Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২১, ১৩ মাঘ ১৪২৭, ১৩ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

হত্যাসহ ৪ মামলার আসামির চোখ উৎপাটন, প্রধান আসামি গ্রেপ্তার

পটুয়াখালী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৫:১২ পিএম

পটুয়াখালী জেলা সংবাদদাতা পটুয়াখালীর বাউফলে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মিন্টু মৃধা (৪০) নামে এক যুবকের খুঁচিয়ে ডান চোখ উপড়ে ফেলা হয়েছে। কুপিয়ে ডান পা হাঁটুর নিচ থেকে প্রায় বিচ্ছিন্ন করে ফেলেছে হামলাকারীরা। ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মুখের বাঁ দিকের চোয়াল দুই ভাগ হয়ে গেছে। এ ছাড়া শরীরের বিভিন্ন অংশে কোপের চিহ্ন রয়েছে মিন্টুর।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে,পূর্ব শত্রুতার জেরে প্রতিপক্ষ মিজান,সোহেল ও সাহিনের নেতৃত্বে একদল দুর্বৃত্ত এ ঘটনা ঘটায়।গতকাল শুক্রবার দুপুরে উপজেলার দ্বিপাশা সেতুর কাছে লিটন মোল্লার চায়ের দোকানের সামনে এ ঘটনা ঘটে।গুরতর আহত মিন্টুকে প্রথমে স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে বাউফল স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করে।পরবর্তীতে তার অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। আহত মিন্টু গোসিংগা গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে।
জানাগেছে,উপজেলার গোসিংগা গ্রামের মিন্টু মৃধার সাথে পাশের গ্রামের মিজানের সাথে ঘেরের মাছ লুট নিয়ে মামলা চলে আসছিল।ওই মামলায় সদ্য জামিনে মুক্তি পেয়ে মিন্টু মদনপুরা দ্বিপাশা সেতুর কাছে লিটনের চায়ের দোকানে চা খাওয়ার সময় খবর পেয়ে প্রতিপক্ষ মিজান,সোহেল এবং শাহিন লিটনের চায়ের দোকানে ঘিরে ফেলে অতর্কিত হামলা চালায়।
বাউফল থানার অফিসার ইন চার্জ(তদন্ত) আল মামুন জানান, এ ঘটনায় আজ আহত মিন্টুর স্ত্রী রাজিয়া বেগম বাদী হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখ সহ ৪/৫ অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিকে আসামী করে একটি হত্যা প্রচেষ্টার মামলা দায়ের করেছেন। এদিকে গতকাল রাত সাড়ে নয়টার দিকে ঘটনা ঘটিয়ে তাৎক্ষণিক ঢাকায় পালিয়ে যাওয়া মামলার প্রধান আসামি সোহেল কে ঢাকার লালকুঠি এলাকা থেকে বাউফল থানা পুলিশ গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি,মামলা নাম্বার ৯।
ওসি তদন্ত আল মামুন জানান আহত মিন্টুর বিরুদ্ধে ২০১৭ সালের একটি হত্যা মামলার প্রধান আসামি সহ
পৃথক মাদক মামলা সহ মোট চারটি মামলা রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রধান আসামি


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ