Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১ কার্তিক ১৪২৭, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

বাহরাইন-ইসরায়েল চুক্তি, স্বাগত জানালো ওমানও

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৪:০৯ পিএম

১১ সেপ্টেম্বর শুক্রবার ইসরায়েলের সঙ্গে স্বাভাবিক কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের যে সিদ্ধান্ত বাহরাইন নিয়েছে সে সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের আরেক দেশ ওমান। আজ রোববার দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশন তাদের টুইটার একাউন্টে এ খবর জানিয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় ইসরায়েলের সঙ্গে স্বাভাবিক সম্পর্কের ঘোষণায় মিশর, জর্দান ও আরব আমিরাতের পর ওমান আজ বাহরাইনকে স্বাগত জানায়। ওমানের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থার বরাত দিয়ে আরব নিউজ এ তথ্য নিশ্চিত করে।
উপসাগরীয় দেশগুলোর মধ্যে সম্প্রতি আরব আমিরাত ও বাহরাইন ইসরায়েলের সঙ্গে স্বাভাবিক সম্পর্ক স্থাপন করে। ইতিপূর্বে মধ্যপ্রাচ্যের কেবল মিশর ও জর্দানের সঙ্গে ইসরায়েলের সঙ্গে স্বাভাবিক সম্পর্ক ছিল।
ওমান সরকার এক বিবৃতিতে জানায়, ‘ওমান আশা করে যে কিছু আরব রাষ্ট্রের কৌশলগত সিদ্ধান্ত শান্তি প্রতিষ্ঠায় ব্যাপক ভূমিকা রাখবে। বিশেষত ইসরায়েল কর্তৃক ফিলিস্তিনের ভূখণ্ড দখল বন্ধে সহায়তা করবে এবং জেরুজালেমকে রাজধানী করে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনে ব্যাপক ভূমিকা পালন করবে।’
গত ১৩ আগস্ট ইসরায়েল-আমিরাত স্বাভাবিক সম্পর্কের ঘোষণার পর ইসরায়েলের গোয়েন্দা বিষয়ক এক মন্ত্রী বলেন যে ওমানও ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক করতে পারে। কিন্তু আমিরাত ও বাহরাইনের সিদ্ধান্তকে ওমান স্বাগত জানালেও ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ার বিষয়ে নিজেদের কোনো কিছু এখনও বলেনি।
২০১৮ সালে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনয়ামিন নেতানিয়াহু ওমান সফরকালে দেশটির প্রধান সুলতান কাবুসের সঙ্গে মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠা নিয়ে আলোচনা করেন।
এদিকে ইসরায়েল ও বাহরাইন স্বাভাবিক সম্পর্ক স্থাপন করার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাকে অতি গুরুত্বপূর্ণ বলে অভিহিত করেছেন সংযুক্ত আরব আমিরাতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হেন্দ আল-ওতাইবা। তিনি এক টুইটার বার্তায় দাবি করেন, এই সমঝোতার ফলে মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনা প্রশমন ও স্বস্তির পরিবেশ ফিরে আসবে।



 

Show all comments
  • Jack Ali ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৫:০৯ পিএম says : 0
    May Allah's curse on them..Ameen
    Total Reply(0) Reply
  • ম নাছিরউদ্দীন শাহ ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬:৩৯ পিএম says : 0
    আমিরাত বাহরাইন মিশর জর্দান এদের সাথে ইসরায়েলের কি যুদ্ধ চলছে? যুদ্ধ নেই। কুটনৈতিক সম্পর্ক ছিলনা ফিলিস্তিনের জমিতে অবৈধভাবে জবর দখল মুসলমানদের পবিত্র স্থান বায়তুল মোকাদ্দেস আল আকসা মসজিদ দখলের প্রতিবাদে বিশ্বের মুসলমানরা অদ‍্য শতাব্দী পযর্ন্ত ফিলিস্তিনের মুসলমানদের সাথে ছিল পক্ষে ছিল। এখন আমেরিকার স্বার্থে ইহুদি কাফের গভীর ষড়যন্ত্রে ফিলিস্তিনের পক্ষে নেই। ইসলামের প্রকাশ‍্যে শক্র ইহুদি কাফের কৃষ্ট্রান ঐক্যবদ্ধ হয়ে মুসলমানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে যাচ্ছে ফ্রি ষ্টাইলে। মুসলিম জাতি শয়তান প্রকাশ‍্য শক্র জেনেও নীতি নৈতিকতা বিসর্জন দিয়ে আমেরিকার স্বার্থে কাজ করতে বাধ্য হচ্ছেন। বিশালাকার অর্থ অস্ত্রের ঘাটি বানিয়ে মধ‍্যপ্রাচ‍্যের পবিত্র মাঠি ফিলিস্তিনের মুসলমানদের শহীদ রক্তে রক্তাক্ত ক্ষতবিক্ষত আরবের মাঠি। অসংখ্য অপমানিত নারী শিশু যুবক এই শহীদি পরিবার। শেষ পরিণতি পরিণাম কি আল্লাহ্ জানেন। আমেরিকা বিনা বাধায় ইরাক আফগানিস্তান লিবিয়া কে ধ্বংসযজ্ঞ বানিয়েছেন। বাকী দের ও বানাবেন ইরাকের প্রধান সাদ্দাম লিবিয়ার রাষ্ট প্রধান গাদ্দাফি মিথ্যা অজুহাত নিষ্টুর ফাসির মন্চে মর্মান্তিক মৃত্যু দিয়েছেন। ইসলাম মুসলমানরা চুখের পানিতে দেখেছিলেন আমেরিকার শক্তিশালী অবস্থানের কারণে। বিশ্বের শ্রেষ্ট শয়তান ষড়যন্ত্রকারী জেনেও আরবের শাসকগোষ্ঠী প্রতিবাদের ভাষা হারিয়ে ক্ষমতায় থাকার জন্যে অনইচ্ছা শর্তেও আমেরিকার ইচ্ছা আমেরিকার প্রস্তাবনা মানতে বাধ্য হচ্ছেন। সমগ্র মধ‍্যপ্রাচ‍্যের আরবের পবিত্র মাঠি এই ইহুদি কাফেরের গভীর ষড়যন্ত্রের কবলে। ফিলিস্তিনের মুসলমানদের পক্ষে কেও থাকবেনা ভবিষ্যতে । সৌদিয়া তলে তলে ইসরাইলের সাথে অনেক কিছুই করে যাচ্ছে। করতে বাধ্য হচ্ছেন। ইহুদি কাফেরের ষড়যন্ত্র বন্ধি হয়ে গেছেন। ওআইসির বৈঠকে ইসরাইলের বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব গ্রহীত হয়নি। দক্ষিণ এশিয়ার পাকিস্তানতো আগেই আমিরাতের ইসরাইলের প্রস্তাবের পক্ষে ছিল। আল্লাহ্ মুসলিম বিশ্বের মুসলমানদের কঠিন ঈমানী পরিক্ষায় হচ্ছে আপনি দয়া করুন হেফাজত করুন। সঠিক পথে চলার তৌফিক দিন। আমিন। দ
    Total Reply(1) Reply
    • বেলু খান ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০:১৫ পিএম says : 0
      ইরাক আফগানিস্থানে আমেরিকা মুজাহিদদের আক্রমনে দিসেহারা।এসব খবর সব সময় প্রকাশ পায় না।কিন্তু টুইটারে গেলে আপনি অনেক নিউজ দেখতে পাবেন যেখানে মধ্যপ্রাচ্যর যুদ্ধের সংবাদ প্রচার করা হয়।এই চ্যানেল গুলি ভালো টাকা কামায় যুদ্ধের সংবাদ প্রচার করে।

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ