Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

কেরানীগঞ্জে আগানগরে দুই মার্কেট মালিককে একলক্ষ টাকা জরিমানা

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৫:২৭ পিএম

ঢাকার কেরানীগঞ্জে আগানগর এলাকায় দুইটি মার্কেট মালিককে একলক্ষ টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। আজ বৃহস্পতিবার সকালে কেরানীগঞ্জ রাজস্ব সার্কেল সহকারী কমিশনার(ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কামরুল হাসান সোহেল ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে জমজম মার্কেট-১ এর মালিক মো. শহিদুল ইসলাম এবং জমজম মার্কেট-২ এর মালিক মো. রিপনকে ৫০ হাজার টাকা করে মোট একলক্ষ টাকা জরিমানা করেন। এসময় মার্কেট দুইটির বিদ্যুতের সমস্ত সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়।
এব্যাপারে কেরানীগঞ্জ রাজস্ব সার্কেল সহকারী কমিশনার(ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কামরুল হাসান সোহেল বলেন,বিদ্যুতের ট্রান্সমিটার ও বিদ্যুত সংযোগের খুটি থেকে দুরুত্ব বজায় না রেখে তারা মার্কেট নির্মান করেছেন। একটি মার্কেটের ভিতরেই বিদ্যুতের ট্রান্সমিটার ঢুকে পড়েছে এবং অন্য মার্কেটের দেয়াল ঘেষে বিপদজনকভাবে বিদ্যুতের সমস্ত তার চলে গেছে। এতে যেকোন সময় বৈদ্যুতিক দুর্ঘটনা হলে পুরো মার্কেট দুইটিতে বড়ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে অনেক জানমালের ক্ষতি হতে পারে। তাই ভোক্তা অধিকার আইনে ওই মার্কেট দুইটির মালিকদের প্রত্যেককে ৫০ হাজার করে মোট একলক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।



 

Show all comments
  • সোহরাওয়ার্দী ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৭:১১ পিএম says : 0
    রাজধানী ঢাকা-৫ আসনের আওয়ামীলীগের ক্ষমতার মুলকেন্দ্র ছিল মোল্লা পরিবার,তাদের অনুসারীরাই এতদিন স্ট্যান্ডগুলো দাপিয়ে বেড়াতো।তবে রাজনীতির নতুন বলয় তৈরি হওয়ায় প্রতাপশালী চাঁদাবাজদের কোথাও দেখা না গেলেও তাদের প্রেতাত্বা চাঁদাবাজী করছে পরিবহন সেক্টরে।মাতুয়াইল কোনাপাড়া,মুরগীর ফার্ম,বাদশা মিয়া রোড,মেডিক্যাল রোড,শনির আখড়া রোড সহ নানা স্থানে চলাচলরত ইজিবাইক/অটো থেকে ঘোলাপানিতে মাছ শিকার কায়দায় চাদাবাজি চলছে। চাঁদা না দিলে চালকদের মারধর করে ক্যাশ লুটে নিচ্ছে সন্ত্রাসী চাঁদাবাজরা।চাঁদাবাজ রাসেলের নেতৃত্বে মাতুয়াইলে ইজিবাইক চালক সমিতি নামে একটি শ্রমিক সংগঠন করা হয়েছে। স্থানীয় সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীরা এই শ্রমিক সংগঠনের হর্তাকর্তা। দৈনিক ৮০ টাকার পাশাপাশি রাসেল বাহিনী প্রতিটি ইজিবাইক থেকে ১০০ টাকা করে চাঁদা আদায় করছে। রহস্যজনক কারণে পুলিশ চাঁদাবাজ দের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন না করায় পরিবহন শ্রমিকরা ভয়ে চাঁদা দিতে বাধ্য হচ্ছে। পরিবহন শ্রমিকদের জিম্মি করে রাসেল বাহিনী দৈনিক কমপক্ষে ২০ থেকে ৩০ হাজার টাকা চাঁদা আদায় করছে।তাদের অপকর্মের প্রতিবাদ করলে মারধরের শিকার হতে হয়। রাসেল বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ভাবে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করার জন্য পুলিশ ও র‌্যাবের হস্তপক্ষেপ কামনা করছেন পরিবহন মালিক শ্রমিকরা।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জরিমানা

১৫ অক্টোবর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন