Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

কক্সবাজারে এবার ১১৪১ কনস্টেবলকে বদলি

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০৬ এএম

কক্সবাজার জেলা পুলিশের ১ হাজার ১৪১ জন কনস্টেবলকে বদলি করা হয়েছে। এর আগে তিন দফায় জেলার পুলিশ সুপার (এসপি), অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, সহকারী পুলিশ সুপার, পরিদর্শকসহ ২৭২ জন পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলি করা হয়। দেশের ইতিহাসে জেলা পুলিশের এতবড় বদলির নজির এটাই প্রথম।
কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন গতকাল শুক্রবার বলেন, গত বৃহস্পতিবার সদর দপ্তরের এক প্রজ্ঞাপনে জেলা পুলিশের ১ হাজার ১৪১ জন কনস্টেবলকে বদলি করা হয়েছে। তারা বর্তমানে জেলার আটটি থানা, একাধিক পুলিশ ফাঁড়ি, আদালত, জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি), ট্রাফিক বিভাগে কর্মরত। এর আগে পুলিশ সুপার থেকে শুরু করে এএসআই পর্যন্ত পদবির আরও ২৭২ জন পুলিশ কর্মকর্তাকে অন্যত্র বদলি করা হয়েছে।

অন্যদিকে, এর আগে কক্সবাজারের থানাগুলোতে নতুন ৮ জনকে ওসির দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। একইসঙ্গে আরও ২৯ জন পরিদর্শককে কক্সবাজারে পোস্টিং দেয়া হয়েছে। পৃথক দু’আদেশে পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত আইজিপি ড. মো. মইনুর রহমান চৌধুরী স্বাক্ষরিত পৃথক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়। কক্সবাজারে পোস্টিং হওয়া অফিসারদের গতকাল শুক্রবার সকালে চট্টগ্রাম রেঞ্জে ােগদান করেন। কক্সবাজারে নতুনভাবে দায়িত্বপ্রাপ্ত আট থানার ৮ অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হলেন- সাতক্ষীরা জেলা থেকে শেখ মুনির উল গিয়াস, সিরাজগঞ্জ জেলা থেকে মো. হাফিজুর রহমান, সুনামগঞ্জ জেলা থেকে আহম্মদ সনজুর মোরশেদ, নওগাঁ জেলা থেকে মো. আব্দুল হাই, গোপালগঞ্জ জেলা থেকে শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের, নীলফামারী জেলা থেকে কেএম আজমিরুজ্জামান, ডিএমপি ঢাকা থেকে মো. সাইফুর রহমান মজুমদার ও মৌলভীবাজার জেলা থেকে মো. জালাল উদ্দিন। এই বদলির আগে গত ১৬ সেপ্টেম্বর কক্সবাজারে পুলিশ সুপার (এসপি) এবি এম মাসুদ হোসেনকে রাজশাহীর পুলিশ সুপার হিসাবে বদলি করা হয়। আর ঝিনাইদহের এসপি হাসানুজ্জামানকে কক্সবাজার জেলা পুলিশের দায়িত্ব দেয়া হয়। নবাগত এসপি বুধবার দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন। অন্যদিকে গত বৃহস্পতিবার এসপি মাসুদ হোসেন কক্সবাজার থেকে বিদায় নেন।

গত ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফের মেরিন ড্রাইভ সড়কের শামলাপুর তল্লাশিচৌকিতে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহা মো. রাশেদ খান। এ ঘটনার পর পুলিশের কর্মকান্ড নিয়ে বিভিন্ন মহলে সমালোচনা-প্রতিক্রিয়া শুরু হয়। জেলা পুলিশকে ঢেলে সাজাতে একযোগে সব সদস্যকে বদলির সিদ্ধান্ত নেয় পুলিশের সদর দপ্তর। ইতিমধ্যে ১ হাজার ৪১৩ জন সদস্যকে অন্যত্র বদলি করা হয়েছে।



 

Show all comments
  • Nannu chowhan ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৯:৩৫ এএম says : 0
    I don't understand this, frequently we see the news about some police station has corrupt abusive brutal police acording to the local communities complain publish in the news. Most of the time in our observation the corrupt police has transfer or closed.But question is here,for those corrupt politce has no punishment.If transfer they will do same corruption & criminality at another place because they knows they have no punishment so they feel themselves as king of the country.surprisingly it big question mark about our justice system in the country !
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Shah Alam Khan ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০:২৩ পিএম says : 0
    আমি ব্যাক্তিগত ভাবে মনেকরি সরকার কক্সবাজার পুলিশ প্রশাসনকে যেভাবে ঢেলে সাজাচ্ছে এটা অবশ্যই প্রশংসার দাবীদার। কিন্তু নিন্দুকের সমালোচনা করে বলছেন, সরকার কক্সবাজার থেকে পুলিশদেরকে সাজামূলক বদলী করছেনা বরং ভাল যায়গায় বদলী করে তাদেরকে উৎসাহিত করছে। নিন্দুকেরা আরো বলছেন যে, সরকার সারা বাংলাদেশের জনগণের চাপে পরে এই ঢালাও বদলী করেছে কিন্তু পুলিশদেরকে পুরুস্কৃত ভাবেই বদলী করে পুলিশদেরকে তাদের অপকর্মের কোন সাজা দেয়া হয়নি। এখন পুরো বিষয়টা জনগণের বিচার্য বিষয়। আল্লাহ্‌ আমাদের দেশকে পুলিশদের নিয়ন্ত্রণ থেকে রক্ষা করুন। আমিন
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কক্সবাজার

১১ অক্টোবর, ২০২০
৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০
২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ