Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

ট্রাম্প দায়িত্ব পালনে অক্ষম হলে নির্বাচনে কী ঘটবে?

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩ অক্টোবর, ২০২০, ৯:৪৬ এএম | আপডেট : ৯:৫১ এএম, ৩ অক্টোবর, ২০২০

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আর মাত্র ৩২ দিন বাকি। এর আগেই যে মারাত্মক ঘটনা ঘটে গেল তার গুরুত্ব বুঝিয়ে বলার অপেক্ষা রাখে না। ডোনাল্ড ট্রাম্প মাত্র এক সপ্তাহ আগে আমেরিকানদের বলেছিলেন, কোভিড-১৯ নিয়ে বেশি চিন্তা করবেন না। কারণ, তাঁর মতে, 'করোনাভাইরাসে আসলে প্রায় কারোই কিছু হয় না, কেবল বয়স্ক এবং হৃদরোগীদের ছাড়া।'
একথা বলার এক সপ্তাহের মধ্যেই ফার্স্ট লেডি মেলানিয়াসহ মিস্টার ট্রাম্প প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ইতিমধ্যেই ট্রাম্প দম্পত্তি কোয়ারেনটিনে চলে গেছেন। ইতিমধ্যে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংক্রমণ শনাক্ত হওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ট্রাম্পকে ওয়াল্টার রিড সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
নির্বাচনী সমাবেশে এখন তার যাওয়ার কোন সুযোগই আর নেই। দুই সপ্তাহের মধ্যে দুই প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর যে দ্বিতীয় টেলিভিশন বিতর্ক হওয়ার কথা, সেটি আদৌ হবে কি না, তা প্রশ্নবিদ্ধ।
প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এবং মেলানিয়া ট্রাম্প কোভিড-১৯ পরীক্ষায় পজিটিভ বলে ধরা পড়ার পর এখন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের ব্যাপারেও প্রশ্ন উঠেছে। কারণ তাকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ সান্নিধ্যে দেখা গেছে গত কদিন।
যদি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন, তাঁর নির্বাচনী প্রচারণার কী হবে? তার অসুস্থ হয়ে পড়ার ঘটনার কী প্রভাব পড়বে নির্বাচনে? যদি তিনি দায়িত্ব পালনে অক্ষম হয়ে পড়েন, তখন কী ঘটবে? যদি ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সও কোভিড-১৯ পজিটিভ বলে ধরা পড়েন, তখন কী? নির্বাচনের মাত্র এক মাস আগে এসব ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্র কি একটি সাংবিধানিক সংকটের মুখে?
বিশ্ব নেতারা এরই মধ্যে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সুস্থতা কামনা করে বার্তা পাঠিয়েছেন। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, ইসরায়েলী প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এবং ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্পের আশু আরোগ্য কামনা করে বার্তা পাঠিয়েছেন।
এই খবরের সাথে সাথেই বিশ্বের শেয়ারবাজারে বড় প্রতিক্রিয়া হয়েছে। কারণ এটি শুধু বর্তমান মার্কিন প্রশাসনের ব্যাপারেই নয়, যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন নির্বাচন নিয়েও অনিশ্চয়তা তৈরি করেছে।
জাপানের নিকেই শেয়ার সূচক শূণ্য দশমিক সাত শতাংশ পড়ে গেছে। ইউরোপে লন্ডন, ফ্রাংকফুর্ট এবং প্যারিসের শেয়ার বাজারের সব প্রধান সূচকে দর পড়তে শুরু করে লেন-দেন শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে। যুক্তরাষ্ট্রের ডাউ জোনস, নাসডাক এবং এসএনপি, তিনটি সূচকেই একই প্রবণতা দেখা যাবে বলে আশংকা করছেন বিশ্লেষকরা।
বিবিসির উত্তর আমেরিকা সংবাদদাতা জন সোপেল বলছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন, এটি একই সঙ্গে এক অত্যাশ্চর্য ঘটনা, কিন্তু আবার অবাক হওয়ার মতো কোন ব্যাপারও নয়।
তার মতে, এটি এ কারণেই অত্যাশ্চর্য এক খবর, প্রেসিডেন্টকে ঘিরে নেয়া সব ব্যবস্থার পরও যে তিনি আক্রান্ত হলেন। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টকে ঘিরে নিরাপত্তার তুলনীয় আর কিছু নেই। যারা তাকে ঘিরে রাখেন, তাদের সারাক্ষণ করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা হয়।
জন সোপেল বলছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন, তাতে আবার অবাক হওয়ারও কিছু নেই। কারণ করোনাভাইরাসের নিয়মকানুনের ব্যাপারে হোয়াইট হাউসের কর্মীদের মধ্যে, বিশেষ করে ওয়েস্ট উইং এ তিনি বেশ অনীহা দেখেছেন। জন সোপেল বলেন, সিক্রেট সার্ভিসের লোকজন ছাড়া, হোয়াইট হাউসের ওয়েস্ট উইং এ খুব কম লোকই মাস্ক পরে। সূত্র : বিবিসি



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ট্রাম্প দায়িত্ব পালনে অক্ষম হলে নির্বাচনে কী ঘটবে?
আরও পড়ুন