Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৪ কার্তিক ১৪২৭, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

বিরামপুরে মধ্যযুগীয় কায়দার মাদ্রাসা ছাত্রকে নির্যাতনকারী সেই শিক্ষক আটক!

বিরামপুর (দিনাজপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৭:৪১ পিএম

আজ বুধবার, সকালে বিরামপুর উপজেলার দিওড় ইউনিয়ানের কাদিপুর গ্রামের তালিম উদ্দিন ইসলামিয়া হেফাজ খানা মাদ্রাসার প্রধান মোহাতামিম/পরিচালক লুৎফর রহমান তারেই মাদ্রাসার এক ছাত্র ১০ বছরের শিশু মারুফ হাসান হুজুরকে না জানিয়ে নিজ বাড়িতে বেড়াতে যায়। হুজুর কে না জানিয়ে কেন বাড়িতে যাওয়া হয়েছে এই অজুহাতে শিশু ছেলে মারুফ হাসান মাদ্রাসায় আসা মাত্র মাদ্রাসার পরিচালক শিশুটিকে একটি কক্ষে নিয়ে হাত-পায়ে লোহার শিকল পরিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দার শারিরিক নির্যাতন চালায়।
জানা যায়, শিশু মারুফ হাসান এর হাতে পায়ে শিকল পরিয়ে শিকলে তালা দিয়ে গত মঙ্গলবার, সারাদিন শিক্ষক লুৎফর রহমান শিশুটি কে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন চালায়। সারা দিন আনাহারে রাখে। রাত ভর মাদ্রাসা কক্ষে একাকি শিকল পারা অবস্থায় বন্ধ করে রাখে।শিকল পার অবস্থায় মাদ্রাসার কক্ষে থেকে কৌশলে পালিয়ে পাশ্ববত্তী গ্রাম তৈয়াবপুর চৌধুরি পাড়া নামক স্থানের একটি ধান ক্ষেতে র্কদমাক্ত অবস্থায় শিশুটি পড়ে থাকে। রাত্রী ৩ টার সময় ঐ গ্রামের সেলিম রেজা শিশুটির অবস্থান টের পেয়ে বিরামপুর থানা পুলিশ কে খবর দিলে বিরামপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনা স্থল থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করে । পরে ওসি নিজে শিকলের তালা কাটার মেকার নিয়ে এসে তালা কেটে শিশুটিকে গুরুতর অবস্থায় বিরামপুর হাসপাতালে ভর্তি করে। ওসি আরো জানান, শিশুটির পিতা নবাব গন্জ থানার মহারাজ পুর গ্রামের সামসুল ইসলামের পুত্র মাসুম মিয়া বাদি হয়ে শিশূ নির্যাতন আইনে বিরামপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রেক্ষিতে পুলিশ অভিযুক্ত শিক্ষক লুৎফর রহমান কে আটক করে জেল হাজতে প্রেরন করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন