Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১০ কার্তিক ১৪২৭, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

আল্লামা আহমদ শফী (রহ.) ইসলাম প্রচার প্রসারে ত্যাগ স্বীকার করেছেন

পীর সাহেব চরমোনাই

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৮:৪৭ পিএম

ইসলামী অন্দোলন বাংলাদেশ এর আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ এর আমীর ও হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালক আল্লামা শাহ আহমদ শফী (রহ.) নাস্তিক মুরতাদ ও শয়তানী শক্তির বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলন করেছেন। ইসলামী শিক্ষা প্রচার- প্রসারে সারা জীবন ত্যাগ স্বীকার করেছেন আল্লামা শফী (রহ.)। তার অবর্তমানে ইসলামী জগতে যে শূন্যতা তৈরি হয়েছে তা সহজে পূরণ হবার নয়। দেশ, মানবতা ও ইসলামের জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগ করাই মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মাদ ফজলুল করীম (রহ.) ও আল্লামা শাহ আহমদ শফী (রহ.) এর জীবনার্দশ। আজ শুক্রবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাব সংলগ্ন বিএমএ মিলনায়তনে ইসলামী যুব আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি কে এম আতিকুর রহমানের সভাপতিত্বে আয়োজিত মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মাদ ফজলুল করীম (রহ.) ও আল্লামা শাহ আহমদ শফী (রহ.) এর জীবন ও কর্ম শীর্ষক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের পীর সাহেব চরমোনাইন প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। আলোচনা সভায় মরহুমদ্বয়ের রূহের মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।
সংগঠনের সেক্রেটারী জেনারেল মাওলানা মুহাম্মাদ নেছার উদ্দিনের পরিচালনায় “জীবন ও কর্ম”শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর সিনিয়ার নায়বে আমির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করিম (শায়েখে চরমোনাই), প্রেসিডিয়াম সদস্য প্রিন্সিপাল মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী, পীর সাহেব চরমোনাই (রহ.) এর খলিফা আল্লামা নুরুল হুদা ফয়েজী, দৈনিক ইনকিলাব এর সিনিয়র সহ-সম্পাদক, মাওলানা উবায়দুর রহমান খান নদভী, পীর সাহেব সন্দিপী এর জামাতা মুফতি উমর ফারুক সন্দিপী, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর নায়েবে আমীর হাফেজ মাওলানা আব্দুল আউয়াল, শায়খুল হাদীস আল্লামা আজিজুল হক (রহ.) এর সাহেবজাদা ও বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের মহাসচিব শায়খুল হাদীস মাওলানা মামুনুল হক, মহাসচিব প্রিন্সিপাল হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ আইয়ুবী, সায়েন্স ল্যাবরেটরী মসজিদ এর খতিব, মাওলানা হাসান জামিল।
পীর সাহেব চরমোনাই মুফতী সৈয়দ রেজাউল করীম বলেন, মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মাদ ফজলুল করীম (রহ.) "খানকার পীর ময়দানে বীর" এই উপাধিতে তিনি পরিচিত হয়ে উঠেছিলেন বাংলাদেশের জনসাধারণের মাঝে। গতানুগতিক নিয়মের খানকায় আরাম আয়েসে বসে তিনি শুধু ইসলামের দিকে মানুষকে দাওয়াত দেননি। ইসলাম, দেশ এবং মানুষের যেকোনো প্রয়োজনে তিনি রাজপথে গর্জে উঠেছিলেন। বিপ্লবী মানুষদের নেতৃত্ব দিয়েছেন আপোষহীন ভূমিকায় থেকে।



 

Show all comments
  • Jahangir Alam ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৯:১৬ পিএম says : 0
    আল্লাহ হযরতের শুন্যতা পূরণ করে দিন
    Total Reply(0) Reply
  • Jahangir Alam ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৯:১৮ পিএম says : 0
    আল্লাহ হযরতের শুন্যতা পূরণ করে দিন
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Shah Alam Khan ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৯:২১ পিএম says : 0
    এই সংবাদের উপর আমি আমার ব্যাক্তিগত মত হিসাবে বলতে চাই, আল্লামা শাহ্‌ আহমদ শফি (রহঃ) বাংলাদেশে ইসলামের পথ প্রদর্শক ছিলেন। ওনার প্রতিটি পদক্ষেপ ছিল আল্লাহ্‌র নির্দেশ মোতাবেক। আমি দেখেছি কিভাবে তিনি শাপলা চত্বরে সরকারের কর্মকাণ্ডকে মেনে নিয়েছিলেন। আমার দৃষ্টিতে সেদিন বাবুনগরীর চালে আল্লামা শফী সাহেব সভায় যাবার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিয়ে মধ্য রাস্তা থেকে ফিরে যাওয়ায় সভাকে বাবুনগরী পরদিন আবার সভা শুরু করার কথা বলে সভাকে সাময়িক ভাবে মুলতবী করেছিলেন। সরকার বাবুনগরীর মতলব টের পেয়ে সভাকে সেই রাতেই ছত্রভঙ্গ করে দিয়েছিল। সরকার এটা করেছিল কারণ দেখানো হয়েছে সভা ঐদিনই শেষ করার অনুমতি নেয়া হয়েছিল পরদিন সভার অনুমতি নেই কাজেই সভা এখানে শেষ কেহ সভা স্থলে থাকতে পারবেনা। যেহেতু আল্লামা শফী সাহেব সরকারের সাথে প্রতিজ্ঞা করেছিলেন ঐ দিনই তিনি সভা শেষ করবেন তাই তিনি সততার সাথে সরকারের এই কর্মকাণ্ডকে মেনে নিয়ে এর উপর কোন প্রতিকারে যায়নি যেটা বাবুনগরী এবং তার মদদ দাতা পাকিরা মানে অপশক্তিরা মেনে নিতে পারেন নি। ঐদিনই বাবুনগরী ও তার মদদ দাতা পাকিরা, জামাত-বিএনপি ও শিবিরের লোকজন বুঝতে পেরেছিল হেফজতে ইসলাম ভীষন শক্তিশালী হবার পরও যতদিন আল্লামা শফী সাহেব এই সংগঠনের প্রধান থাকবেন ততদিন সরকারের বিরুদ্ধে কিছুই করা যাবে না। সেই জন্যেই তারা (জামাত-বিএনপি, শিবির মানে পকিরা) হেফাজতের প্রধান আল্লামা শফী সাহেবের এই পরিণতি করিয়েছেন এটাই নিন্দুকেরা বলাবলি করছে। এখন একমাত্র আল্লাহ্‌ই পারেন হেফজতে ইসলামকে বাবুনগরীর মত দুষ্ট লোকদের হাত থেকে রক্ষা করতে। আমি ব্যাক্তিগত ভাবে মনে করি আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যদি এই ঘটনাকে প্রাধান্য দিয়ে এর গভীরে যেয়ে প্রতিকার করতে পারেন তাহলে দেশের এবং দেশের জনগণের কল্যাণ বয়ে আনবে ইনশ’আল্লাহ। আমিন
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন