Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

মাদরাসার লাইব্রেরিয়ান-ক্যাটালগার পদে যোগ্যদের নিয়োগ দিন

জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের সভাপতি-মহাসচিবের বিবৃতি

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০০ এএম

দাখিল ও আলিম মাদরাসায় সহকারী লাইব্রেরিয়ান/ক্যাটালগার এবং ফাজিল ও কামিল মাদরাসায় লাইব্রেরিয়ান পদ প্রবর্তন করা মাদরাসা শিক্ষার উন্নয়নের জন্য বহুদিনের দাবি। সরকারের পক্ষ থেকে জনবল কাঠামোতে এ দুটি পদ প্রবর্তন ও বরাদ্দ দেয়ায় আমরা কৃতজ্ঞ। গতকাল এক বিবৃতিতে এ সব কথা বলেছেন বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের সভাপতি আলহাজ এ এম এম বাহাউদ্দীন ও মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা শাব্বীর আহমদ মোমতাজী। তারা বলেন, মাদরাসা শিক্ষা নিয়ে সরকারের আন্তরিকতায় নতুন শিক্ষানীতির আলোকে কারিকুলাম ও সিলেবাসে ব্যাপক পরিবর্তন হয়েছে। ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে আরবি বিষয়সমূহে আরবি মাধ্যম বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

যুক্ত বিবৃতিতে ইসলামী চিন্তাবিদদ্বয় বলেন, কুরআন-হাদিস, ফিকহ-উসূল, বালাগাত-মানতেক-ফারায়েজ, উসূলে তাফসীর, উসূলে হাদিস, আরবি সাহিত্য বিভাগের রেফারেন্স গ্রন্থসমূহ আরবি-ফারসি ভাষায় রচিত। মাদরাসার ফাজিল অনার্স-মাস্টার্স, দাখিল-আলেম স্তরের পাঠ্য বিষয়সমূহ ও ধর্মীয় বিষয়ের উচ্চতর গবেষণামূলক গ্রন্থসমূহও আরবি ভাষায় রচিত। এসব বিষয়ের মূল ও রেফারেন্স কিতাবসমূহ ক্রয়, যথাযথ সংরক্ষণ ও সরবরাহের জন্য একজন লাইব্রেরিয়ানের আরবি ভাষা জানা জরুরি। তাই বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (মাদরাসা) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮ প্রণয়নকালে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও সংশ্লিষ্ট সকলে মাদরাসার সহকারী লাইব্রেরিয়ান/ক্যাটালগার পদে নিয়োগ প্রাপ্তির যোগ্যতা হিসেবে বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড/ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়/ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত মাদরাসা থেকে ফাযিল ও গ্রন্থাগার বিজ্ঞানে ডিপ্লোমা অথবা স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আরবি বিষয়ে স্নাতক (সম্মান) ডিগ্রি ও গ্রন্থাগার বিজ্ঞানে ডিপ্লোমা করা থাকতে হবে। যা অত্যন্ত যুক্তিযুক্ত ও বাস্তবসম্মত। শিক্ষামন্ত্রী, শিক্ষাসচিবসহ শিক্ষা পরিবারের সাথে সংশ্লিষ্ট সকল বিশেষজ্ঞরা পর্যালোচনা করেই বিষয়টি অনুমোদন করেছেন।

তারা আরো বলেন, সাধারণ শিক্ষায় শিক্ষিতরা কোরআন, হাদিস, ফিকহ্ ও আদিবসহ অন্যান্য ধর্মীয় গ্রন্থসমূহে অভিজ্ঞ নন। মাদরাসার সহকারী লাইব্রেরিয়ান/ক্যাটালগার পদে তাদের নিয়োগ দেয়া হলে মাদরাসা শিক্ষক ও শিক্ষার্থীগণ ব্যাপক সমস্যার সম্মুখীন হবেন। বর্তমানে সাধারণ শিক্ষায় শিক্ষিতদের মধ্যে একটি মহল অযৌক্তিক ও উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে বাস্তবসম্মত এ বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন যা এ দেশের মাদরাসা শিক্ষার সাথে সংশ্লিষ্ট পীর-মাশায়েখ, ওলামায়ে কেরাম কোন অবস্থাতেই মেনে নিতে পারেন না। প্রধানমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী, উপমন্ত্রী ও সচিবসহ শিক্ষা পরিবারের সকল স্তরের দায়িত্বশীলরা বিষয়টি বিশেষ বিবেচনায় রেখে অনুমোদিত শিক্ষাগত যোগ্যতা বহাল রাখবেন এটাই প্রত্যাশা। ##



 

Show all comments
  • মাহবুর ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:২৫ এএম says : 0
    মাদরাসা ইসলামী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে লাইব্রেরিযান পদে ফাজিল ও কামিল শিক্ষাগত যোগ্যতা যথার্থ । এ দেশের সকল প্রাইমারী স্কুলে মৌলবী শিক্ষক পদ চালু করা একান্ত প্রয়োজন ।কারণ শিশু কাল থেকে বাচ্চাদেরকে আধুনিক শিক্ষার পাশাপাশি ইসলামী শিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে । তাহলে দেশ ও জাতির জন্য মঙ্গলজনক হবে ।
    Total Reply(0) Reply
  • মাহবুর ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:২৫ এএম says : 0
    মাদরাসা ইসলামী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে লাইব্রেরিযান পদে ফাজিল ও কামিল শিক্ষাগত যোগ্যতা যথার্থ । এ দেশের সকল প্রাইমারী স্কুলে মৌলবী শিক্ষক পদ চালু করা একান্ত প্রয়োজন ।কারণ শিশু কাল থেকে বাচ্চাদেরকে আধুনিক শিক্ষার পাশাপাশি ইসলামী শিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে । তাহলে দেশ ও জাতির জন্য মঙ্গলজনক হবে ।
    Total Reply(0) Reply
  • মাহমুদুল হাসান ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৮:১৭ এএম says : 0
    বাংলাদেশের সকলপীর মাশায়েখ,আলেম ওলামাদের সাথে সরকারের সাথে দুরত্ব তৈরি করার জন্য কুচক্রিমহন লাইব্রেরিয়ান ও সহকারী লাইব্রেরিয়ান নিয়োগ নিয়ে আদালতে গিয়াছে অযৌক্তিক দাবী নয়ে।যারা চারটি কালিমা পড়তে জানেনা তারা কিভাবে কুরআন,হাদীস, আরবি, ফিকাহ, তাফসীর কিতাবের নাম জানবে এটা সকলের জানা উচিত। নিজ স্বার্থপর ব্যক্তিরাই এধরনের দাবী করে জাতীয় কথা চিন্তা না করে। সরকার এ ব্যাপারে বর্তমান ২০১৮ ঠিক রাখবেন বলে আমরা সকল আলেম সমাজ দাবী যানাচ্ছি।
    Total Reply(0) Reply
  • Md. Abu Taher ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১১:২৪ এএম says : 0
    সাধারন ছাত্ররা আরবি জানেনা এটা ঠিকনা। অনেক সাধারন লাইনের ছাত্ররর আরবী জানে। প্রধান মন্ত্রী কুরান pore. সে সাধারন লাইনের ছাত্রী ছিলেন। তাছড়া লাইব্রেরীর যে কোর্স তা মাদরাসার জন্য আলাদা নয়। তাই সবার জন্য হতে হবে। ধন্যবাদ
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ জায়নুল আবিদীন ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১১:৫৬ এএম says : 0
    খুবই যুক্তিসংগত এবং দেশের উলামায়ে কেরাম ও পীর মাশায়েখদের আবেদনের প্রতিফলন, আরবি পড়তে পাড়া আরবি জানা এর পার্থক্য যারা জানেননা তিনারা হয়ত জাহিল নতুবা মাদ্রাসা শিক্ষা বিরোধী ষড়যন্ত্রকারীদেরই অন্তর্ভুক্ত।
    Total Reply(0) Reply
  • আলমাস হোসেন ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৪:৪৪ পিএম says : 0
    লাইব্রেরিয়ান কোর্স সবার জন্য সমান। আর সাধারন শিক্ষার্থীরা আরবি জানে। সমমান করা হোক
    Total Reply(0) Reply
  • khairul islam ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৭:৫৭ পিএম says : 0
    00 মাদরাসা ইসলামী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে লাইব্রেরিযান পদে ফাজিল ও কামিল শিক্ষাগত যোগ্যতা যথার্থ,কারণ ইনডেক্স,কেটালগ কিংবা একসেসনিং রেজিস্টার তৈরি সাধারণ শিক্ষিতদের দ্বারা সম্ভ নয়
    Total Reply(0) Reply
  • Md Ashikul Mursalin ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৯:২৩ এএম says : 0
    যদি মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ছাড়া,সাধারণ শিক্ষার্থী মাদ্রাসায় নিয়োগের অনুমতি পায় তাহলে বিধর্মীরাও মাদ্রাসায় নিয়োগ পেতে পারে,যেটা ইসলামি শিক্ষার অপমান,আর তারা কখনোই ইসলামি বইয়ের সম্মান দিবেনা,,
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ শহিদুল ইসলাম। ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০:১২ এএম says : 0
    অবশ্যই আরবি বিষয়য়ে শিক্ষিত হতে হবে। দাবিটি যুক্তিযুক্ত এবংসময় উপযোগী। আমি এ দাবির প্রতি পূর্ণ সমর্থন ব্যক্ত করি।
    Total Reply(0) Reply
  • স্থগিত আদেশ প্রত্যাহার চাই
    Total Reply(0) Reply
  • নাজমুল হক ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:৪০ পিএম says : 0
    সাধারণ ছাত্ররা আরবি জানেন না। কথাটা ঠিক না।অনেকে মাদ্রাসা থেকে দাখিল পাস করে কলেজ ভর্তি হয়েছে । আবার আলিম পাস করে অনার্স,মাস্টার্স করছে তারা কি আরবি জানেন না । তাদের সাথে এই নীতিমালা বৈষম্য না।
    Total Reply(0) Reply
  • faruq ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:৩৬ পিএম says : 0
    অবশ্যই,প্রধানমন্ত্রী,শিক্ষামন্ত্রী,উপমন্ত্রী সহ শিক্ষাপরিবারের সকলের কাছে আমাদের দাবি,কোন প্রতিবন্ধকতায় কান না দিয়ে মাদ্রাসায় সহকারী গ্রন্হাগারীক পদে মাদ্রাসার স্টুডেন্টদের চলমান নিয়োগ অব্যহত রাখতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ জুনাইদ ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:১২ পিএম says : 0
    যোগ্যতা ভিত্তিক মাদরাসার শিক্ষার্থীদের নিয়োগ দেওয়া হক।
    Total Reply(0) Reply
  • faruq ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৯:৫৬ পিএম says : 0
    দ্রুত হাইকোর্টের দেওয়া স্হাগীত দেশ প্রত্যাহার করে মাদ্রাসায় ২০১৮ নীতিমালা অনুযায়ী সহকারী গ্রন্হাগারীক পদে চলমান নিয়োগের দাবী জানাচ্ছি।
    Total Reply(0) Reply
  • faruq ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৯:৫৬ পিএম says : 0
    দ্রুত হাইকোর্টের দেওয়া স্হাগীত দেশ প্রত্যাহার করে মাদ্রাসায় ২০১৮ নীতিমালা অনুযায়ী সহকারী গ্রন্হাগারীক পদে চলমান নিয়োগের দাবী জানাচ্ছি।
    Total Reply(0) Reply
  • faruq ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১১:১৭ এএম says : 0
    দাখিল মাদ্রাসায় সহকারী গ্রন্হাগারীক পদে নিয়োগ নিয়ে কোন প্রকার প্রতিবন্ধকতায় কান না দিয়ে, প্রধান মন্ত্রী,শিক্ষামন্ত্রী, উপ মন্ত্রী, মহামান্য হাই কোর্ট সহ সকল বিভাগের প্রধানদের দৃষ্ঠি আকর্ষন করছি এবং চলমান নিয়োগ বহাল থাকার দাবী জানাচ্ছি।
    Total Reply(0) Reply
  • মো আবদুল আলিম ৫ অক্টোবর, ২০২০, ৯:২৫ এএম says : 0
    এটা কোন শিক্ষক পদ নয়।এটা সবার জন্য সমান অধিকার।কারণ যারা madrashay লেখাপড়া করেন তারাই শুধু ধর্মকে শ্রদ্ধা করেন না।আমদের জেনারেল লাইনে এমনো লোক যারা ধর্মকে অনেক শ্রদ্ধা করে।আর madrashay অনেক post আছে যেমন বাংলা,গনিত,ইংরেজি। সেখানে কিন্তু অমুসলিমরা আবেদন করে না।তাহলে সমস্যা কোথায়?।এজন্য সবার জন্য উন্মুক্ত হলে আমাদের মুসলিম ভাইয়েরাই সুযোগ পাবে।তাই সবার জন্য সমান অধিকার থাকা উচিত।আমিও এর পক্ষে জোর দাবি জানাই।
    Total Reply(0) Reply
  • মো আবদুল আলিম ৫ অক্টোবর, ২০২০, ৯:২৫ এএম says : 0
    এটা কোন শিক্ষক পদ নয়।এটা সবার জন্য সমান অধিকার।কারণ যারা madrashay লেখাপড়া করেন তারাই শুধু ধর্মকে শ্রদ্ধা করেন না।আমদের জেনারেল লাইনে এমনো লোক যারা ধর্মকে অনেক শ্রদ্ধা করে।আর madrashay অনেক post আছে যেমন বাংলা,গনিত,ইংরেজি। সেখানে কিন্তু অমুসলিমরা আবেদন করে না।তাহলে সমস্যা কোথায়?।এজন্য সবার জন্য উন্মুক্ত হলে আমাদের মুসলিম ভাইয়েরাই সুযোগ পাবে।তাই সবার জন্য সমান অধিকার থাকা উচিত।আমিও এর পক্ষে জোর দাবি জানাই।
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ জাকারিয়া ইসলাম জাকির ৫ অক্টোবর, ২০২০, ১২:২৫ পিএম says : 0
    কবে থেকে নিয়োগ শুরু কটা যাবে জানতে পারলে খুশি হব
    Total Reply(0) Reply
  • শামসুল আরেফীন ১৩ অক্টোবর, ২০২০, ৮:৫৪ পিএম says : 0
    ২০১৮ জনবল কাঠামো ঠিক থাকবে ইনশাআল্লা।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জমিয়াতুল মোদার্রেছীন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ