Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৪ কার্তিক ১৪২৭, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

কোনো দেশের সঙ্গে যুদ্ধের ইচ্ছা নেই চীনের

জাতিসঙ্ঘে ভাষণে শি জিনপিং

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০৬ এএম

কোনো দেশের সঙ্গে যুদ্ধের ইচ্ছা চীনের নেই বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। গত মঙ্গলবার জাতিসংঘের ৭৫তম অধিবেশনে দেয়া ভাষণে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং এমনটি বলেন। তিনি বলেন, কোনো দেশের সঙ্গে শীতল বা উত্তপ্ত যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ার ইচ্ছা চীনের নেই। জিনপিংয়ের মতে, প্রতিবেশী দেশের মধ্যে মতপার্থক্য হওয়া স্বাভাবিক। তবে তাদের আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা উচিত। শি জিনপিং বলেন, চীন বিশ্বব্যাপী শান্তিপূর্ণ, উন্মুক্ত, সমবায় ও সাধারণ উন্নয়নে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ বৃহত্তম উন্নয়নশীল দেশ। আমরা কখনোই আধিপত্য, প্রসার বা প্রভাব বাড়ানোর পক্ষপাতী নই। ক্রমাগত আলোচনার মাধ্যমে অন্যের সঙ্গে বিরোধ মিটিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করব।

এমন একটা সময়ে চীনা প্রেসিডেন্ট জাতিসংঘে এই ভাষণ দিলেন, যখন ভারতের সঙ্গে সীমান্ত নিয়ে চরম উত্তেজনাপূর্ণ আবহ তৈরি হয়ে রয়েছে। এদিকে উহান থেকে বিশ্বের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রও চীনের ওপর ক্ষুব্ধ রয়েছে। এ নিয়ে শি জিনপিং বলেন, করোনা ইস্যু ঘিরে রাজনীতির রং লাগানোর যে প্রয়াস হচ্ছে, তা প্রত্যাখ্যান করতে হবে।

অপর এক খবরে বলা হয়, পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ড. আরিফ আলভি বিদায়ী চীনা রাষ্ট্রদ‚ত ইয়াও জিংকে হিলাল-ই-পাকিস্তান পদকে ভূষিত করেছেন। বিভিন্ন ক্ষেত্রে চীন ও পাকিস্তানের মধ্যে বন্ধুত্ব সুদৃঢ়করণে তার অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ এ পদক দেয়া হয়। মঙ্গলবার ইসলামাবাদের প্রেসিডেন্ট ভবন আইওয়ান-ই-সদরে আয়োজিত বিশেষ পদক বিরতরণী অনুষ্ঠানে সিনেটের চেয়ারম্যান, জাতীয় পরিষদের স্পিকারসহ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও অন্যান্য দফতরের সিনিয়র কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পরে চীনা দূত প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। দূতের সঙ্গে আলোচনাকালে চায়না-পাকিস্তান ইকোনমিক করিডোরের (সিপিইসি) অর্থনৈতিক ও কৌশলগত গুরুত্ব তুলে ধরে প্রেসিডেন্ট বলেন, এই করিডোর পাকিস্তান, চীন, আফগানিস্তান ও মধ্য এশিয়ার মধ্যে কানেকটিভিটি তৈরি করবে এবং এই অঞ্চলের দেশগুলো এখান থেকে বিপুলভাবে উপকৃত হবে। তিনি সর্ব মওসুমের বন্ধু চীন ও পাকিস্তানের মধ্যে প্রতিরক্ষা সম্পর্ক আরো জোরদারের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন।

প্রেসিডেন্ট বলেন, চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সফরের জন্য পাকিস্তান আগ্রহভরে অপেক্ষা করছে। এ সফর বাণিজ্য, অর্থনীতি ও প্রতিরক্ষা খাতে দুই দেশের সম্পর্ক আরো জোরদার করবে। এ সময় বিদায়ী চীনা দূত আশ্বস্ত করেন যে, এ অঞ্চলের শান্তি ও কানেকটিভিটি জোরদারে চীন অব্যাহত প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবে। সূত্র : সিনহুয়া, জিভিএস, এসএএম।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চীন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ