Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৪ কার্তিক ১৪২৭, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

ঝালকাঠিতে নারীর চুল কেটে নির্যাতন মামলার আসামিদের গ্রেপ্তার দাবি

ঝালকাঠি জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৫:৩৬ পিএম

ঝালকাঠিতে আওয়ামী লীগ নেত্রী ও বিএনপি নেতা মিলে এক নারীর চুল কেটে রাতভর নির্যাতন শেষে ছবি তুলে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হলেও পুলিশ কোন আসামিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি বলে অেিভযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার দুপুরে ঝালকাঠি প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন নির্যাতনের শিকার পারভীন আক্তার। আসামিরা মামলা তুলে নিতে তাকে হুমকি দেওয়ায় তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। অবিলম্বে আসামিদের গ্রেপ্তারের দাবিও জানান তিনি।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে পারভীন আক্তার জানান, গত ৩০ আগস্ট সন্ধায় তাঁর স্বামী বোরহান উদ্দন খানের প্রথম স্ত্রী সেলিনা আক্তার লাকি, তাঁর ভাই ঝালকাঠি শহর বিএনপিসাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান তাপু ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শারমিন মৌসুমি কেকা সহ ৮-১০ জন তাদের বাসায় গিয়ে তাকে (পারভীন আক্তারকে) মারধর করেন। তাঁরা ওয়্যারড্রব ভেঙে নগদ দুই লাখ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটে নেয়। পরে তাকে জোড়পূর্বক অপহরণ করে শহরের বিআইপি সড়কের হিলটন নামে আবাসিক হোটেলে নিয়ে একটি কক্ষে আটকে রাখে। রাতভর তাকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করে। তাঁর শরীরের বিভিন্ন স্থানে চুন লাগিয়ে দেয়। নির্যাতন শেষে ওই নারীর চুল কেটে দেয় তারা। এ ঘটনার ছবি তুলে রাতেই ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়া হয়। পরে কয়েকটি সাদা কাগজে সই নিয়ে তাঁর ভাই নুরুজ্জামান হাওলাদারকে ফোন করে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ চায় আসামিরা। পরের দিন দুপুরে মুক্তিপণের টাকা দিলে নির্যাতিত নারীকে প্রায় অচেতন অবস্থায় ছেড়ে দেয় আসামিরা। এ ঘটনায় গত ১৭ সেপ্টেম্বর ঝালকাঠির নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল ১ এ নির্যাতিত নারী পারভীন আক্তার (৩০) বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। আদালতের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মো. শহিদুল্লাহ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে এজাহার গ্রহণের নির্দেশ দেন। পাশাপশি বাদীর সম্পূর্ণ নিরাপত্তা প্রদানের আদেশ দেন। রাতেই পুলিশ মামলা রেকর্ড করলেও কোন আসামি গ্রেপ্তার করতে পারেনি। আসামিদের গ্রেপ্তার ও তাকে নিরাপত্তা প্রদানের দাবী জানিয়েছেন পারভীন আক্তার। সংবাদ সম্মেলনে পারভীনের দুই বোন নাসরিন বেগম ও কহিনুর বেগম উপস্থিত ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন