Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৪ কার্তিক ১৪২৭, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

ছাত্রাবাসে গৃহবধূ ধর্ষণ: শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি এমসি কলেজ ছাত্রবাস পরিদর্শনে

সিলেট ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৫:৪১ পিএম

সিলেট এমসি কলেজ হোস্টেলে বালিকা গৃহবধূ গণধর্ষণের ঘটনায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় গঠিত ৩ সদস্যদের তদন্ত কমিটি কলেজ ক্যাম্পাসে এসেছেন। আজ মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৫টায় তদন্ত কমিটি দল কলেজে এসে পৌঁছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, তদন্ত কমিটি ঘটনাস্থল পরিদর্শনসহ কলেজ কর্তৃপক্ষের সাথে বৈঠক করবেন। তদন্ত কমিটির সদস্যরা হলেন- মাউশি পরিচালক (প্রশাসন) শহিদুল কবির চৌধুরী, মাউশি সহ-পরিচালক লোকমান হোসেন, মাউশি উপ-পরিচালক নুরে আলম। কলেজ গঠিত তদন্ত কমিটির সদস্যদের সাথেও তাদের বৈঠক করার কথা রয়েছে। এর আগে ঘটনার পরদিন কলেজের গণিত বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আনোয়ারুজ্জামানকে প্রধান করে ৩ সদস্যদের তদন্ত কমিটি গঠন করে। এ কমিটি ১০ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করার কথা। প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার এমসি কলেজে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হন এক তরুণী। রাত সাড়ে ৮টার দিকে এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে বেঁধে রেখে ওই তরুণীকে ধর্ষণ করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় কলেজের সামনে তার স্বামীকে আটকে রাখে দুজন। এ ঘটনায় তরুণীর স্বামীর দায়ের করা মামলায় আসামিরা হলেন- সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার উমেদনগরের রফিকুল ইসলামের ছেলে তারেকুল ইসলাম তারেক (২৮), হবিগঞ্জ সদরের বাগুনীপাড়ার মো. জাহাঙ্গীর মিয়ার ছেলে শাহ মো. মাহবুবুর রহমান রনি (২৫), জকিগঞ্জের আটগ্রামের কানু লস্করের ছেলে অর্জুন লস্কর (২৫), দিরাই উপজেলার বড়নগদীপুর (জগদল) গ্রামের রবিউল ইসলাম (২৫) ও কানাইঘাটের গাছবাড়ি গ্রামের মাহফুজুর রহমান মাসুমকে (২৫)। এছাড়া অজ্ঞাতনামা আরও তিনজনকে আসামি করা হয়। এ ঘটনায় এজাহারভূক্ত পাঁচজনসহ এ পর্যন্ত সাতজনকে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ


আরও
আরও পড়ুন