Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৮ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

আমি শরিয়তের হুকুম আহকাম মোতাবেক চলার চেষ্টা করি। পারিবারিক বাধা সত্বেও দাড়ি টুপি ব্যবহার করছি। ১ বছর আগে পারিবারিকভাবে বিয়ে করি। বিয়েতে আমি পরিপূর্ন শরিয়ত মানার চেষ্ঠা করেছি এতে পরিবারের সবাই নারাজ হয়। বড় বোন জামাইয়ের নারাজির কারণে মা-বাবাও খুশি নন। পর্দার খেলাফ এবং আমার কর্মক্ষেত্র দূরে হওয়ায় আমার স্ত্রীকে আমার কাছে নিয়ে আসি। এইজন্য আমার মা আমার প্রতি অসন্তুষ্ট। তিনি আমার স্ত্রীকে ফোনে গালিগালাজ করে। বড় ভাই নেশাগ্রস্থ ও অন্যান্য অপরাধের সাথে যুক্ত থাকার পরেও তারা তাকেই বেশী আশ্রয় প্রশ্রয় দেয়। মাস শেষে টাকা নেওয়ার জন্য ফোন করা ছাড়া আমার সাথে তারা কোনো যোগাযোগ রাখে না। এই অভিমানে আমিও যোগাযোগ কম করি এবং ৬ মাস যাবৎ বাড়ি যাওয়া বন্ধ করে দেই। এতে তাদের কোন ভ্রুক্ষেপ নেই। যদিও তাদের জন্য আমার কষ্ট হচ্ছে। এমতাবস্থায় আমার করণীয় কি?

আসাদুজ্জামান
ইমেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১:০৭ এএম

উত্তর : তাদের জন্য আপনার কষ্ট হওয়াটা আপনার ভালো মানুষির চিহ্ন। এটি সন্তান হিসাবে, ভাই হিসাবে, পরিবারের সদস্য হিসাবে আপনার প্রশংসনীয় অনুভূতি। এটুকুর জন্য ইনশাআল্লাহ আপনি সম্পর্ক ছেদের গুনাহ থেকে রক্ষা পেয়ে যাবেন। যথাসম্ভব তাদের সহায়তা করতে থাকুন। আপনার পক্ষ থেকে যেন ভালো আচরণ বন্ধ না হয়ে যায়। এরপরও যদি আপনার আম্মা আপনাদের সাথে অস্বাভাবিক আচরণ করেন, এটি তার ব্যাপার। আপনারা আজীবন ধৈর্য ধরে যান। এটাই আল্লাহর হুকুম। নিজেরা পাল্টা দুর্ব্যবহার করবেন না। সহনীয় সামাজিকতা বজায়ে রেখে শরীয়ত পালন করতে হয়। আপনি শরীয়ত পালন করার ক্ষেত্রে অন্যদের প্রতি আরও নমনীয় হওয়ার চেষ্টা করুন। কোনো অন্যায় আবদার বা গুনাহকে প্রশ্রয় দিবেন না। নিজের স্ত্রীকে নিয়ে শক্ত থাকুন। নীতি ও আদর্শ বজায় রাখুন। সদাচরণ ও সহযোগিতা চালিয়ে যান এবং আরও অধিক ধৈর্যের জন্য তৈরি থাকুন। অনেক কষ্ট ভোগ করতে হতে পারে, তবে আপনার গুনাহ হবে না।
উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী
সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতওয়া বিশ্বকোষ।
প্রশ্ন পাঠাতে নিচের ইমেইল ব্যবহার করুন।
[email protected]

 

ইসলামিক প্রশ্নোত্তর বিভাগে প্রশ্ন পাঠানোর ঠিকানা
[email protected]



 

Show all comments
  • Mohammed Kowaj Ali khan ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১:৩৯ এএম says : 0
    ইসলামেই স্বার্থকতা ইসলামেই সফলতা। ইনশাআল্লাহ।
    Total Reply(0) Reply
  • আবদুল মান্নান ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১১:১০ এএম says : 0
    খুব সুন্দর উত্তর
    Total Reply(0) Reply
  • নাসির উদ্দিন ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৭:৫৯ এএম says : 0
    আল্লাহ আমাদের সবাইকে পরিপূর্ণ ইসলামের বিধান মেনে চলার তৌফিক দান করুক
    Total Reply(0) Reply
  • তানবীর ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৮:০০ এএম says : 0
    একমাত্র ইসলামের মধ্যে রয়েছে শান্তি
    Total Reply(0) Reply
  • নজরুল ইসলাম ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৮:০১ এএম says : 0
    প্রশ্নকারী ও উত্তরদাতাকে অসংখ্য ধন্যবাদ
    Total Reply(0) Reply
  • মামুন ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৮:০২ এএম says : 0
    দৈনিক ইনকিলাবের এই প্রশ্ন উত্তর বিভাগের মাধ্যমে আমরা অনেক উপকৃত হচ্ছি
    Total Reply(0) Reply
  • রবিউল ইসলাম ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৭:০৭ পিএম says : 0
    প্রত্যেক বাবা মা কিন্তু সুসন্তান বানাতে পারেন না। আবার সুসন্তান না হলে বাব মাকে দোষ দেয়া যাবে না। জন্ম হোক যথা তথা কর্ম হোক ভাল। নিজের আমল নিজেকেই হিসাব দিতে হবে। সবাইকে ধন্যবাদ
    Total Reply(0) Reply
  • Md Monir Bhuiyan ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৭:০৭ পিএম says : 0
    আলহামদুলিল্লাহ। বাস্তব জীবনের গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় জানতে পারলাম। শুকরানজাযাকাল্লাহ
    Total Reply(0) Reply
  • Asaduzzaman Sohag ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৮:২৩ এএম says : 0
    জাযাকাল্লাহ
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হুকুম-আহকাম

২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০
আমি শরিয়তের হুকুম আহকাম মোতাবেক চলার চেষ্টা করি। পারিবারিক বাধা সত্বেও দাড়ি টুপি ব্যবহার করছি। ১ বছর আগে পারিবারিকভাবে বিয়ে করি। বিয়েতে আমি পরিপূর্ন শরিয়ত মানার চেষ্ঠা করেছি এতে পরিবারের সবাই নারাজ হয়। বড় বোন জামাইয়ের নারাজির কারণে মা-বাবাও খুশি নন। পর্দার খেলাফ এবং আমার কর্মক্ষেত্র দূরে হওয়ায় আমার স্ত্রীকে আমার কাছে নিয়ে আসি। এইজন্য আমার মা আমার প্রতি অসন্তুষ্ট। তিনি আমার স্ত্রীকে ফোনে গালিগালাজ করে। বড় ভাই নেশাগ্রস্থ ও অন্যান্য অপরাধের সাথে যুক্ত থাকার পরেও তারা তাকেই বেশী আশ্রয় প্রশ্রয় দেয়। মাস শেষে টাকা নেওয়ার জন্য ফোন করা ছাড়া আমার সাথে তারা কোনো যোগাযোগ রাখে না। এই অভিমানে আমিও যোগাযোগ কম করি এবং ৬ মাস যাবৎ বাড়ি যাওয়া বন্ধ করে দেই। এতে তাদের কোন ভ্রুক্ষেপ নেই। যদিও তাদের জন্য আমার কষ্ট হচ্ছে। এমতাবস্থায় আমার করণীয় কি?
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ