Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

স্নায়ুচাপ জয় করা সেঞ্চুরি মুমিনুলের

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৪ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০৯ এএম | আপডেট : ১২:২৩ এএম, ৪ অক্টোবর, ২০২০

শিরোনাম দেখে মনে হতে পারে বিশাল কিছুই করেছেন মুমিনুল হক। একে তো প্রস্তুতি ম্যাচ, তার উপর নিজেদের মাঝেই! কিন্তু করোনাভাইরাস বিরতি পেরিয়ে দীর্ঘদিন পর কোন ম্যাচ খেলায় কিছুটা স্নায়ুচাপ থাকাটাই তো স্বাভাবিক। সেই স্নায়ুচাপ পেরিয়েই দারুণ এক সেঞ্চুরি করেছেন তিনি। গতকাল মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচের শেষ দিনে আলো ছড়ান বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক।

রায়ান কুক একাদশের হয়ে ১৪ চার, ১ ছক্কায় ২২০ বলে করেন ১১৭ রান। চেনা মাঠ, প্রতিপক্ষে চেনা বোলার। সব অনুকূলে থাকলেও লম্বা সময়ের জড়তা ভয় ধরাচ্ছিল তাকে, ‘খেলা শুরুর আগে একটু দুশ্চিন্তায় ছিলাম। মানুষ হিসেবে একটু চিন্তা থাকাটাই স্বাভাবিক। গত ছয়-সাত মাস আমরা খেলি নাই, কেবল অনুশীলন করে যাচ্ছিলাম। কাজেই স্নায়ুচাপে ছিলাম।’
ব্যাটিংয়ে নেমেই অবশ্য সেই চাপ উড়িয়ে দেন চেনা দাপটে। তবে টেস্ট অধিনায়ক বেশি তৃপ্ত সব মিলিয়ে ভালো প্রস্তুতি হওয়ায়। আগের দিন দারুণ বল করেন পেসার তাসকিন আহমেদ। নেন ৪৫ রানে ৩ উইকেট। ৩৪ রানে ২ উইকেট নিয়ে এদিন মুন্সিয়ানা দেখিয়েছেন আরেক পেসার ইবাদত হোসেন। বাকি পেসাররাও কমবেশি রেখেছেন অবদান। আগের দিন ফিফটি পেয়েছিলেন ওপেনার সাইফ হাসান ও সৌম্য সরকার। এদিন মুমিনুলের পাশাপাশি ৬৬ রান এসেছে মোহাম্মদ মিঠুনের ব্যাটে। দুই দিনের ম্যাচটা তাই উপভোগ্য মুমিনুলের কাছে, ‘আমাদের খুব ভালো অনুশীলন হয়েছে। বিশেষ করে পেসারদের, এবং ব্যাটসম্যানদেরও যারা রান পেয়েছে। দুই দিনের ম্যাচ আমি খুব উপভোগ করেছি। পেস বোলাররা খুব ভাল করেছে।’
শ্রীলঙ্কা সফর বাতিল হয়ে যাওয়ায় বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরা অনেকটাই পিছিয়ে গেছে। টেস্টে ফেরা তো আরও অনিশ্চিত। তা মাথায় রেখেই নিজেদের খেলাটা চালু রাখার তাগিদ বোধ করছিলেন মুমিনুল, ‘যখন টেস্ট ম্যাচ হবে তখন আমাদের নতুন করে শুরু করতে হবে। কারণ ছয়-সাত মাস পর কখন হয় জানি না। সেজন্য টেস্ট ম্যাচে যেমন পরিবেশ, পরিস্থিতি থাকে সেরকম ভেবে খেলার চেষ্টা করেছি। রানের জন্য না ভেবে সারাদিন উইকেটে থাকা। অনেক দিন খেলার মধ্যে না থাকায় পরিবেশের সঙ্গে মানানোর চেষ্টা করেছি।’
একদিন বিরতি দিয়ে আগামীকাল থেকে একই ভেন্যুতে আরেকটি দুই দিনের ম্যাচ খেলবেন জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। ক্যাম্পের স‚চি অনুযায়ী এরপর হওয়ার কথা ছিল তিন দিনের ম্যাচ। সেটির বদলেই এখন হবে ৫০ ওভারের সংস্করণের সিরিজ। এই ম্যাচ শেষে গতকালই বিসিবিতে ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান বসেছিলেন এইচপির প্রধান নাঈমুর রহমান, দুই নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন ও হাবিবুল বাশার এবং জাতীয় দলের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর সঙ্গে। ওয়ানডে সিরিজের প্রাথমিক একটি ছবি দাঁড় করানো হয়েছে এই সভায়।
জৈব-সুরক্ষা বলয়ের চলতি স্কিল ট্রেনিং ক্যাম্পে থাকা ২৭ ক্রিকেটারের সঙ্গে সম্ভাব্য হাই পারফরম্যান্স (এইচপি) দলের ক্রিকেটারদের যোগ করে তিন দলে ভাগ করা হবে ক্রিকেটারদের। এইচপির ক্রিকেটাররাও ঢুকে যাবেন জৈব-সুরক্ষা বলয়ে। প্রতি দল পরস্পরের মুখোমুখি হবে দুইবার করে। সিরিজটি শুরুর সম্ভাব্য সময় আগমী ১১ অক্টোবর।

সংক্ষিপ্ত স্কোর
ওটিস গিবসন একাদশ : ৬৩.৪ ওভারে ২৩০/১০ (সাইফ ৬৪, ইমরুল ৭, শান্ত ৪২, মাহমুদউল্লাহ ৩৪, লিটন ৭, সৌম্য ৫১, মোসাদ্দেক ১৩, নাঈম ২, মুস্তাফিজ ০, এবাদত ৪, হাসান ০*; তাসকিন ৩/৪৫, খালেদ ১/৫৯, আল আমিন ০/১৯, তাইজুল ৩/৭০, সাইফ উদ্দিন ১/৩০, মিঠুন ২/৫।
রায়ান কুক একাদশ : ৭৬ ওভারে ২৪৮/৫ (সাদমান ১৩, রাব্বি ২, মুমিনুল ১১৭*, সোহান ২৯, সাইফউদ্দিন ১০*, তাইজুল ৬*; এবাদত ২/৩৪, হাসান ১/২১, রিয়াদ ১/২১, নাঈম ১/৭৬।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সেঞ্চুরি-মুমিনুলের
আরও পড়ুন