Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ৮ কার্তিক ১৪২৭, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

মন্দা কাটাতে লাগতে পারে পাঁচ বছর

মহামারি নিয়ে আশঙ্কা বিশ্বব্যাঙ্কের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

করোনা ভাইরাসের ধাক্কায় তীব্র আর্থিক মন্দা গোটা বিশ্ব জুড়েই। ইতিমধ্যেই চলতি অর্থবর্ষে ভারতের ক্ষেত্রে ৯ শতাংশ পর্যন্ত জিডিপি সঙ্কোচনের পূর্বাভাস দিয়েছে এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাঙ্ক বা এডিবি। এবার ক্ষেত্রে আরও আশঙ্কার কথা শোনাতে দেখা গেল বিশ্বব্যাঙ্ককে। মন্দা কাটাতে লাগবে ৫ বছরের বেশি সময় এদিকে করোনার ধাক্কায় চলতি অর্থবষের প্রথম ত্রৈমাসিকে প্রায় ২৪ শতাংশ জিডিপি সঙ্কোচনের মুখে পড়েছে ভারত। ভারতের পাশাপাশি তীব্র আর্থিক মন্দার নাগপাশে ইংল্যান্ড, আমেরিকার মতো একাধিক উন্নত দেশও। এমতাবস্থায় বিশ্বব্যাঙ্কের প্রধান অর্থনীতিবিদ সাফ জানাচ্ছেন, করোনা কেটে গেলেও বৈশ্বিক অর্থনীতি এই তীব্র মন্দা কাটতে পাঁচ বছরেরও বেশি সময় লাগতে পারে। লকডাউনকেই কাঠগড়ায় তুলছেন বিশ্বব্যাঙ্কের প্রধান অর্থনীতিবিদ এদিকে করোনা ঠেকাতে এখনও একাধিক দেশেই চলছে স্থানীয় ভিত্তিতে লকডাউন। জারি রয়েছে করোনা বিধিনিষেধও। জীবনযাত্রা আগের থেকে স্বাভাবিক হলেও এখনও বন্ধ স্কুল, কলেজ, ধর্মী প্রতিষ্ঠান, কল কারখানা। আর তার জেরেই প্রায় প্রতিটি দেশেই থমকেছে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি। এই প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে বিশ্বব্যাঙ্কের প্রধান অর্থনীতিবিদ কারম্যান রেইনহার্ট আরও বেশ কিছু আশঙ্কার কথা শোনান। কি বললেন কারম্যান রেইনহার্ট? বৃহষ্পতিবার এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, খুব সম্ভবত লকডাউন গুলি সম্প‚র্ণভাবে প্রত্যাহার করা হলেই ধীরে ধীরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে শুরু করবে। কিন্তু মন্দা কেটে বিশ্ব অর্থনীতিতে পুরোপুরি আগের অবস্থা ফিরে আসতে পাঁচ বছরের বেশি সময় লেগে যেতে পারে। আর এর জেরেই ধনী-দরিদ্র বৈষম্যের পরিমাণও অচিরেই আরও প্রকট হবে বলে তার মত। দারিদ্রসীমার নীচে ৫ কোটি মানুষ এদিকে গত ২০ বছরের পরিসংখ্যান অনুসারে করোনা মহামারীর জেরেই চলতি বছরেই বিশ্বজুড়ে অনেকটাই বেড়ে গেছে দারিদ্র্যতার পরিমাণ। রেইনহার্ট বলেন, অন্যান্য দেশের তুলনায় মহামারী-জনিত মন্দা বেশ কয়েকটি দেশে দীর্ঘস্থায়ী হবে। যার জেরে বাড়বে সামাজিক বৈষম্য। সর্বাধিক ক্ষতি হবে হবে দরিদ্র ও উন্নয়নশীল দেশগুলি। এদিকে করোনা সঙ্কটের জেরে বিশ্বের প্রায় ৫ কোট মানুষ নতুন করে দারিদ্রসীমার নীচে চলে যেতে পারে বলে আগেই জানিয়েছে জাতিসংঘ। বিশ্ব ব্যাংকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ