Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৪ কার্তিক ১৪২৭, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌ-রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০৯ এএম

নাব্য সংকটের কারণে আবারো শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌ-রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে বিআইডব্লিউটিসি।
গতকাল রোববার দুপুর থেকে সেখানে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। শিমুলিয়া ঘাটের বিআইডব্লিউটিসি›র ব্যবস্থাপক সাফায়েত আহমেদ সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, সকালে এই নৌ- রুটে ৫টি ফেরি চলছিল। ফেরি গুলো হলো-কাকলি, কিশোরী, কুমিল্লা, ফরিদপুর ও ক্যামেলিয়া। বেলা সাড়ে ১২টার দিকে কুমিল্লা নামের ফেরিটি নাব্য সংকটের কারণে চ্যানেলে আটকে যায়। এরপর ক্যামেলিয়া ও কাকলি ফেরি দুইটি একই পথে গিয়ে আবার ফিরে আসে। কুমিল্লা ফেরিটি এখনও উদ্ধার হয়নি। (রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত) এরপর থেকেই সব ধরনের ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। চ্যানেলে ফেরি চালানোর উপযোগী পানির গভীরতা নেই।

জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে ফেরি চলাচল ব্যাপকভাবে ব্যাহত হওয়ায় এই রুটে চলাচলকারী চালক ও যাত্রীদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। চলতি মাসের বেশিরভাগ দিন ফেরি চলাচল পুরোপুরি বন্ধ ছিল। এই মাসে এই রুটে বহরের ১৬টি ফেরির সবগুলো কোনদিনই চলতে পারেনি। নাব্য সংকটের কারণে সীমিত আকারে মাত্র কয়েকদিন ফেরি চলতে পেরেছিল।

গত ৮ দিন ধরে সীমিত পরিসরে এই নৌ-রুটে ফেরি চলাচল করছিল।গতকাল রোববার বিকালে শিমুলিয়া ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় ছিল ৬৫টি ট্রাক ও ৩০ যাত্রীবাহী গাড়ি। ফেরি বন্ধের কারণে যাত্রীবাহী গাড়িগুলোর কিছু ফিরেও যাচ্ছে। এদিন চালু থাকা অবস্থায় ১৬০টির মতো যানবাহন ফেরি পার হয়েছে। বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) আবদুর নূর তুষার জানান, কুমিল্লা ফেরিটি উদ্ধারের পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে ফেরি চলবে কি না। তবে দীর্ঘদিন যাবত নিরাপত্তাজনিত কারণে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টার পর ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হচ্ছে।

শিমুলিয়া ঘাটের মেরিন কর্মকর্তা আহম্মেদ আলী জানান, চ্যানেলে যে জায়গায় ড্রেজিং করা হয়েছে সেই জায়গা আবার পলি দিয়ে ভরাট হয়ে গেছে। সকালে ৮ ফুট পানি ছিল কিন্তু বিকালে ৫ ফুট পানি। এই পরিস্থিতি থাকলে ফেরি চালানো যাবে না। পলি অপসারণ করে চ্যানেল বুঝিয়ে না দেওয়া পর্যন্ত কবে ফেরি চলবে বলা যাচ্ছে না।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ