Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫, ১০ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

আমন আবাদ নিয়ে দুশ্চিন্তায় মঠবাড়িয়ার কৃষক

২শ’ হেক্টর জমির বীজতলা পানির নিচে

প্রকাশের সময় : ১০ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) উপজেলা সংবাদদাতা

অমাবশ্যার জোয়ারের পানি এবং অবিরাম বর্ষণের কারণে পানিবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে মঠবাড়িয়া উপজেলার ২শ’ হেক্টর জমির বীজতলা বিনষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে। আমনের বীজ সংকটের আশঙ্কায় উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়েছে কৃষকদের মধ্যে। উপজেলা কৃষি অধিদপ্তরের তথ্য মতে এবছর ২০ হাজার ৩১০ হেক্টর জমিতে আমনের বীজতলা করা হয়েছে। নিম্নচাপের প্রভাবে মাসব্যাপী অতিবর্ষণের কারণে পানিবদ্ধতার সৃষ্টি হওয়ায় ২শ’ হেক্টর বীজতলা সম্পূর্ণ পানির নিচে তলিয়ে গেছে। তবে কৃষকদের মতে প্রায় ৩শ’ হেক্টর বীজতলা পানিতে তলিয়ে গেছে। পানি দীর্ঘস্থায়ী হলে বীজতলা নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত ইউনিয়নসমূহ হলো, মিরুখালী, দাউদখালী ও ধানী সাফা ইউনিয়ন। বীজতলা নষ্ট হয়ে গেলে আমনের বীজের চরম সংকট দেখা দেবে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। উপজেলার নাগ্রাভাঙ্গা গ্রামের আঃ হামিদ মোল্লা জানান, সে ১ কাঠি ধানের বীজ করেছিল তার অর্ধেক সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে গেছে। এখন আমন আবাদ করতে তাকে বীজ ক্রয় করতে হবে। বড় শৌলা গ্রামের মো. শাহ আলম আকন জানান, পানির কারণে অত্র এলাকার কৃষকরা বীজতলা করতেই পারে নাই। চড়া দামে বীজ ক্রয় করে কৃষকদের আমন আবাদ করতে হবে। এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মুহাম্মদ মনিরুজ্জামানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, আমনের উচ্চ ফলন শীল-২৫ জাতের বীজ ১৫ দিন পানির নিচে থাকলেও পচবে না। মঠবাড়িয়ায় এই জাতের বীজ দিয়ে আবাদ হবে শতকরা ৭৫ ভাগ জমি। তাই আমন বীজে কোন সংকট হবে না বলে কৃষি কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান জানান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ