Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৪ কার্তিক ১৪২৭, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

আবাদ বেশি হলেও ফলন ভালো হয়নি

নড়াইলে পাট চাষ

আতিয়ার রহমান, নড়াইল থেকে | প্রকাশের সময় : ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০৫ এএম

লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে নড়াইলে পাটের চাষাবাদ বেশি হলেও ফলন ভালো হয়নি। নতুন পাট মানভেদে বিক্রি হচ্ছে ২২০০ থেকে ২৩০০ টাকা। এ বছর বোরো ধানের ভালোদাম পেয়ে পাট চাষে ঝুঁকছেন কৃষক। তাই লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি জমিতে পাটের আবাদ হয়েছে। চাষাবাদের শুরুতে অতিরিক্ত বৃষ্টি হওয়ায় পাটগাছ বড় ও পুষ্ট হয়নি।
সঙ্গতকারণে ফলন ভালো হয়নি বলে জানিয়েছেন কৃষকেরা।
তবে দাম ভালো পাওয়ার আশা তাদের। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে এ বছর ১ হাজার ৩২৫ হেক্টর জমিতে পাটের চাষাবাদ বেশি হয়েছে। এক্ষেত্রে ২১ হাজার ৯১০ হেক্টর জমিতে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও অর্জিত হয়েছে ২২ হাজার ২৭৫ হেক্টর জমিতে।
ইতোমধ্যে নড়াইলের বিভিন্ন অঞ্চলে পাটকাটা, জাগ দেয়া, আঁশ ছড়ানো, ধোঁয়াসহ অন্যান্য প্রক্রিয়া চলছে।
এরই ধারাবাহিতকায় বাজারে নতুন পাট বিক্রি শুরু হয়েছে। বর্তমানে প্রতিমণ নতুন পাট মানভেদে বিক্রি হচ্ছে ২১০০ থেকে ২৩০০টাকায়।এই দাম পেয়ে কৃষকেরা খুশি হলেও শেষ পর্যন্ত পাটের দরপতন নিয়ে শংকার মধ্যে আছেন তারা। কৃষকদের দাবি শেষ পর্যন্ত যেন পাটের দাম ঠিক থাকে।
কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাসহ কৃষকেরা জানান, এ বছর বোরো ধানে মণপ্রতি ৩০০ থেকে সাড়ে তিনশ’ টাকা বেশি পেয়ে কৃষকেরা পাটচাষে আগ্রহী হন। ফলে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি জমিতে আবাদ হয়েছে। নড়াইলে পাটের চাষাবাদ বেশি, তবে চারা অবস্থায় আগাম বর্ষা হওয়ায় পাট বৃদ্ধিতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়েছে। এ কারণে ফলন খারাপ হয়েছে। তবুও কৃষকেরা দাম ভালো পাবেন, এই আশা করছেন সংশ্লিষ্ট সবাই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাট-চাষ

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০
আরও পড়ুন