Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১ কার্তিক ১৪২৭, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

নীলফামারীতে ভুয়া এসপি গ্রেফতার

নীলফামারী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১১:৩৩ এএম

নীলফামারী জেলা পুলিশ সুপার মোখলেছুর রহমানের কাছে ধরা খেয়েছেন ভুয়া এসপি মোস্তাফিজুর রহমান বাবু ওরফে নীরব। এসপি মোখলেছুর রহমানের নাম ভাঙ্গিয়ে ৮ জনের কাছ থেকে বিকাশে টাকা আদায়ের চেষ্টাকালে সোমবার ২১শে সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় সৈয়দপুর শহরের শুটকির মোড় এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয় এবং তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে তারই সহযোগী চাচাতো বোন সুফিয়া বেগমকে গ্রেফতার করা হয় দিনাজপুর জেলার কাহারোল এলাকার রামচন্দ্রপুর এলাকা থেকে মঙ্গলবার ২২শে সেপ্টেম্বর জেলা পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে নিশ্চিত করেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান বিপিএম পিপিএম।

এসময় তিনি বলেন, আমার নিজস্ব ফেসবুক থেকে ছবি সংগ্রহ করে ভুয়া এ্যাকাউন্ট খুলে সে। বিষয়টি জানার পর তদন্ত শুরু করা হয়। এক পর্যায়ে আমার নাম ব্যবহার করে টাকা আদায়ের চেষ্টা করলে বিষয়টি নজরে আসে এবং তাকে গ্রেফতারের অভিযান শুরু হয়।
প্রতারক নীরব ডিআইজি সহ বিভিন্ন জেলার এসপির নামে ভুয়া আইডি খুলে ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ফোন করতো এবং মামলা থেকে বাচাঁতে টাকা আদায় করতো। তার এই কাজে সহায়তা করতো চাচাতো বোন সাবেক ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য সুফিয়া বেগম। বিকাশে আসা টাকা তারা দু’জনে ভাগ করে নিতো। নীরব ভোলা জেলা থেকে একজন এসআইর ছবি দিয়ে আইডি খুলে এই প্রতারণা শুরু করে। ৬৮ জনের কাছ থেকে প্রায় সাড়ে চার লাখ টাকা আদায় করেছে সে। যেটি বিকাশের স্টেটমেন্টে প্রাথমিক ভাবে জানা গেছে।

তিনি আরো বলেন, এর আগেও এরকম প্রতারণার মাধ্যমে মামলা হলে ২৩ মাস জেল খাটে। নীরব নওগাঁ জেলার নিয়ামতপুর উপজেলার চেীরাপাড়া এলাকার সিরাজুল ইসলামের ছেলে এবং বর্তমানে চট্টগ্রাম জেলার মধ্যম হালিশহর মাইজপাড়া এলাকায় বসবাস করে। এ ঘটনায় আরও কারা জড়িত রয়েছে এবং কতজনের সাথে প্রতারণা করেছে সবাইকে গ্রেফতার করা হবে বলে জানান এসপি মোখলেছুর রহমান। বিকেলে আদালতের মাধ্যমে গ্রেফতারকৃত দু’জনকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল বাশার মোহাম্মদ আতিকুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সৈয়দপুর সার্কেল অশোক কুমার পাল, জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হারুন উর রশিদ, সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক মাহমুদ উন নবী।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গ্রেফতার


আরও
আরও পড়ুন