Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭, ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

ভারতকে ধর্মীয় অপরাধী তালিকাভুক্ত করুন

পম্পেওকে মার্কিন সিনেটরদের চিঠি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

ভারতীয় আমেরিকান এবং মার্কিন নাগরিক অধিকার সংগঠন এবং কর্মীদের জোট ‘দ্য কোয়ালিশন টু স্টপ জেনোসাইড ইন ইন্ডিয়া’ সম্প্রতি মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওকে লেখা ১৪ জন মার্কিন সিনেটরের একটি চিঠিকে স্বাগত জানিয়েছে। তারা বলেছে, মার্কিন আইন কতিপয় দেশকে বিশ্বের ধর্মীয় স্বাধীনতার বিরুদ্ধে নিকৃষ্টতম অপরাধী দেশ হিসেবে বিবেচনা করে কান্ট্রিজ অফ পার্টিকুলার কনসার্ন- সিপিসি হিসাবে মনোনীত করতে একটি ফেডারেল কমিশনের সুপারিশ বিবেচনা করা মার্কিন সরকারে জন্য আবশ্যক করে তোলে। তারা আরো বলেছে, মার্কিন সরকারকে অবশ্যই ভারতীয় সরকারি সংস্থা এবং ধর্মীয় নিপীড়নের সাথে জড়িত কর্মকর্তাদেরকে অপরাধীর তালিকাভুক্ত করতে হবে।

দ্বিপক্ষীয় চিঠিতে ১০ জন রিপাবলিকান সিনেটর এবং ৪ জন ডেমোক্র্যাট স্বাক্ষরিত করে পম্পেওকে পাঠান। আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা কমিশন (ইউএসসিআইআরএফ) ফেডারেল কমিশনকে যে সুপারিশ করেছে, তা সরকার গ্রহণ করবে কি না, সে বিষয়ে ৩০ দিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে মার্কিন কংগ্রেসকে অবহিত করার কথা রয়েছে। আন্তর্জাতিক ক্রিশ্চিয়ান কনসার্নের অ্যাডভোকেসি ডিরেক্টর মাতিয়াস পার্টুলা বলেছেন, ‘মোদি সরকারকে অবশ্যই তার চরমপন্থী এজেন্ডা থেকে সরে যেতে হবে এবং ভারতের সংবিধানে যেমন গ্যারান্টি অনুযায়ী তার সকল ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের অধিকার ও স্বাধীনতা সুরক্ষিত করতে হবে।’ আইএএমসি’র জাতীয় প্রেসিডেন্ট আহসান খান বলেছেন, ‘পররাষ্ট্রমন্ত্রী পম্পেওকে দেয়া সিনেটরদের চিঠি দেখায় যে, ভারতের প্রধান সংখ্যালঘু মুসলিম এবং খ্রিস্টানদের বিরুদ্ধে ক্রমবর্ধমান সহিংসতার জন্য ভারতকে জবাবদিহি করার পক্ষে একটি শক্তিশালী দ্বিপক্ষীয় কংগ্রেসের সমর্থন রয়েছে। মার্কিন সরকারকে অবশ্যই ভারতকে সিপিসি হিসাবে মনোনীত করতে হবে।’
দ্য কোয়ালিশন টু স্টপ জেনোসাইড পররাষ্ট্রমন্ত্রী আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা আইন (আইআরএফএ) দ্বারা সংজ্ঞায়িত পদ্ধতিগত, চলমান, ও গুরুতর ধর্মীয় স্বাধীনতা লঙ্ঘনে জড়িত ভারতকে সিপিসি হিসাবে মনোনীত করার জন্য ইউএসসিআইআরএফের সুপারিশ গ্রহণ করতে পম্পেওকে কেবল অনুরোধই করেনি, পাশাপাশি, ভারত সরকারের নিপীড়ন সংস্থা এবং ধর্মীয় স্বাধীনতার মারাত্মক লঙ্ঘনের জন্য দায়ী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে সম্পদ হিমায়িত করে এবং অথবা যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ নিষিদ্ধ করে সুনির্দিষ্ট নিষেধাজ্ঞা আরোপে দ্রæত পদক্ষেপ নেয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছে।

গত বছর ইউএসসিআইআরএফের সুপারিশের ভিত্তিতে চীন, উত্তর কোরিয়া, বার্মা, পাকিস্তান ও সউদী আরবসহ ৯টি দেশকে সিপিসি হিসাবে মনোনীত করে যুক্তরাষ্ট্র। এ বছরের এপ্রিলে ইউএসসিআইআরএফ ভারতসহ আরও ৯টি দেশকে এ তালিকায় যুক্ত করার সুপারিশ করে। সিএসজিআই বারবার ভারতকে বিশেষ উদ্বেগের দেশগুলির তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার জন্য আহ্বান জানিয়ে আসছে এবং ভারতের ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে ক্রমবর্ধমান নির্যাতনের পরিপ্রেক্ষিতে এ বিষয়ে ইউএসসিআইআরএফের সুপারিশ মেনে নেয়ার জন্য মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টকে অনুরোধ করেছে। সূত্র : দ্য মিল্লি গেজেট।



 

Show all comments
  • Mohiuddin Prodhan ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:০৯ এএম says : 0
    ধন্যবাদ গুরুত্বপূর্ণ িএকটা পরামর্শ দেয়ার জন্য।
    Total Reply(0) Reply
  • মশিউর ইসলাম ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:১০ এএম says : 0
    বর্তমান ভারত পৃখিবীর মধ্যে সর্ব নিকৃষ্ট একটা দেশ যারা ধর্মীয়ভাবে শতদা বিভক্ত।
    Total Reply(0) Reply
  • রাকিবউদ্দিন ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:১১ এএম says : 0
    ভারতের মতো উগ্র ধর্মীয় মতবাদ আর কোনো দেশে নেই।
    Total Reply(0) Reply
  • রাগিনী মেয়ে ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:১২ এএম says : 0
    ভারতকে ধর্মীয় উগ্রবাদের তালিকাভুক্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হোক।
    Total Reply(0) Reply
  • রিদওয়ান বিবেক ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:১২ এএম says : 0
    ধন্যবাদ পম্পেওকে।
    Total Reply(0) Reply
  • Abdul Jabber Miah ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৪:১২ এএম says : 0
    India is the worst racist of the world.
    Total Reply(0) Reply
  • Md Rejaul Karim ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬:২৭ এএম says : 0
    ধন্যবাদ গুরুত্বপূর্ণ মন্তব্যের জন্য। পৃথিবীর মধ্যে ভারত অন্যতম সন্দেহের কোন অবকাশ নেই। ভারতকে ধর্মীয় উগ্রবাদের তালিকাভুক্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা করা উচিত।।।
    Total Reply(0) Reply
  • Sheikh Farid ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬:৩১ এএম says : 0
    ভারত একটি জগন্যতম নিকৃষ্ট দেশ।
    Total Reply(0) Reply
  • Nannu chowhan ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৭:১৬ এএম says : 0
    Asholei mudi shorkar eaibegganik juge je,varotio shongkha logodir opor ayn kore othoba je vabe ottachar nipiron hotta chalaitese ta kono vabei grohon joggo noy,eai joghonno shorkar tarporo bohi bishshe shobkisu nijer onujaiee vog korse eaita cholte deowa jaina....
    Total Reply(0) Reply
  • hawlader jonayed ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:২০ পিএম says : 0
    ভারত শুধু এশিয়া নয় পৃথিবীর অন্যতম সংখ্যালঘু ও রাজনৈতিকভাবে সহিংস রাষ্ট্র তারা বিকৃত ও মানবিকতার নিকৃষ্টতম কাজ সমাজ ও রাষ্ট্রে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য উগ্রবাদীদের রাষ্ট্রীয় সমর্থন দিচ্ছে, যা একটা গণতান্ত্রিক দেশে মানুষের অধিকার ও স্বাধীনতার সর্বোচ্চ লংঘন,এই অবস্থার দ্রুত পরিবর্তন হওয়া জরুরি বলে মনে করি।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত

১৫ অক্টোবর, ২০২০
১৫ অক্টোবর, ২০২০
১৪ অক্টোবর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ