Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১ কার্তিক ১৪২৭, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

ইসরাইলের সাথে এবার সম্পর্ক গড়ছে বাহরাইন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

সংযুক্ত আরব আমিরাতের পর এবার ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনের ঘোষণা দিয়েছে আরেক আরব রাষ্ট্র বাহরাইন। শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্র, ইসরাইল ও বাহরাইনের এক যৌথ বিবৃতিতে এ ঘোষণা দেয়া হয়েছে। আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর হোয়াইট হাউসে এ বিষয়ে ইসরাইলের সাথে আনুষ্ঠানিক চুক্তি সাক্ষর করবে আমিরাত ও বাহরাইন।
এই সমঝোতার নেপথ্য কারিগর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প শুক্রবার টুইটারে একটি পোস্ট করে বলেছেন, ‘ আজ আর একটি ঐতিহাসিক ঘটনা ঘটেছে! আমাদের দুটি ভালো বন্ধু ইসারায়েল এবং কিংডম অব বাহরাইন একটি শান্তি চুক্তিতে সম্মত হয়েছে। গত ৩০ দিনের মধ্যে দ্বিতীয় আরব দেশ হিসাবে তারা ইসারায়েলের সাথে শান্তি স্থাপন করতে যাচ্ছে!’

এ বিষয়ে তিন দেশের পক্ষ থেকে দেয়া যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়েছে, শুক্রবার ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী ও বাহরাইনের রাজার সঙ্গে ট্রাম্পের আলোচনার পরই এ বিষয়ে একমত হয় সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলো। বিবৃতিতে এ ঘটনাকে মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠায় একটি ঐতিহাসিক ঘটনা হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়। এর আগে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো যেন ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করে সেজন্য সউদী আরবকে মধ্যস্থতার অনুরোধ জানিয়েছিলেন ট্রাম্প। একইসঙ্গে ইসরাইল-আমিরাতের মধ্যকার ফ্লাইট চলাচলের জন্য সউদী আকাশসীমা খুলে দেয়ার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন তিনি।

আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর হোয়াইট হাউসে আনুষ্ঠানিক চুক্তিতে উপনীত হচ্ছে ইসরাইল ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ট্রাম্প জানিয়েছেন, এখন বাহরাইনও একই অনুষ্ঠানে অংশ নেবে। এর মধ্য দিয়ে ইসরাইলের স্বাভাবিক সম্পর্ক তৈরির প্রতিশ্রুতি দেবে মধ্যপ্রাচ্যে সউদী বলয়ের দেশ হিসেবে পরিচিত সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন। এর আগে গত ৯ সেপ্টেম্বর আরব লীগের বৈঠকে দৃশ্যত ফিলিস্তিনকে প্রত্যাখ্যান করে সংস্থাটির সদস্য দেশগুলো। বৈঠকে ইসরাইল-আমিরাত চুক্তির বিরোধিতা করতে ফিলিস্তিনের প্রস্তাব নাকচ করে দেয়া হয়।

সউদী আরবের পক্ষ থেকে এখনও পর্যন্ত ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনের প্রকাশ্য কোনও ঘোষণা না এলেও গত কয়েক বছর ধরেই দেশ দুটির গোপন সম্পর্কের কথা আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলোতে প্রকাশিত হয়ে আসছে। ২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য আটলান্টিককে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ইসরাইল ইস্যুতে কথা বলেন এমবিএস নামে পরিচিত সউদী যুবরাজ ও দেশটির ডি ফ্যাক্টো নেতা মোহাম্মদ বিন সালমান। তিনি বলেন, বহু বিষয়ে ইসরাইলের সঙ্গে সউদী আরবের অভিন্ন স্বার্থ রয়েছে। ফিলিস্তিনি ভূখন্ডে জন্ম নেয়া ইসরাইল রাষ্ট্রের অস্তিত্বের অধিকারের পক্ষে নিজের অবস্থানের কথা জানান এমবিএস। তিনি বলেন, ফিলিস্তিনিদের পাশাপাশি ইসরাইলিদেরও তাদের নিজেদের ভূমিতে শান্তিপূর্ণভাবে বসবাসের ‘অধিকার’ রয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জামাতা ও সিনিয়র উপদেষ্টা জ্যারেড কুশনার বলেছেন, আমিরাতের মতো করে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে সউদীসহ অন্যান্য উপসাগরীয় দেশগুলোও ইসরাইলের সঙ্গে চুক্তিতে আবদ্ধ হবে। নিউজউইককে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কুশনার আমিরাতের প্রসঙ্গ টেনে বলেন, ‘বহু দেশ নিবিড়ভাবে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে। মানুষের প্রতিক্রিয়া কী হয়, তা দেখার চেষ্টা করছে তারা। এখানকার (আরব) তরুণ প্রজন্ম ব্যাপারটি নিয়ে খুব আলোড়িত। তবে বয়োজ্যেষ্ঠদের মধ্যে কিছু সদস্য এখনও নস্টালজিয়ায় ভুগছেন এবং কোনও ঝুঁকি নিতে চান না।’ আমিরাতের পর উপসাগরীয় বাকি দেশগুলোও ইসরাইলের সঙ্গে ‘অনিবার্যভাবে’ চুক্তি করবে উল্লেখ করে কুশনার বলেন, এখন বিষয় হলো সেটা কতদিনের মধ্যে হবে।
প্রসঙ্গত, মিশর, জর্ডান ও সংযুক্ত আরব অমিরাতের পর চতুর্থ মুসলিম প্রধান দেশ হিসেবে ইজরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করল বাহরাইন। বিশ্লেষকদের মতে, এই শান্তি প্রক্রিয়ায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ভ‚মিকা অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ, তবে এর নেপথ্যে অনেকটাই কাজ করছে বাহরাইনের ইরান ভীতি। মূলত শিয়া অধ্যুষিত ক্ষুদ্র দ্বীপরাষ্ট্র বাহরাইনের শাসনভার রয়েছে সুন্নি সম্প্রদায়ভুক্ত আল খলিফা রাজপরিবারের হাতে। ১৭৮৩ সাল থেকেই বাহরাইন শাসন করে আসছে এই পরিবার। রাজপরিবারের বিরুদ্ধে শিয়া সম্প্রদায়ের অভিযোগ, তাদের দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক হিসেবে গণ্য করা হয়। এর ফলে সে দেশে জন্ম নিয়ে শিয়া সন্ত্রাসবাদী সংগঠনও। ওই বিচ্ছিন্নতবাদীদের হাতিয়ার যোগাচ্ছে ইরান বলে বহুবার অভিযোগ করেছেন বাহরাইনের রাজা হামাদ বিন ঈসা আল খলিফা। তাই অনেকটাই ইরানের উপর প্রতিশোধ নিতেও ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক মজবুত করতে চলেছে বাহরাইন। সূত্র : ডন, আল জাজিরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসরাইল


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ