Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭, ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

চুক্তিবিরোধী বিক্ষোভ ইসরাইলে

আরবদের বিপর্যয় ডেকে আনবে ইসরাইলের সঙ্গে আঁতাত : ফিলিস্তিন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:১৮ এএম

সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইনের সঙ্গে ইসরাইলের চুক্তির ব্যাপারে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে আন্তর্জাতিক মহলে। খোদ ইসরাইলেও এ ব্যাপারে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে। বহু ইসরাইলি যেমন সন্তোষ প্রকাশ করেছেন, অসন্তোষ প্রকাশ করে বিক্ষোভও হয়েছে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সেরোটের ইয়েহুদা এলাকায় বিক্ষোভকারীরা দাবি করেছেন, ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর উচিত ছিল গাজার সমস্যা মিটিয়ে ফেলা। সেখানকার একজন বাসিন্দা বেন লউলু বলেন, যেসব দেশ নিয়ে আমাদের কোনো সমস্যা নেই, নেতানিয়াহু গেছেন তাদের সঙ্গে সম্পর্ক ঠিক করতে। তারা চুক্তি করলেন। কিন্তু গাজার ব্যাপারে কী করলেন? সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইনের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার চুক্তি হলেও গতকাল বুধবার গাজা উপত্যকায় বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। এসব পদক্ষেপ নিয়েও খোদ ইসরাইলে প্রশ্ন উঠছে। অপরদিকে, ইসরাইলের সঙ্গে আঁতাত আরবদের বিপর্যয় ডেকে আনবে বলে আশঙ্কা করেছে ফিলিস্তিনি সংসদ। আর আরব জাতির জন্য আসন্ন বিপর্যয়ের দায় দখলদার ইসরাইলের সঙ্গে আঁতাতকারী দেশগুলোকে বহন করতে হবে। ফিলিস্তিনের জাতীয় সংসদ এক বিবৃতিতে এ মন্তব্য করেছে। ইসরাইলের সঙ্গে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইনের প‚র্ণাঙ্গ সম্পর্ক স্থাপনের চুক্তি সইয়ের পর এক প্রতিক্রিয়ায় ফিলিস্তিনি সংসদ আরও বলেছে, ইসরাইলের সঙ্গে আঁতাতের ফলে মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি, নিরাপত্তা, স্থিতিশীলতা ও উন্নয়ন এর কোনোটিই নিশ্চিত হবে না বরং আরব জাতির জন্য বিপর্যয় নেমে আসতে পারে। বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, আমিরাত ও বাহরাইন আঁতাতের চুক্তি করে মুসলিম ও খ্রিস্টানদের পবিত্র শহর বায়তুল মুকাদ্দাসকে দখলদার ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে মেনে নিয়েছে এবং ডিল অব দ্য সেঞ্চুরি নামের ষড়যন্ত্র অনুমোদন করেছে। ফিলিস্তিনি সংসদ বলেছে, আরব দেশগুলো এবং ফিলিস্তিন ইস্যুর জন্য আসল বিপদ ও হুমকি হচ্ছে দখলদার ইসরাইল। দখলদারেরা ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ও স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠাসহ সব ন্যায্য অধিকার চিরতরে হরণ করার জন্য সব সময় অপচেষ্টা চালাচ্ছে। আল-জাজিরা।

 



 

Show all comments
  • Najmul Hasan ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬:৪১ এএম says : 0
    এতে কোন সন্দেহ নাই যে... সউদী, ওমান,সহ যেসব দেশ তুরষ্ক, কাতার,পাকিস্তানের বিপক্ষে সে সব আরবের নাগরিকরা ইজ্রায়েলের গোলামী করা ছাড়া কোন পথ থাকবে না
    Total Reply(0) Reply
  • Najmul Hasan ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬:৪২ এএম says : 0
    ২/১টা মোনাফেক তো থাকবে,অতীতে ছিল ভবিষ্যতে ও থাকবে।এখন মুসলিম রাষ্ট্র প্রধান ও অনুসারীরা অন্য মুসলীম দের বড় শত্রু-আর এটা শুধুমাত্র ক্ষমতার লোভ,মুসলীম কিন্তু ইসলামী গনতন্ত্রে বিশ্বাসী নয়।
    Total Reply(0) Reply
  • Md. Shawkat Ali ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬:৪৪ এএম says : 0
    কি আর বলবো, ঘরের শত্রু বিবিসন, এমন এক দিন ছিল পৃথিবীর অরধেকেরও বেশি রাজ্য শাসন করে ছিল মুসলমানরা। তাই মুসলমানদের কুটলামির কারণে, মুসলমানরা - মুসলমানদের হাতে বারে বারে মাইর খাচ্ছে ।
    Total Reply(0) Reply
  • Ripon Mulla ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬:৪৪ এএম says : 0
    ইসলামের বিজয় একদিন হবেই
    Total Reply(0) Reply
  • M E Hossen ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬:৪৫ এএম says : 0
    ওমান বাহারাইন ও সৌদি আরব সরকারগুলো চরম মোনাফেক,ওদেরকে সকল মুসলমানদের বয়কট করা উচিৎ
    Total Reply(0) Reply
  • Abdul Hai Laskar ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬:৪৫ এএম says : 0
    পবিত্র কোরআনের বাণী হল- "তোমরা ইহুদী এবং খ্রিষ্টানদের সঙ্গে বন্ধুত্ব স্থাপন করো না। ওরা ততক্ষণ তোমাদের বন্ধু হবে যতক্ষণ তোমরা ওদের পদাঙ্ক অনুসরণ করে চলবে।" কোরআন শরীফের বানী আসার পরেও যে মুসলমান কোরআন শরীফের এই বাণীকে বাস্তব জীবনে প্রতিফলন না করে । তারা ক্ষতিগ্রস্থের মধ্যে থাকবে এবং তাদের মুসলমানিত্ব নিয়ে প্রশ্ন চিহ্ন থেকে যায় । প্রকৃতপক্ষে এরা কি মুসলমান না মুনাফিক?
    Total Reply(0) Reply
  • Somon Chowdhury ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬:৪৬ এএম says : 0
    100% সত্য মুসলমানরা আজ বিশ্বাসঘাতক আর বিশ্বাসঘাতকদের জন্য সারা বিশ্বের মুসলমানরা আজ নির্যাতিত আল্লাহ রাব্বুল আলামিন সকল মুসলমানদের কে একত্রিত হয়ে অন্যায় এবং অত্যাচারের প্রতিবাদ করার শক্তি এবং তৌফিক দান করুক
    Total Reply(0) Reply
  • Amir Uddin ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬:৪৭ এএম says : 0
    আমিরাতের এমন ঘটনা ফিলিস্তিনের জন্য ভয়ঙ্কর এবং দুঃখ জনক
    Total Reply(0) Reply
  • Mozammel Haque Sarker ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ২:৩৩ পিএম says : 0
    May Allah guidance the UAE Leader or destroy him
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসরাইল


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ