Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

চট্টগ্রাম বন্দরে ইলেকট্রনিকস পণ্য ঘোষণায় এল গুঁড়োদুধ

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৯:৪৮ এএম

প্রায় ২৮ লাখ টাকা শুল্কফাঁকি দিয়ে দুবাই থেকে ইলেকট্রনিকস পণ্য ঘোষণায় আনা গুঁড়োদুধ বন্দর থেকে বেরিয়ে যাওয়ার আগেই ধরা পড়ল কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দার হাতে। বৃহস্পতিবার রাতে সাড়ে ৮ মেট্রিক টন দুধবোঝাই দুইটি কাভার্ডভ্যান আটক করেছে চট্টগ্রাম কাস্টম হাউস কর্তৃপক্ষ।

কাস্টমসের অডিট ইনভেস্টিগেশন এন্ড রিসার্চ (এআইআর) শাখার সহকারী কমিশনার রেজাউল করিম জানান, ঢাকার নিউমার্কেট থানার ১২৪/এ, ড. কুদরত-ই-খুদা সড়কের (এলিফ্যান্ট রোড) ঠিকানার আমদানিকারক প্রাইম ট্রেডিং সংযুক্ত দুবাই থেকে ইলেকট্রনিক পণ্য ঘোষণা দিয়ে ২ মেট্রিক টন গুঁড়োদুধ আমদানি করে। নিয়ম অনুযায়ী পণ্যগুলো কনটেইনার থেকে নামিয়ে বন্দরের ১২ নম্বর শেডে রাখা হয়। ওই পণ্য খালাসের কাজে দায়িত্বে নিয়োজিত ছিল চট্টগ্রামের ১১০২ ডিটি রোডের রাজ বাণিজ্য বিতানের কুলগাঁও ট্রেডার্স লিমিটেড। ওই সিএন্ডএফ গত ১০ সেপ্টেম্বর পণ্য খালাসের উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসে বিল অব এন্ট্রি (সি-১২৪৯০০৮) দাখিল করেন। ইলেকট্রনিক পণ্য খালাসের জন্য সিএন্ডএফ এজেন্ট আড়াই লাখ টাকা শুল্ক পরিশোধ করে এবং ২টি কাভার্ডভ্যানে পণ্য বোঝাই করে খালাসে প্রস্তুতি নেয়। খালাসের আগ মূহুর্তে কাস্টম হাউসের অডিট ইনভেস্টিগেশন এন্ড রিসার্চ (এআইআর) টিম গাড়িগুলো আটক করে।

অভিযোগ আছে, কাস্টমস কর্মকর্তা পণ্য পরীক্ষা করতে গেলে পণ্য খালাসে নিয়োজিত আমদানিকারকের সিএন্ডএফ প্রতিনিধি শেডে সংরক্ষিত অপর একটি ইলেকট্রনিক পণ্য পরীক্ষা করান। আটককৃত কাভার্ডভ্যানের পণ্য খুলে সেখানে ইলেক্ট্রনিক পণ্যের বিপরীতে প্রায় সাড়ে ৮ মেট্রিকটন গুঁড়োদুধ পাওয়া যায়। ওই পরিমাণ গুঁড়োদুধ জাতীয় পণ্যের আনুমানিক শুল্ক আসে ২৮ লাখ টাকা। যা আমদানিকারক ও সিএন্ডএফ এজেন্ট ফাঁকি দেয়।

সহকারী কমিশনার রেজাউল আরো জানান, গুঁড়োদুধের ক্ষেত্রে আমদানি নীতি অনুযায়ী মোড়কের গায়ে ‘মায়ের দুধের বিকল্প নেই’ উল্লেখ থাকতে হয় এবং বিএসটিআই’র মাধ্যমে খাবার উপযোগী কিনা তা পরীক্ষা করাতে হবে। এক্ষেত্রে দুটি শর্তই পূরণ করা হয়নি।
শুল্ক ফাঁকির বিষয়ে মামলা দায়ের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। কাস্টমস আইন অনুযায়ী জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চট্টগ্রাম বন্দর

১৫ এপ্রিল, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ