Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

শর্ত মেনে শ্রীলঙ্কা ‘যাবে না’ বাংলাদেশ

ঘরোয়া ক্রিকেট ফেরাতে মনোযোগ বিসিবির

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০০ এএম

সময় ঘনিয়ে এসছে। প্রস্তুতিও চলছে পুরোদমে। এরই মধ্যে কোয়ারেন্টিন নিয়ে শ্রীলঙ্কার শর্ত কঠিন করে তুলেছে বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের শ্রীলঙ্কা সফর। গতকালতো নেতিবাচক খবরই দিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। সেদেশের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কড়া নিয়মের শর্ত মেনে ‘সফর সম্ভব নয়’ বলে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এসে জরুরী সভা করেন বিসিবি প্রধান। পরে সংবাদ মাধ্যমকে জানান, লঙ্কানদের ‘অস্বাভাবিক’ শর্ত মেনে নেওয়া তাদের পক্ষে কোনভাবেই সম্ভব নয়। নিজেদের এই অবস্থান শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে বলেও জানান নাজমুল। কঠিন শর্তে সেদেশে বাংলাদেশ খেলতে যাচ্ছে না, এমনটা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়ে লঙ্কানদের শর্তগুলোর কড়া সমালোচনা করেছেন তিনি, ‘আমরা একটা তথ্যই দিতে চাই, ওরা যে শর্ত দিয়েছে এটা ইতিহাসে বিরল। প্রথম বার্তা এটাই দিতে চাই (শ্রীলঙ্কা বোর্ডকে)। এটা দিয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ সম্ভব না।’
শ্রীলঙ্কা শুরুতে ৬৫ জনের দল নিয়ে যাওয়ার আলাপে ইতিবাচক সাড়া দিলেও পরে সদস্য সংখ্যা সর্বোচ্চ ৩০ জন বেধে দেয়। ওখানে গিয়ে অনুশীলনের জন্যও কোন সাপোর্ট স্টাফ দেওয়া হবে না বলে জানিয়ে দেয় তারা। বোর্ড প্রধান জানান এই অবস্থায় ৩০ জনের মধ্যে ১১ জন ক্রিকেটার জায়গা করাই তো মুশকিল, ‘৩০ জনের মধ্যে নেট বোলার, থ্রোয়ার, ডাক্তার টিম, নিরাপত্তা টিম নিয়ে যেতে হবে। এরপর ১১ জন খেলোয়াড় নিতে পারব কিনা সেটাই তো বুঝতে পারছি না। সেজন্য এতো বলতে চাচ্ছি না। ওরা যেটা দিয়েছে সেটা দিয়ে ক্রিকেট খেলা সম্ভব না। আমরা যাচ্ছি না। অপেক্ষার আর কিছু নেই। আমরা আমাদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিয়েছি। এর মধ্যে ওরা জানালে জানাল। আমরা আমাদের পরবর্তী প্রোগ্রাম শুরু করে দিয়েছি। ওরা যত তাড়াতাড়ি উত্তর দেয় তত ভালো। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়ে নিলে তো নিয়েই নিলাম।’
বিসিবি সভাপতি জানান, এই সফরের রূপরেখা নিয়ে লঙ্কানদের সঙ্গে তাদের চিন্তার কোন মিলই হচ্ছে না, ‘আমাদের চিন্তার সঙ্গে কোনো মিল নেই। দ্বিতীয়ত, সাধারণ যা হয়, ওই দেশ থেকে বল থ্রো করার জন্য থ্রোয়ার তো দেবে। নেট বোলার দেবে। এটাও দিচ্ছে না। আমাদের এখান থেকেও নিতে দেবে না। ওরা কি বলতে চাচ্ছে বুঝতে পারছি না। আমরা আইসিসির টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলতে যাচ্ছি। আমার মনে হয় বিরাট চিন্তার পার্থক্য।’ শ্রীলঙ্কা এসব শর্ত শিথিল করলে তবেই সফরের ব্যাপারে চিন্তা করবে বাংলাদেশ। না হলে গত ১৬ মার্চ ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচের পর দেশে সব ধরনের ক্রিকেট বন্ধ করে দেওয়া ঘরোয়া ক্রিকেট চালুর দিকে এগুবে বোর্ড, ‘সব দিক বিবেচনা করে আমরা বুঝলাম এখন ওখানে যাওয়া কোনো ভাবে সম্ভব না। আমরা আজই জানিয়ে দেব, আমাদের চিন্তা ভাবনা ও বাস্তবতার সঙ্গে কোনো মিল নেই এবং যেটা দিয়েছে এটা দিয়ে কোনো অবস্থাতেই আমরা মনে করি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলা সম্ভব না। তারপর দেখি ওরা কি বলে। আমারা নিজেদের ঘরোয়া ক্রিকেট শুরু করে দিব এখনই। খুব শিগগিরই। এখন কোচিং স্টাফরা আছে, ওরা থেকে যাবে। ছেলেরা এতদিন খেলার বাইরে, ওদের খেলার মধ্যে নিয়ে আসব। করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে ক্রিকেটার ও সবার নিরাপত্তাও আমাদের দেখতে হবে। তবে খেলা মাঠে গড়াবে অবশ্যই।’
বাংলাদেশের কড়া হুঁশিয়ারিতে নড়ে চড়ে বসেছে শ্রীলঙ্কান সরকারও। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের (এসএলসি) শর্তাবলীর প্রেক্ষিতে বিসিবির কড়া জবাবের ব্যাপারটি নজরে পড়েছে শ্রীলঙ্কার যুব ও ক্রীড়ামন্ত্রী নামাল রাজাপাকসের। লঙ্কান বোর্ডকে তিনি বলেছেন, দেশের কোভিড টাস্কফোর্সের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করতে। আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ সিরিজটি আপাতত পড়ে গেছে অনিশ্চয়তায়। সংবাদমাধ্যমে এই খবর দেখে গতকাল বিকেলেই টুইটারে নামাল রাজাপাকসে জানান, বাংলাদেশের সফরের ব্যাপারটি তিনি পুনর্বিবেচনা করতে বলেছেন, ‘আমরা সবাই জানি যে কোভিড-১৯ মহামারী এখনও বিশ্বজুড়ে প্রবলভাবে বিরাজমান, এই অবস্থায় প্রতিরোধম‚লক ব্যবস্থাই সর্বোচ্চ প্রাধান্য পাচ্ছে। তবে এই অঞ্চলের ক্রিকেটের স্বার্থে আমি এসএলসিকে বলেছি কোভিড টাস্ক ফোর্সের সঙ্গে আলোচনা করে বিসিবির ব্যাপারটি পুনর্বিবেচনা করতে।’
বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ হিসেবে তিন টেস্টের সিরিজ খেলতে চলতি মাসের শেষ দিকে শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশের। জাতীয় দলের সঙ্গে এইচপি দলকেও সফরে নিয়ে যাওয়ার আলাপ অনেকখানি এগিয়ে গিয়েছিল। শ্রীলঙ্কায় গিয়ে এইচপি দলের সঙ্গে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে টেস্টের জন্য তৈরি হওয়ার পরিকল্পনা ছিল বিসিবির। তবে কোয়ারেন্টিনে থাকা ও সফরের সদস্য সংখ্যা সীমিত রাখা নিয়ে লঙ্কান বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা হুট করে থমকে যায়।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিসিবি

৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন