Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১২ কার্তিক ১৪২৭, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

সন্ত্রাসী-ঝাপটাবাজদের দৌরাত্ম্য চট্টগ্রামে নানা বেশে ছিনতাই

রফিকুল ইসলাম সেলিম | প্রকাশের সময় : ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০৬ এএম

চট্টগ্রাম নগরীর আগ্রাবাদে খুনসহ ছিনতাইয়ের ঘটনায় পাঁচ যুবককে গ্রেফতারের পর পুলিশ জানতে পারে তারা একটি সংঘবদ্ধ অপরাধী চক্রের সদস্য। পিকআপ ভ্যানে শ্রমিকের বেশে ঘুরে ঘুরে তারা ছিনতাই করে। এই চক্রের সদস্যদের মতো নগরীতে নানা বেশে হরেক রকম কৌশলে ছিনতাই, দস্যুতা ও ঝাপটাবাজি করছে অপরাধীরা। ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাই এমনকি লোকজনকে বাস থেকে নামিয়ে নিয়ে টাকা পয়সা কেড়ে নেয়ার ঘটনা অনেক পুরোনো। মোটরসাইকেল কিংবা অটোরিকশায় ঘুরে ছিনতাই ঝাপটাবাজিও হচ্ছে।

রাতের আধারে ফ্লাইওভারে রশি বেঁধে মোটরসাইকেল আরোহীদের ফাঁদে ফেলে ছিনতাই করা হচ্ছে। আবার ব্যস্ততম ফুটপাথে ছোরা কিংবা বেøডের ভয় দেখিয়ে ছিনতাইয়ের ঘটনাও নিত্যদিনের। আছে থুথু পার্টির উৎপাত। মহাসড়কে চলন্ত গাড়ির গøাসে আস্ত ডিম ছুড়ে মেরে গাড়ি থামিয়ে ডাকাতি-দস্যুতার ঘটনাও ঘটছে বিভিন্ন সময়ে।
নগরীতে ছিনতাই, দস্যুতার ঘটনা বাড়ছে। চলার পথে কিংবা বাসের জানালা দিয়েও চিলের মতো ছোঁ মেরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে মোবাইল ফোন। অনলাইন ব্যাংকিং ব্যবস্থার কারণে এখন আর আগের মতো নগদ টাকা বহন করতে হয় না। তাই মোটা অংকের টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা এখন তেমন ঘটে না। তবে ছোট খাট ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটলেও তা থানা পুলিশ জানে না। ভুক্তভোগীরা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে থানায় যান না। ফলে অনেক ঘটনা থানা পুলিশের অজানা থেকে যায়।

সর্বশেষ গত সোমবার রাতভর অভিযান চালিয়ে পাঁচ ছিনতাকারীকে পাকড়াও করে পুলিশ। ৪ সেপ্টেম্বর গভীর রাতে নগরীর আগ্রাবাদে খুন হন ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে বেড়াতে আসা প্রাইভেটকার চালক মো. আইয়ুব আলী। তিনি লালখান বাজারে বোনের বাসা থেকে বারিক বিল্ডিং মোড়ে যাওয়ার পথে আগ্রাবাদে ছিনতাইকারীর কবলে পড়েন। তাকে ছুরিকাঘাতে খুন করে তার টাকা ও ব্যাগ ছিনতাই করা হয়। সিসিটিভি ফুটেজ দেখে পুলিশ পিকআপ আরোহী ওই ছিনতাইকারীদের শনাক্ত করে।

নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (পশ্চিম) ফারুক উল হক বলেন, সিসিটিভি দেখে তাদের চিহ্নিত করা হয় এবং ছিনতাইয়ের কাজে ব্যবহৃত পিকআপটিও উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে একাধিক ছিনতাই, দস্যুতার মামলা আছে জানিয়ে তিনি বলেন, তারা পেশাদার অপরাধী। রাতে পিকআপ নিয়ে শ্রমিকের বেশে নগরীতে ঘুরে ঘুরে তারা ছিনতাই করার কথা স্বীকার করে। তাদের একজন মাত্র কয়েকদিন আগে কারাগার থেকে জামিনে এসেছে।

নগরীর ফ্লাইওভারে রশি বেঁধে অভিনব এক ভয়ঙ্কর কায়দায় ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভারের মাঝ বরাবর স্থানে রাস্তার একপাশে রশি বেঁধে অপেক্ষায় থাকে দুর্বৃত্তরা। দ্রæতগতির কোন মোটরসাইকেল আসতেই রশিতে টান মেরে চালককে আটকে ফেলে। এতে হুমড়ি খেয়ে চালক পড়ে গেলে তার কাছ থেকে টাকা পয়সা এবং মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয় তারা। দীর্ঘদিন ধরে এমন অপকর্ম চলছিলো। সম্প্রতি ছিনতাইয়ের শিকার হয়ে গুরুতর আহত কয়েকজনের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-পুলিশ অভিযান চালিয়ে এই ছিনতাইকারী চক্রের বেশ কয়েকজনকে পাকড়াও করে। ফ্লাইওভারের নীচে ওঁৎ পেতে থেকে পথচারীদের কাছ থেকে টাকা ছিনিয়ে নেয়ার সাথে জড়িত কয়েকজনকেও গ্রেফতার করা হয়। পুলিশ জানায় এই অপরাধী চক্রের সদস্যদের অনেকে মাদকাসক্ত।
নগরীতে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাইয়ের ঘটনাও ঘটছে। ব্যাংক থেকে টাকা তুলে সিটি বাসে ফেরার পথে বাস থেকে নামিয়ে টাকা কেড়ে নিয়ে ছেড়ে দেয়ার বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটে। গেল ২৬ জুন এমন একটি চক্রের ছয়জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় একটি এলজি, দুই রাউন্ড কার্তুজ ও ছিনতাই ডাকাতিতে ব্যবহৃত দুটি মোটরসাইকেল।

পুলিশ জানায়, ১৬ জুন ফারুক আহমদ নামে এক ব্যক্তি এক্সিম ব্যাংক সিডিএ অ্যাভিনিউ শাখা থেকে ৫ লাখ টাকা তুলে অটোরিকশায় ফেরার পথে ওয়াসার মোড়ে ছিনতাইকারীরা ডিবি পরিচয়ে তার গতি রোধ করে টাকা ছিনতাই করে। ওই চক্রের সদস্যরা তাকে ব্যাংকের সামনে থেকে টার্গেট করে। পুলিশ জানায় এমন বেশ কয়েকটি চক্র তৎপর রয়েছে নগরীতে।

ব্যস্ততম সড়কে রিকশা কিংবা অটোরিকশার গতি রোধ করে ছিনতাইয়ের ঘটনাও ঘটছে। রাস্তায় হঠাৎ রিকশা থামিয়ে আরোহীকে প্রথমে সালাম এবং পরে অস্ত্র দেখিয়ে নীরবে ছিনতাইয়ের রেকর্ডও আছে অনেক। ফুটপাতে পথচারীর পথ আগলে ছোরা অথবা ধারালো বেøড দেখিয়ে ছিনতাইয়ের ঘটনাও ঘটছে। জীবন বাঁচাতে বিনা বাক্য ব্যয়ে টাকা পয়সা তাদের হাতে তুলে দিয়ে বাড়ি ফিরছে ভুক্তভোগীরা। মহানগরীর কয়েকটি স্পটে প্রতিনিয়ত এমন ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটছে।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে চলন্ত প্রাইভেটকার ও মাইক্রোবাসের সামনের গøাসে হঠাৎ আস্ত ডিম ছুঁড়ে মারা হয়। রাতের আধারে পথ চলতে যেই গøাস পরিস্কারের জন্য পানি মারতেই পুরো গøাসে ডিমের আস্তর। বাধ্য হয়েই চালক গাড়ি থামিয়ে দেন। এই সুযোগে ডাকাতি করে দুর্বৃত্তরা। তালা-চাবিওয়ালা কিংবা ঠেলা চালকের বেশে নগরীতে ঘুরে বেড়ায় একদল অপরাধী। এরপর বন্ধ দোকান কিংবা বাসাবাড়ির তালা ভেঙে লুটপাট করে জিনিসপত্র। নিত্যনতুন কৌশলে চলছে ছিনতাই, দস্যুতা আর ডাকাতির ঘটনা। এতে নিরাপত্তাহীনতা বাড়ছে। কিছু কিছু ঘটনায় অপরাধীরা ধরা পড়লেও বেশিরভাগ ঘটনায় জড়িতরা থেকে যায় আড়ালে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সন্ত্রাসী


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ