Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ০১ নভেম্বর ২০২০, ১৬ কার্তিক ১৪২৭, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

হানিফ বাংলাদেশি এখন অনন্তপুর সীমান্তে

ফুলবাড়ি (কুড়িগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ১ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০৩ এএম

সীমান্ত হত্যা বন্ধের দাবিতে প্রতীকী লাশ নিয়ে ঢাকা থেকে কুড়িগ্রামের অনন্তপুর সীমান্তের উদ্দেশে একক পদযাত্রায় বের হওয়া হানিফ বাংলাদেশি কুড়িগ্রাম থেকে ফুলবাড়িতে পৌঁছেছেন। গতকাল বুধবার কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ি এলাকায় পৌঁছান এবং এখান থেকে অনন্তপুর সীমান্ত এলাকায় অবস্থান করবেন।
হানিফ জানান, একক পদযাত্রার ২০তম দিনে বুধবার সকালে উপজেলার অনন্তপুর সীমান্তের উদ্দেশে পদযাত্রা করেছন। ২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি এই সীমান্তেই বিএসএফের গুলিতে প্রাণ হারিয়েছিল বাংলাদেশি কিশোরী ফেলানী। ফেলানীর বাবা-মার সাথে সাক্ষাৎ করবেন বলেও জানান হানিফ।
উল্লেখ্য, গত ১১ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে থেকে একক পদযাত্রা শুরু করেন হানিফ বাংলাদেশি। হানিফ বাংলাদেশির বাড়ি নোয়াখালি জেলা সদরের জাহানাবাদ গ্রামে। তার বাবার নাম আব্দুল মান্নান। পদযাত্রা সম্পর্কে হানিফ বলেন, বাংলাদেশ-ভারত প্রতিবেশী ও বন্ধু রাষ্ট্র। আমরা চাই ভারত প্রতিবেশীর সঙ্গে মানবিক আচরণ করুক। কিন্তু প্রতিনিয়ত ভারতের বিএসএফ বিভিন্ন ঠুনকো অজুহাতে নিরীহ বাংলাদেশিদের হত্যা করে চলছে। যখন যে দল রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসে তারা কোনও কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। এই সরকারের ১২ বছরের শাসনামলে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে, এমনকি কোনও কোনও ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ভূখন্ডের অভ্যন্তরে অনুপ্রবেশ করে প্রায় ৫০০ জন বাংলাদেশিকে হত্যা করেছে বিএসএফ। তিনি সীমান্তে সংঘটিত প্রত্যেকটি হত্যাকান্ডের তদন্ত ও বিচার দাবি করেন।
তিনি আরও বলেন, আমরা অত্যন্ত স্পষ্টভাবে বাংলাদেশ সরকারকে জানিয়ে দিতে চাই, অবিলম্বে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর বাংলাদেশের নাগরিকদের হত্যাকান্ড বন্ধ করতে হবে। বহুমাত্রিক কূটনৈতিক তৎপরতার মাধ্যমে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের মানুষের স্বাধীন ও মর্যাদাপূর্ণ প্রতিবেশীর সম্পর্ক নিশ্চিতের দাবি জানান তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অনন্তপুর-সীমান্ত
আরও পড়ুন