Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১১ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

গ্রুপ পর্বেই মুখোমুখি মেসি-রোনালদো

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩ অক্টোবর, ২০২০, ১২:১৭ এএম

কে হবেন ইউরোপের সেরা ফুটবলার? এই প্রসঙ্গে এ বছর আগের মতো আর উত্তেজনা ছিল না। এক সময় এ পুরস্কার ব্যক্তিগত সম্পত্তি বানিয়ে ফেলেছিলেন লিওনেল মেসি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। গত বছর সে ধারায় বাধ দিয়েছেন ভার্জিল ফন ডাইক। তবু মেসি-রোনালদো সেরা তিনে থাকায় এ নিয়ে উত্তেজনা ছিল। এবার সেরা তিনেই ছিলেন না মেসি-রোনালদো। এ নিয়ে তাই ভক্তদের মধ্যে বিজয়ী কে, সেটা জানার আগ্রহ থাকলেও বাড়তি উত্তেজনা ছিল না। সে তুলনায় জেনেভার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বে কে কাকে পাচ্ছে তা নিয়েই বেশি আগ্রহ ছিল।
এবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের দ্বিতীয় পটে ছিল বার্সেলোনা, ম্যানচেস্টার সিটি, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, বরুসিয়া ডর্টমুন্ড, চেলসি, অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ ও আয়াক্সের মতো দল। তৃতীয় পটে ছিল লাইপজিগ, ইন্টার মিলান, লাৎসিও ও আতালান্তা। শেষ পটে থাকা রেনে, মার্শেই, ব্রুগা কিংবা মনশেনগ্লাডবাখও যেকোনো পরাশক্তিকে বিপদে ফেলার শক্তি রাখে। ফলে বেশ কয়েকটি ‘গ্রুপ অব ডেথ’ সৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা ভালোভাবেই ছিল।
কঠিন গ্রুপটা নেইমারদের কপালেই পড়েছে। গ্রুপ এইচে তাঁদের সঙ্গে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সঙ্গে লাইপজিগও যোগ হয়েছে। গতবার সেমিফাইনালে এই লাইপজিগকেই হারিয়েছিল পিএসজি। সহজতম গ্রুপ পেয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। রিয়াল মাদ্রিদ ও বরুসিয়া ডর্টমুন্ডও তুলনাম‚লক সহজ গ্রুপ পেয়েছে। তবে সবচেয়ে আগ্রহ জন্মিয়েছে গ্রুপ জি। কারণ এই গ্রুপেই পড়েছে জুভেন্টাস ও বার্সেলোনা। দুই দল গ্রুপেই মুখোমুখি হওয়ায় ২০১১ সালের পর আবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে মেসি-রোনালদোকে এক মাঠে দেখা যাবে। টানা নয়বারের সিরি ‘আ’ চ্যাম্পিয়ন ও গতবারের লা লিগা রানার্সআপের সঙ্গে আছে ইউক্রেনের ডায়নামো কিয়েভ ও হাঙ্গেরির ফেরেন্সভারোস।
বার্সেলোনার প্রাণ ভোমরা মেসি, তেমনি জুভেন্টাসের রোনালদো। গ্রুপ পর্বেই সময়ে সেরা দুই খেলোয়াড়ের লড়াই দেখতে এখন থেকেই মুখিয়ে জুভেন্টাসের সহ-সভাপতি পাভেল নেদভেদ। ক্লাবের ওয়েবসাইটে মেসি-রোনালদোর লড়াই নিয়ে নিজের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন নেদভেদ, ‘বার্সেলোনার সঙ্গে এটি দারুণ এবং আকর্ষণীয় একটি লড়াই হবে। আমার মতে এখনও বিশ্বের সেরা দুই খেলোয়াড় রোনালদো ও মেসিকে পরস্পরের মুখোমুখি হওয়ার সুযোগ করে দিচ্ছে।’
আর প্রতিযোগিতাটির সফলতম দল রিয়াল মাদ্রিদ গ্রুপ সঙ্গী হিসেবে পেয়েছে ইন্টার মিলানকে। ‘বি’ গ্রুপে রেকর্ড ১৩ বারের চ্যাম্পিয়ন রিয়াল ও তিনবারের ইউরোপ সেরা ইন্টারের সঙ্গে আছে ইউক্রেনের শাখতার দোনেৎস্ক এবং জার্মানির বরুশিয়া মনশেনগ্লাডবাখ। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখের সঙ্গে ‘এ’ গ্রপে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ ছাড়াও আছে অস্ট্রিয়ার সালসবুর্ক ও রাশিয়ার লোকোমোতিভ মস্কো।
তুলনাম‚লক কঠিন গ্রুপে পড়েছে গতবারের ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল ও লিগ ওয়ানের শিরোপাধারী পিএসজি। গ্রুপ ‘ডি’তে ২০১৮-১৯ আসরের চ্যাম্পিয়ন লিভারপুলের সঙ্গে আছে নেদারল্যান্ডসের আয়াক্স, গতবারের কোয়ার্টার-ফাইনালিস্ট আতালান্তা ও ডেনমার্কের ক্লাব মিতউইলান। আর দারুণ লড়াইয়ের আভাস দেয়া ‘এইচ’ গ্রুপে গতবারের রানার্সআপ পিএসজির সঙ্গে আছে তিনবারের ইউরোপ চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, গত আসরে চমক জাগিয়ে সেমি-ফাইনালে ওঠা জার্মান ক্লাব লাইপজিগ ও তুরস্কের ইস্তানবুল বাসাকসেহির।
তবে ‘সি’ গ্রুপে তুলনামূলক সহজ প্রতিপক্ষ পেয়েছে গতবার কোয়ার্টার-ফাইনালে হেরে যাওয়া ম্যানচেস্টার সিটি। তাদের সঙ্গে আছে পর্তুগালের পোর্তো, গ্রিসের অলিম্পিয়াকোস ও ফ্রান্সের মার্সেই। এছাড়া ‘ই’ গ্রুপে আছে বর্তমান ইউরোপা লিগ চ্যাম্পিয়ন সেভিয়া, ২০১১-১২ আসরের চ্যাম্পিয়ন চেলসি, রাশিয়ার ক্রাসনোদার ও ফ্রান্সের রেন। এবং ‘এফ’ গ্রুপে আছে রাশিয়ার জেনিথ সেন্ট পিটার্সবার্গ, জার্মানির বরুশিয়া ডর্টমুন্ড, ইতালির লাৎসিও ও বেলজিয়ামের ক্লাব ব্রুজ। প্রতি গ্রুপ থেকে দুটি করে দল উঠবে নকআউট পর্বে। সেই হিসেবে জমজমাট লড়াইয়ের গ্রুপ পর্বের প্রথম রাউন্ডের ম্যাচ মাঠে গড়াবে আগামী ২০ ও ২১ অক্টোবর।
কোন গ্রুপে কারা
গ্রুপ এ : বায়ার্ন, অ্যাটলেটিকো, সালজবুর্গ, লোকোমোতিভ মস্কো
গ্রুপ বি : রিয়াল মাদ্রিদ, শাখতার, ইন্টার মিলান, মনশেনগ্লাডবাখ
গ্রুপ সি : পোর্তো, ম্যান সিটি, অলিম্পিয়াকোস, মার্শেই
গ্রুপ ডি : লিভারপুল, আয়াক্স, আতালান্তা, মিতিউলান
গ্রুপ ই : সেভিয়া, চেলসি, ক্রাসনোদার, রেনে
গ্রুপ এফ : জেনিত, ডর্টমুন্ড, লাৎসিও, ব্রুজ
গ্রুপ জি : জুভেন্টাস, বার্সেলোনা, ডায়নামো কিয়েভ, ফেরেনৎসভারোস
গ্রুপ এইচ : পিএসজি, ম্যান ইউনাইটেড, লাইপজিগ, বাশেকশেহির



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন