Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

করণকে জোরপূর্বক ফাঁসানোর চেষ্টা করছে এনসিবি

বিনোদন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০:৩০ এএম

মাদক কান্ডে করণ জোহরকে জোরপূর্বক ফাঁসানোর চেষ্টা করছে নারোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)। সম্প্রতি এমন বিস্ফোরক দাবি করেছেন নির্মাতার এক্সিকিউটিভ প্রোডিউসার ক্ষিতিশ রবি প্রসাদ।

বলিউডের মাদকচক্রের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত থাকার অভিযোগে গেল শনিবার এনসিবির হাতে গ্রেফতার হয়েছে ক্ষিতিশ। তবে সংস্থাটির বিরুদ্ধেই পাল্টা দায় চাপানোর চেষ্টা করলেন অভিযুক্ত। তাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর চেষ্টা করা হচ্ছে এই অভিযোগ আগেই এনেছিলেন। এবার অভিযুক্তের দাবি ধর্মা প্রোডাকশনের কর্ণধার করণ জোহর ও সংস্থার অনান্য এক্সিকিউটিভদের নাম জোর করে তার মুখ দিয়ে বলানোর চেষ্টা করছে এনসিবি। রোববার নিজের জামিনের আবেদনে একথা জানান ক্ষিতিশ।

তবে ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে সব অভিযোগ অস্বীকার করে এনসিবি জানিয়েছে, তারা পেশাদার তদন্তকারী সংস্থা এবং নিয়ম মেনেই তদন্ত করছে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ধর্মাটিক এন্টারটেনমেন্টের এই কর্মচারী তার আইনজীবী সতীশ মানশিন্ডে মারফত আদালতে জানান, এনসিবি চাইছে করণ জোহরকে অকারণে ফাঁসিয়ে দিক ক্ষিতিশ। কিন্তু তদন্তকারী সংস্থাটির ডেপুটি ডিরেক্টর মুথা অশোক জৈন এই ধরণের অভিযোগকে ভিত্তিহীন ও ভুয়ো বলে উড়িয়ে দেন। তার কথায়, 'সব কাজ আইনের আওতায় করা হচ্ছে।'

এদিকে সংস্থাটির প্রধান কার্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সমীর ওয়াংখেড়ের দিকে অভিযোগের আঙুল তোলেন মানশিন্ডে। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, 'সমীর ওয়াংখেড়ে নাকি ক্ষিতিশকে স্পষ্ট জানিয়ে দেন তাকে ছেড়ে দেওয়া হবে যদি সে নিজের জবানবন্দিতে করণ জোহর এবং বাকি সকলের নাম বলে দেয় মিথ্যাভাবে যে তারা ড্রাগ সেবন করে। তার মক্কেলের উপর মারাত্মক চাপ সৃষ্টি করা হলেও এই কাজ সে করেনি বলে জানান মানেসিন্ধে।'

অন্যদিকে করণ জোহর নিজের আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে ক্ষিতিশ সম্পর্কে জানান ব্যক্তিগতভাবে তিনি ক্ষিতিশকে চেনেন না। করণের কথায়, 'আমি অথবা ধর্মা প্রোডাকশন কেউই দায়ী নই কোনও মানুষ ব্যক্তিগত জীবনে কী করছে তার জন্য। এটা ধর্মার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ নয়। ক্ষিতিশ রবি প্রসাদ ধর্মাটিক এন্টারটেনমেন্টে (ধর্মার সহযোগী সংস্থা) যোগ দেয় ২০১৯-এর নভেম্বরে এক্সিকিউটিভ প্রোডিউসার হিসাবে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ হয়েছিল তার।'



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বলিউড


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ