Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

যুদ্ধবিমান ধ্বংসের জন্য তুরস্ককে দায়ী করলো আর্মেনিয়া

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৯:২৭ এএম | আপডেট : ৪:৪৪ পিএম, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

বিতর্কিত নাগর্নো-কারাবাখ নিয়ে গত রোববার থেকেই আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে যুদ্ধ শুরু হয়ে গিয়েছিল। মঙ্গলবার তাতে তুরস্ক অংশ নিয়েছে বলে আর্মেনিয়া অভিযোগ করে জানিয়েছে, তুরস্ক তাদের যুদ্ধবিমান ধ্বংস করেছে। নিহত হয়েছেন পাইলট।

তুরস্ক অবশ্য আর্মেনিয়ার এই দাবি উড়িয়ে দিয়েছে। তুরস্ক এবং আজারবাইজান দুই তরফই জানিয়েছে, সস্তা প্রোপাগান্ডার জন্যই এ ভাবে তুরস্ককে দোষী সাব্যস্ত করার চেষ্টা করছে আর্মেনিয়া। অন্য দিকে সোমবারের পরে মঙ্গলবারও যুদ্ধ অব্যাহত প্রতিবেশী দুই দেশের। অভিযোগ, আর্মেনিয়া আজারবাইজানের একটি সীমান্ত অঞ্চলে শেলিং করেছে। অন্য দিকে আজারবাইজানও আর্মেনিয়ার একটি অঞ্চলে গুলি চালিয়েছে এবং বাসে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ। মঙ্গলবার দুই দেশের মধ্যে সংঘর্ষের শিকার হয়েছেন ১২ জন সাধারণ মানুষ। আহত ৩৫।

সোমবারই আর্মেনিয়া অভিযোগ করেছিল, তুরস্ক সরাসরি আজারবাইজানকে যুদ্ধে সাহায্য করছে। তুরস্ক পাল্টা উত্তর দিয়ে বলেছিল, বিতর্কিত অঞ্চল আজারবাইজানের। আর্মেনিয়া বেআইনি তা দখল করে রেখেছে। মঙ্গলবার ফের তুরস্কের দিকে আঙুল তুলল আর্মেনিয়া। অভিযোগ, আর্মেনিয়া বায়ুসেনার একটি এসইউ২৫ যুদ্ধবিমান তুরস্ক ধ্বংস করেছে। তুরস্কের এফ ১৬ যুদ্ধবিমান আকাশেই আর্মেনিয়ার যুদ্ধবিমান ধ্বংস করেছে বলে অভিযোগ। বিবৃতি দিয়ে আর্মেনিয়ার সরকার এ খবর জানিয়েছে। বলা হয়েছে, ঘটনায় যুদ্ধবিমানের পাইলট নিহত হয়েছেন।

তুরস্ক অবশ্য আর্মেনিয়ার এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেপ এরদোগানের মুখপাত্র সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, তুরস্ক এই যুদ্ধে অংশ নেয়নি। ফলে আর্মেনিয়ার যুদ্ধবিমান ধ্বংস করার প্রশ্নই ওঠে না। এটা একান্তই আর্মেনিয়ার মিথ্যা প্রোপাগান্ডা। বস্তুত আজারবাইজানও আর্মেনিয়ার দাবি নস্যাৎ করে দিয়েছে। তারাও তুরস্কের মতোই বলেছে, আর্মেনিয়া মিথ্যা প্রোপাগান্ডা করে বিশ্বের নজর কাড়তে চাইছে। তুরস্ক অবশ্য এ দিনও জানিয়েছে, জাতিসংঘের স্বীকৃতি আজারবাইজানের পক্ষে থাকলেও বিতর্কিত অঞ্চলটি বেআইনি ভাবে আর্মেনিয়া দখল করে রেখেছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের একাধিক দেশ, রাশিয়া, চীন সকলেই আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজানের সাম্প্রতিক যুদ্ধ বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে। আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা মিটিয়ে নেয়ার আবেদন করা হয়েছে। কিন্তু যুযুধান দুইপক্ষ এখনও পর্যন্ত তাতে কান দেয়নি। আর্মেনিয়া মঙ্গলবারও দাবি করেছে, আজারবাইজান দীর্ঘদিন ধরেই এই যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছিল। তারা চাইছিল যুদ্ধ হোক। আজারবাইজান গত কয়েক বছর ধরে বিপুল পরিমাণ যুদ্ধের সরঞ্জাম কিনেছে। ড্রোনের সাহায্যে সীমান্তে যুদ্ধের প্রস্তুতিও তারা আগেই নিয়েছে।

মঙ্গলবার আজারবাইজানের প্রতিরক্ষামন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সীমান্তে দাসকেশান অঞ্চলে শেলিং করেছে আর্মেনিয়ার সেনা। অন্য দিকে আর্মেনিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রক জানিয়েছে সীমান্তে ভারদেনি অঞ্চলে গুলি চালিয়েছে আজারবাইজানের সেনা। একটি বাসে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাতে একজন সাধারণ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। গত দুই দিনে সাধারণ মানুষের নিহত হওয়ার সংখ্যা লাফিয়ে বেড়েছে। এ ভাবে দুই দেশের মধ্যে যুদ্ধ চলতে থাকলে আরও মানুষের মৃত্যু হবে বলেই মনে করা হচ্ছে। সূত্র: রয়টার্স, এপি।



 

Show all comments
  • Md Hera Khan ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১১:১৭ এএম says : 0
    হায়রে মুসলিম উম্মাহ কবে যে সজাগ হবে।আল্লাহ আপনি প্রকৃতি মুসলিম উম্মতের হেফাজত করুন।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Firoz Hossain ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১১:১৯ এএম says : 0
    আজেরিয়দের জয় মানে তুরস্কের উত্তান আর দ্রুত হবে। আর সেটা ইনশাল্লাহ এখন সময়ের ব্যাপার
    Total Reply(0) Reply
  • Bablur Rahman ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১১:৩৩ এএম says : 0
    মহমান্য সুলতানের পরোক্ষ সহযোগিতায় সবশেষে আজারবাইজানই বিজয়ী হবে ইনশাআল্লাহ।
    Total Reply(0) Reply
  • Rowshan Jamil Jibon ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১১:৩৪ এএম says : 0
    সাবাস এগিয়ে যাও
    Total Reply(0) Reply
  • Xuber Ahmed ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১১:৩৪ এএম says : 0
    আর্মেনিয়া যদি বড় যুদ্ধে জড়াতে চাই, তাহলে পুরো দেশ হারাবে, তুরস্কে পুরোপুরি সাপোর্ট দিচ্ছে আজারবাইজানকে এমনকি পাকিস্তান বলছে পরমানবিক বোমা লাগলে বোমা দিয়ে আজারবাইজানকে!
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আর্মেনিয়া


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ