Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

হুমকির মুখে বীর শ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ স্মৃতি জাদুঘর

শুকনো মৌসুমে প্রকল্প কাজ শুরু করা হবে - নির্বাহী প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ

ফরিদপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ২:৩৫ পিএম

ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার কামারখালী ইউনিয়নে জন্ম গ্রহণ করেন বীর শ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ। স্বাধীনতা যুদ্ধে ৭ জন বীর শ্রেষ্ঠের মধ্যে অন্যতম শহীদ আব্দুর রউফ। কয়েক বছর ধরে মধুমতি নদী গর্ভে চলে গেছে। জেলার দুইটি উপজেলা মধুখালী ও আলফাডাঙ্গা উপজেলার কয়েক হাজার পরিবারের বাড়ি ঘর, ফসলী জমি ইত্যাদি হারিয়ে নিঃস্ব। 

অনেকে ভিক্ষা করে খায় এবং অন্যের বাড়িয়ে ঘর তুলে বসবাস করছে।

এই ভাঙ্গনের ছোবল থেকে রক্ষা পায়নি বীর শ্রেষ্ঠ আব্দুর রউফের স্মৃতি যাদুঘর ।
চলাচলের রাস্তাটি যে কোন সময় চকে যেতে পারে নদী গর্ভে।
অপরদিকে আলফাডাঙ্গা উপজেলার টগরবন্দর ও গোপালপুর এবং মধুখালী উপজেলার কামারখালী ইউনিয়নের ৫০ ভাগ মধুমতী নদী গর্ভে চলে গেছে।
এই বিষয়ে ফরিদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সুলতান মাহামুদ জানান, ফরিদপুর জেলাধীন মধুমতী নদীর বাম তীরের ভাংগন হতে শহীদ বীর শ্রেষ্ঠ আব্দুর রউফ স্মৃতি জাদুঘর সংযোগ রাস্তা সহ অন্যান্য এলাকার ও ড্রেজিং প্রকল্পের কাজ শুকনো মৌসুমে শুরু হবে।

তিনি আরো জানান, এই প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৯৬৩ কোটি টাকা। প্রকল্পের কাজের মধ্যে রয়েছে ১৪ কিলোমিটার স্থায়ী রক্ষা বাধ, নদী ড্রেজিং, খনন কাজ ও তীরবর্তী রাস্তা নির্মান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নদী ভাঙ্গন

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮
২২ জুলাই, ২০১৮

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ