Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭, ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

কসোভা-সার্বিয়া চুক্তির জন্য শান্তিতে নোবেলে দ্বিতীয় মনোনয়ন পেলেন ট্রাম্প

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ২:১০ পিএম

ডোনাল্ড ট্রাম্প মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই নানা কারণে আলোচিত-সমালোচিত হয়েছেন। নানা আলোচিত ঘটনা ও কথার কারণে বছরজুড়েই বিভিন্ন কারণে সংবাদের শিরোনাম হয়ে থাকেন তিনি। ৩ নভেম্বর প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হচ্ছে, সেজন্য দেশটিতে চলছে নির্বাচনী প্রচারণা। নির্বাচনী খবরের সঙ্গে এবার যোগ হয়েছে ট্রাম্পের শান্তিতে নোবেল পুরস্কার, যা কি না ইসরাইল-আমিরাত চুক্তির ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার জন্য দেয়া হবে বলে আলোচনা হচ্ছে।

২০২১ সালের নোবেল পুরস্কারের জন্য গত বুধবার ট্রাম্পকে মনোনয়ন দেন নরওয়ের সংসদ সদস্য ক্রিশ্চিয়ান টাইব্রিং-জিজেডে। আর এবার দ্বিতীয় মনোনয়ন হিসেবে কসোভো এবং সার্বিয়াকে চুক্তির আওতায় আনতে ভূমিকা রাখায় পুরস্কারটির জন্য তার নাম প্রস্তাব করেছেন সুইডেনের সংসদ সদস্য ম্যাগনাস জ্যাকবসন। যে কোনো দেশের জাতীয় সংসদ সদস্য, সাবেক নোবেলজয়ী, বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এবং বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার সদস্যরা যে কাউকে নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন দিতে পারেন। তবে ট্রাম্পের মনোনয়ন নিয়ে এখনও কোনো মন্তব্য করেনি নরওয়ের নোবেল কমিটি।

গত কয়েক দশকে এমন অনেকেই হুটহাট করে অনেক ব্যক্তিকে শান্তিতে নোবেলের জন্য মনোনয়ন দিয়েছেন। শেষ পর্যন্ত নির্দিষ্ট কয়েক জন যেতে পারেন সংক্ষিপ্ত তালিকায়। ট্রাম্পকে দ্বিতীয় মনোনয়ন দেয়ার ঘোষণা দিয়ে জ্যাকবসন শুক্রবার টুইটে বলেন, হোয়াইট হাউজের মাধ্যমে শান্তি এবং অর্থনৈতিক উন্নতির যৌথ চুক্তির জন্য আমি মার্কিন সরকার, সার্বিয়া এবং কসোভোকে শান্তিতে নোবেলের মনোনয়ন দিয়েছি। বাণিজ্য এবং যোগাযোগ শান্তির জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

উল্লেখ্য, কসোভোর আলবেনীয় বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে সার্ব বাহিনীর যুদ্ধ শেষ হয় ১৯৯৮-৯৯ সালে। ওই যুদ্ধে সার্বিয়ার বিরুদ্ধে সমরাভিযান চালায় ন্যাটো। এতে কসোভো থেকে পিছু হটতে বাধ্য হয় দেশটি। এর এক দশক পর ২০০৮ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে সার্বিয়া থেকে পৃথক হয় কসোভো।



 

Show all comments
  • মোহাম্মদ কাজী শাকিল আহম্মেদ ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৫:৫৫ পিএম says : 0
    আন্তর্জাতিক মহলের কাছে ট্রাম্প কিছু দিকে শান্তি আনতে পেরেছিলেন বলে মনে হতে পারে।কিন্তু মুসলিম বিশ্বে বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্যে অশান্তির মূল হোতা এই ট্রাম্প ও তার রাষ্ট্র।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ট্রাম্প


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ