থতা দান করুন, আমিন।
    Total Reply(0) Reply
  • পারিশা আক্তার জুই ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ২:২২ এএম says : 0
    আমার খুব ভয় লাগছে। খারাপ লাগছে। সব চেয়ে বেশি রাগ হচ্ছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Souravbarua Sajal ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ২:২৩ এএম says : 0
    এটা দূর্ঘটনা নয় সেফ্র হত্যা। তিতাসের অবহেলা জনিত দূর্ঘটনা জন্য কঠোর শাস্তি হওয়া দরকার।এই দেশ এমন পরিস্থিতি মধ্যে আছে যেন কোথাও কারও কিছু দেখার নেই এক নিয়ন্ত্রনহীন রাজ্য।
    Total Reply(0) Reply
  • Chapol Kumar Das ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ২:২৩ এএম says : 0
    এ ধরণের দুর্ঘটনার ফলে মানুষের অসহায়ত্ব ও মৃত্যু তে আমরা ব্যথিত ও দুঃখিত । এখনও যারা হাসপাতালের বেডে শুয়ে কাতরাচ্ছে অসহ্য জ্বালা পোড়া নিয়ে, তাদের উন্নত চিকিৎসা রাষ্ট্র নিশ্চিত করুক এই দাবি রইলো ।
    Total Reply(0) Reply
  • Anowara Jahan Bakul ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ২:২৪ এএম says : 0
    মর্মান্তিক এই দূর্ঘটনায় গভীর বেদনা অনুভব করছি। মহান আল্লাহ সকলের সহায় হোন।
    Total Reply(0) Reply
  • Murad Hasan ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ২:২৫ এএম says : 0
    গ্যাস লিক করবে কেন, করলে তিতাস কি করে। এতে কি রাষ্ট্রীয় সম্পদের অপচয় হয়না। এরা টাকার নেশায় মাতাল হয়ে থাকে। ভালো মন্দ জ্ঞানশূন্য হয়ে শুধু টাকার পিছনে দৌড়ায়।
    Total Reply(0) Reply
  • Saiful Hossain ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ২:২৫ এএম says : 0
    ভবিসত্তে জেনো এরকম ঘটনা আর না ঘটে সেই খেয়াল রাখতে হবে আর এক এক মৃত্যু বেক্তিকে ১কোটি টাকা অসুস্থ বেক্তিকে২০লাখ টাকা করে খতিপুরন দেয়া হোক
    Total Reply(0) Reply
  • Pradip Kumar Roy ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ২:২৬ এএম says : 0
    এই অসহনীয় যন্ত্রণা কি আমরা অনুভব করতে পারছি? যারা দূর্ঘটনার স্বীকার হয়ে যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন? তাদের পরিবারের স্বজনদের আর্তচিৎকার আমরা শুনতে পাচ্ছি কি?
    Total Reply(0) Reply
  • Sahadat Rasel ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ২:২৬ এএম says : 0
    Khan যারা চিকিৎসাধীন আছে তাদের উন্নত চিকিৎসা দিন,তাদের মধ্যে যারা এখনো কথা বলতে পারছেন তাদের থেকে কিছু তথ্য নেয়ার চেষ্টা করুন।হয়তো কিছু সত্য বের হতে পারে।
    Total Reply(0) Reply
  • ম নাছিরউদ্দীন শাহ ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১:৩৭ পিএম says : 0
    মাননীয় প্রধান মন্ত্রী আপনাকে শত সহস্র শ্রদ্ধা ও সালাম গতকাল আপনার কাছে উদাত্ত আহবান ফরিয়াদ জানিয়ে ছিলাম। আল্লাহর বায়তুল্লা মসজিদে নামাজরত মুসল্লি ঈমাম মুয়াজ্জিন ও শিশু নিহত আহত পরিবারের জন্যে রাষ্ট্রিয় কুসাগার হতে আপনার সহানুভূতি সহযোগিতা সহমর্মিতা দয়া মানবতার হাত প্রসারিত করে পকৃত শহীদ হওয়া আগুনে দগ্ধ হওয়া পরিবারের জন‍্যে দান অনুদানের ফরিয়াদ। আমার ফরিয়াদ আর্তমানবতার কথা আপনার দরবারে পৌছায়নি। বাংলাদেশের কোটি কোটা মুসল্লি খুশী হতেন লক্ষ লক্ষ মসজিদের ঈমাম মুয়াজ্জিন আন্তরিকতার সাথে বঙ্গবন্ধুর কন‍্যার জন‍্যে অবশ্যই দোয়া করতেন। গতকাল জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশনে বিরোধী দলে পক্ষে জোরালোভাবে কিছুই দেখলাম না। এটি দাবীর পক্ষে বা যুক্তিগ্রাহ্য বিষয় ও না। এটি মানবতার বিষয় আন্তরিকতার বিষয়। আপনি মানবতার মা। আপনি শোকাহত চিকিৎসা জন‍্যে নির্দেশনা দিয়েছেন শোকরিয়া তদন্তের জন্যে নির্দেশ দিয়েছেন অসংখ্য অসংখ্য শোকরিয়া। নামাজরত অবস্থায় ভয়ংকর মৃত্যু এটি সামান্য বিষয় নয়। মহান আল্লাহ ভাল জানেন ভাল বুঝেন। আমাদের ক্ষুদ্র জ্ঞানে বুঝবার ক্ষমতা নাই। আল্লাহর দররারে প্রার্থনা করছি রাজধানীর বায়তুল সালাত জামে মসজিদের ঈমাম মুয়াজ্জিন শিশু বৃদ্ধার নামাজ রত মুসল্লিগন আগুনে মৃত্যুর ভাইগন আপনারা কোন সন্দেহ নাই। শহীদ এবং শহীদ। শহীদের মর্যাদা সম্মান মহান আল্লাহর দরবারে বিশালাকার। আল্লাহ্ তোমাকে সেজদা করতে গিয়ে শহীদ হওয়া মানুষ গুলো কে জান্নাতুল ফেরদৌসের সুমহান উচ্চ স্থান দান করুন। আমিন চম্মা আমিন। মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর সু স্বাস্থ্য দীর্ঘায়ু কামনা করছি। আমিন।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রধানমন্ত্রী

২১ অক্টোবর, ২০২০
১৬ অক্টোবর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ