Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সপ্তাহের বেশি কোয়ারেন্টিনে আপত্তি বিসিবির

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

করোনাভাইরাসে থমকে যাওয়া বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ‘নবযাত্রা’ শুরু হচ্ছে এ মাসেই, শ্রীলঙ্কা সফর দিয়ে। সময়ও হাতে খুব বেশি নেই। তবে এরই মধ্যে সফর নিয়ে খানিকটা জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে কোয়ারেন্টিনের সম্ভাব্য সময়কে ঘিরে। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের খবর, শ্রীলঙ্কার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর তাদের ক্রিকেট বোর্ডকে বলেছে, সফরে গেলে বাংলাদেশ দলকে অন্তত দুই সপ্তাহ কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। এত সময় কোয়ারেন্টিনে থাকতে হলে সিরিজের জন্য প্রস্তুতির যথেষ্ট সময়ই পাবে না বাংলাদেশ দল। শ্রীলঙ্কা সফরে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের কোয়ারেন্টিনের সময় যতটা সম্ভব কম করা নিয়ে দেশটির স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সঙ্গে আলোচনা করছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট (এসএলসি)। বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরির আশা, ৭ দিনের বেশি কোয়ারেন্টিন করতে হবে না দলকে।

এসএলসির সঙ্গে বিসিবির প্রাথমিক আলোচনায় ছিল, বাংলাদেশ দলকে সেখানে গিয়ে কোয়ারেন্টিন করতে হবে। দেশে চার দফায় করোনাভাইরাস পরীক্ষা করিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশের গোটা স্কোয়াড। শ্রীলঙ্কায় গিয়েই পরীক্ষা হবে। সেটির ফল পাওয়া সাপেক্ষে সেখানে যাওয়ার তৃতীয় দিন থেকেই অনুশীলন শুরুর করার কথা ছিল ক্রিকেটারদের। তবে লঙ্কান স্বাস্থ্য অধিদপ্তর নতুন করে সতর্কতামূলক নানা পদক্ষেপ নিয়েছে। সেটির প্রেক্ষিতেই বেড়েছে কোয়ারেন্টিনের সম্ভাব্য সময়। তবে বিসিবির প্রধান নির্বাহী গতকাল সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বললেন, লঙ্কান বোর্ড কোনো ব্যবস্থা করে ফেলবে বলেই বিশ্বাস তাদের, ‘শ্রীলঙ্কার বোর্ডের সঙ্গে আমাদের নিয়মিত যোগাযোগ হচ্ছে। তারা তাদের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সঙ্গে যোগাযোগ করছে। স্পেসিফিক কোয়ারেন্টাইন রিকোয়েরমেন্ট যেগুলো, তারা চেষ্টা করছে বিষয়গুলো যত কমিয়ে আনা যায়। প্রত্যেকটি দেশেই পরিস্থিতি পরিবর্তন হচ্ছে বৈশ্বিক মহামারীর কারণে। শ্রীলঙ্কাতেও বিভিন্ন নিয়ম জারি হয়েছে। আমাদের দল যখন সফর করবে, বিষয়টিকে কতটা সহনীয় পর্যায়ে নিয়ে আসা যায়, তা নিয়ে শ্রীলঙ্কার বোর্ড তাদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করছে। সবশেষ যখন আমাদের যোগাযোগ হয়েছে, তারা বলেছে, সর্বোচ্চ ৭ দিন আমাদের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। তারপর আমাদের নির্ধারিত প্রোগ্রাম আমরা করতে পারব। সাতদিনের মধ্যেই যদি সীমাবদ্ধ রাখা যায়, তাহলে আমাদের যে পরিকল্পনা রয়েছে, সেভাবেই এগোতে পারব।’
কোয়ারেন্টিন নিয়ে একটি জটিলতা চলছে বাংলাদেশও। জাতীয় দলের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো, বোলিং কোচ ওটিস গিবসন, ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুককে যেন কোয়ারেন্টিন করতে না হয়, সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের কাছে সেই অনুমতি চেয়েছিল বিসিবি। নিজ দেশ থেকে করোনাভাইরাস পরীক্ষায় নেগেটিভ হয়ে এসেছেন তারা, নেগেটিভ হয়েছেন বাংলাদেশে এসে পরীক্ষা করিয়েও। কোয়ারেন্টিন না করার আনুষ্ঠানিক অনুমতি পেলেই তারা অনুশীলনে যোগ দিতে পারবেন। প্রধান নির্বাহী জানালেন, শিগগিরই অনুমতি পেয়ে যাবেন বলে আশা তাদের, ‘আমরা ইতিবাচক সাড়া পেয়েছি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট যারা আছেন, তাদের কাছ থেকে। তারা কিছু ডকুমেন্ট চেয়েছেন। তা আমরা দিয়েছি। আশা করছি আগামী দুই-এক দিনের মধ্যে আমরা তাদের অনুমতি পেয়ে যাব।’

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিসিবি

৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন