Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৪ কার্তিক ১৪২৭, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় করোনামুক্ত ১৫ লাখ ৭১ হাজার মানুষ

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৭:৫৭ পিএম

করোনা মহামারি চলাকালীন সময়ে ১৫ লাখ ৭১ হাজার মানুষ হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা গ্রহণ করে সুস্থ থেকেছেন। এমনকি পুলিশ হাসপাতালে পিসিআর মেশিনে পজেটিভ এমন ১০০ জনকে হোমিওপ্যাথিক চেকিৎসা দেয়া হয়েছে। যাদের মধ্যে ৯৫ জন ইতিমধ্যে সুস্থ হওয়ে উঠেছেন। বাকী ৫ জনও সুস্থতার পথে। এমন দাবি করেছেন বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক বোর্ডের নেতৃবৃন্দ।

করোনা প্রতিরোধে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসার ভূমিকা ও উন্নয়ন’ শীর্ষক এক মতবিনিময় সভায় তারা এই দাবি করেন। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর একটি হোটেলে এই সভার আয়োজন করে বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ড। সভায় সভাপত্বি এবং মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করনে বোর্ডের চেয়ারম্যান ডা. দিলীপ কুমার রায়। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বার্ডের সদস্য ডা. শেখ মো ইফতেখার উদ্দিন, ডা. আশীষ শংকর নিয়োগী, ডা. কায়েম উদ্দিন, ডা. মো আতাহার আলী, ডা. মো. নজরুল ইসলাম সুমন, ডা. মো. ইসরাফিল হোসেন মুন্সি, ডা. মো. রাশেদুল হক, হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ শিক্ষক সমিতির সভাপতি ডা. কামারুজ্জামান ভূঁঞা প্রমুখ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, করোনা ভাইরাসসহ বিভিন্ন বৈশ্বিক মহামারী প্রতিরোধ হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা ব্যবস্থাকে আরো জনপ্রিয় করে তুলতে এই বিষয়ে উচ্চতর গবেষণার জন্য জাতীয় রিসার্চ সেন্টার, উচ্চতর শিক্ষার জন্য হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় এবং আধুনিক হোমিওপ্যাথিক হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা এখন সময়ের দাবি। ভারতে হোমিও চিকিৎসার প্রসারে একটি পৃথক মন্ত্রনালয় গড়ে তেলা হয়েছে। অথচ বাংলাদেশে রোগীদের রেখে চিকিৎসার করার মতো কোন হাসপাতাল বা মেডিকেল কলেজ নেই।

বের্ডের চেয়ারম্যান দিলীপ কুমার রায় বলেন, হোমিও চিকিৎসার প্রসারে ইতিমধ্যে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে জাতীয় রিসার্চ সেন্টার এবং উচ্চশিক্ষার্থে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় ব্যাপক উন্নতি হয়েছে। সম্ভবনা থাকার পরেও বাংলাদেশে এই চিকিৎসা ব্যবস্থা অবহেলিতই থেকে গেছে। সহজলভ্যতা ও পাশ্বপ্রতিক্রিয়া না থাকায় দেশের ৩০ শতাংশ মানুষ হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় আস্থা রাখেন। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের সুস্থ করে তুলতে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা সফল হয়েছে।

এ সময় এক প্রশ্নর জবাবে নেতৃবৃন্দ বলেন, হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় কোন ধরনের স্টেরয়েড ব্যবহার করা হয় না। কোভিড নিয়ন্ত্রনে যেসব ওষুধ ব্যবহার করা হয়. সেগুলো মূলতো শরীরে ইমিউনিটি তৈরি করে, যা রোগ প্রতিরোধে কার্যকর ভূমিকা রাখে।



 

Show all comments
  • Mohammad Sirajullah, M.D. ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১১:৩০ পিএম says : 0
    SHOULDn't WE CLOSE all regular Medical colleges and get more Homeopathic Universirties sities in the country. I would like to get attention off the Health Minister on this and opinion of all the so called on of the so called INTELLIGENTIA of the country.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ