Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ০৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

উল্টোপথে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা

প্রকাশের সময় : ১২ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস ডেস্ক : লিওনেল মেসি আর দিয়েগো ম্যারাডোনার কল্যাণে বিশ্বফুটবলে আর্জেন্টিনার দর্শক-ভক্ত সংখ্যা নেহাত কম নয়। যদিও গত ২৩ বছর জাতীয় দলের শিরোপা জয়ের কোনো সুখস্মৃতি নেই। গত দুই বছরে বিশ্বকাপসহ তিন-তিনটি ফাইনাল থেকে চরম হতাশও হতে হয়েছে তাদের। হতাশার সেই রেশ যে শুধু আর্জেন্টাইনদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল তা নয়। জাতীয় দলের হয়ে মেসির একটি শিরোপা জয়ের সেই স্বপ্ন যে ছড়িয়ে গিয়েছিল বিশ্বের লাখো কোটি মেসিভক্তদের হৃদয়েও। সর্বশেষ শতবর্ষী কোপা আমেরিকার সেই ক্ষত না শুকাতেই এবার আরো একটি ক্ষত উপহার দিলো আর্জেন্টিনা ফুটবল। রিও অলিম্পিকে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিয়েছে তারা।
রিও অলিম্পিকের পঞ্চম দিনে কেটি লেডেকির তৃতীয় স্বর্ণ, সাঁতারের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ইভেন্ট ১০০ মিটার ফ্রিস্টাইল সাঁতারে ১৮ বছর বয়সী অস্ট্রেলীয় সাঁতারু কাইল চ্যালমার্চের স্বর্ণজয়, ৪৩ বছর বয়সে ফ্রিস্টাইল সাইক্লিংয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নারী সাইক্লিস্ট ক্রিস্টিয়ান আর্মস্ট্রংয়ের রেকর্ড ও ৪৪ বছর পর জিমন্যাসটিকসের অল অ্যারাউন্ড ইভেন্টে টানা দুই আসরে জাপানের কোহেই উচিমুরের সোনালি পদক জয়ের রেকর্ডও  ভোলাতে পারেনি আর্জেন্টিনার বিদায়ের হতাশা।
এমনিতেই অলিম্পিক ফুটবলে খেলে সাধারণত অনূর্ধ্ব-২৩ দল। এ কারণে অঘটনও ঘটে বেশি। অলিম্পিক ফুটবল যে চরম অনিশ্চয়তার একটা রকিং চেয়ার তা আর্জেন্টিনার ২০০৪ ও ২০০৮ সালে স্বর্ণ জয়ের আগের ইতিহাসে তাকালেই তা স্পষ্ট বোঝা যায়। সিডনি ও আটলান্টায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল নাইজেরিয়া ও ক্যামেরুনের মতো দল। এবার আর্জেন্টিনার সাথে যেমন গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিয়েছে লন্ডন অলিম্পিকের স্বর্ণজয়ী দল মেক্সিকোও। কিন্তু তাই বলে ফিফা র‌্যাংকিংয়ে যে দলের অবস্থান সবার ওপরে সেই আর্জেন্টিনাকে বিদায় করে দেবে তালিকার ৮৫ নম্বরে থাকা হন্ডুরাসের মতো দল এটা অভাবনীয়ই!
২০০৮ সালে আর্জেন্টিনার মুকুটে স্বর্ণ উঠেছিল ফুটবল জাদুকর লিওনেল মেসির হাত ধরেই। তবে অলিম্পিক ফুটবলের এই অর্জন জাতীয় দলের সাথে তুল্য নয়। এ কারণে এখানে বিশ্বের নামকরা সব দলের আধিপত্যও নেই। সর্বোচ্চ ৩টি করে স্বর্ণ জয়ের রেকর্ড হাঙ্গেরি ও গ্রেট ব্রিটেনের। তাদের কেউই নেই এবারের আসরে। এখানে প্রতাপ দেখাতে পারে না স্পেন, ইতালি কিংবা জার্মানির মতো দলও। তবে এবারের আসরে কিন্তু সবচেয়ে উজ্জ্বল নৈপুণ্য দেখিয়ে চলেছে জার্মানরা। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে ফিজিকে ১০-০ গোলের বিশাল ব্যবধানে ধরাশায়ী করে তারা পা রেখেছে পরের পর্বে।  
এছাড়া ব্রাজিলের কথাই ধরুন। ৫ বারের রেকর্ড বিশ্বসেরা দলটি অলিম্পিকে স্বর্ণ জেতেনি একবারও। গেলবার খুব কাছে গিয়েও শেষ পর্যন্ত ফাইনালে মেক্সিকোর কাছে হারতে হয়েছিল। এবার ঘরের মাঠে সেই অভাব ঘোচানোর প্রতিজ্ঞা নিয়ে অভিযানে  নেমেছে সেলেসাওরা। প্রথম দুই ম্যাচে গোলশূন্য ড্রয়ের হতাশা কাটিয়ে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে ডেনমার্ককে ৪-০ গোলে হারিয়ে নকআউট পর্বও নিশ্চিত করেছে নেইমারের দল। কালই জানা যাবে নেইমাররা সেই অভিযান অব্যাহত রাখতে পেরেছে কি না।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।