Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৪ কার্তিক ১৪২৭, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

জাতিসংঘ বেলারুশে বিক্ষোভকারীদের ওপর সরকারি নৃশংতার তদন্ত করবে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬:৫৯ পিএম

জাতিসংঘ মানবাধিকার কমিশন স্থানীয় সময় শুক্রবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, তারা ইউরোপিয় ইউনিয়নের উত্থাপিত রেজ্যুলেশন গ্রহণ করেছে। জাতিসংঘের প্রতিনিধি দল সরকার-বিরোধী বিক্ষোভকারীদের ওপর বেলারুশের প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্ডার লুকাশেঙ্কোর নৃশংসতা ও ধর-পাকড়ের বিষয় তদন্ত করে প্রতিবেদন পেশ করবে। মানবাধিকার কাউন্সিল সর্বসম্মতিক্রমে জানিয়েছে, জাতিসংঘের বেলারুশ বিষয়ক মনিটর আনিস মারিনকে সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের এই রাষ্ট্রে তদন্তের স্বার্থে প্রবেশ এবং কারাগারসহ অন্যন্য স্থানে যাওয়ার অনুমতি দিতে হবে। -রয়টার্স

আনিস মারিন মানবাধিকার পরিষদকে জানিয়েছেন, গত কয়েক সপ্তাহেই বেলারুশে ১০ হাজারের বেশি মানুষকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, শত শত ব্যক্তি ধষর্ণ, ইলেকট্রিক শক ও অন্যান্য শারীরিক এবং মানসিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন বলে তাদের কাছে খবর রয়েছে। রেজ্যুলেশনে রাজধানী মিনস্কে বিক্ষোভরতদের ওপর সহিংসতা, নির্যাতন, গ্রেপ্তার বন্ধের আহবান জানানো হয় এবং কর্তৃপক্ষকে বিরোধী দল ও সুশীল সমাজের সঙ্গে আলোচনা করার পরামর্শ দেয়া হয়। তবে শুক্রবারে র সভায় বেলারুশ, রাশিয়া, ভেনেজুয়েলা এবং চীনের দূতরা বেলারুশে চালানো পুলিশি নৃশংসতার প্রেক্ষিতে জারি করা রেজ্যুলেশন আটকে দেয়ার চেষ্টা করে ন। এই রেজ্যুলেশন পাশের পূর্বে লিথুয়ানিয়ায় রাজনৈতিক আশ্রয়ে থাকা বেলারুশের বিরোধী দলীয় নেত্রী শ্বেতলানা তিখানোভস্কয়া জেনেভার কাউন্সিলের সঙ্গে ভিডিও লিংকে যোগ দেন। তিনি সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীদের ওপর চালানো সহিংসতার আন্তর্জাতিক তদন্ত দাবী করেন। এছাড়াও তিনি লুকাশেঙ্কোকে পুনরয় নির্বাচন দেয়ার আহবান জানান।

লুকাশেঙ্কো ব লে ছেন, গত ৯ আগস্টের নির্বাচনে তিনি ৮০ শতাংশ ভোট পেয়েছেন। তবে নির্বাচনে ফলাফল ঘোষণার পর থেকেই টানা ৫ সপ্তাহব্যাপী রাজধানী মিনস্কে নির্বাচনে জালিয়াতি ও কারচুপির অভিযোগ এনে লুকাশেঙ্কোর পদত্যাগের দাবীতে বিক্ষোভ করছে লাখো জনতা। লুকাশেঙ্কো দেশে অসহিঞ্চুতার জন্য যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপিয় ইউনিয়নের দেশগুলোকে দোষারোপ করছেন। গত বৃহস্পতিবার তিনি সম্ভাব্য যুদ্ধের হুঁশিয়ারি দিয়ে লিথুয়ানিয়া, লাটভিয়া, পোল্যান্ড ও ইউক্রেনের সীমান্ত বন্ধ করার হুমকি দিয়েছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ