Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

দুই নারীর মৃত্যুদন্ড

পর্যবেক্ষণে গৃহকর্মীদের বিষয়ে সতর্কবার্তা ইডেনের সাবেক অধ্যক্ষ হত্যা মামলার রায়

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৪ অক্টোবর, ২০২০, ২:৩৪ পিএম | আপডেট : ১১:১৯ পিএম, ৪ অক্টোবর, ২০২০

ইডেন মহিলা কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাহফুজা চৌধুরী পারভীন হত্যা মামলায় দুই গৃহকর্মীর মৃত্যুদন্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল রোববার ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান এ রায় দেন। মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, গৃহকর্মী রিতা আক্তার ওরফে স্বপ্না এবং রুমা ওরফে রেশমা। দুই আসামির উপস্থিতিতে দুপুর ১২টা ৪০ মিনিটে এ রায় ঘোষণা করা হয়। রায়ের পরপরই স্বপ্না এবং রেশমাকে কারাগারে পাঠিয়ে দেয়া হয়। রায় শুনে কান্নায় ভেঙে পড়েন দুই আসামি।

রায়ে আদালত গৃহকর্মীদের বিষয়ে বেশ কিছু পর্যবেক্ষণ দেন। তাতে বলা হয়, সম্প্রতি রাজধানীতে গৃহকর্মী সেজে প্রতারণার ঘটনা প্রায়ই ঘটেছে। মূলত অভিজাত এলাকা টার্গেট করে এসব প্রতারকচক্র তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করেন। তাই গৃহকর্মী রাখার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে বলে মন্তব্য করেন আদালত। এছাড়া রায়ে গৃহকর্মীদের বিষয়ে কিছু সতর্কবার্তাও দেয়া হয়েছে।

পর্যবেক্ষণে আদালত আরও বলেন, সম্প্রতি রাজধানীতে গৃহকর্মী সেজে প্রতারণার ঘটনা প্রায়ই ঘটেছে। তারা বিভিন্ন বাসা-মেসে কাজ করার নামে সুযোগ বুঝে কৌশলে টাকা-পয়সা, মোবাইল, স্বর্ণালংকার ইত্যাদি চুরি এবং পরিবারের সদস্যদের অজ্ঞান ও হত্যা করে মালামাল নিয়ে যায়।

গৃহকর্মী রিতা আক্তার ওরফে স্বপ্না ও রুমা ওরফে রেশমার মতো আর কেউ যেন ভুল পথে অগ্রসর হতে না পারে সেজন্য বাসা বাড়িতে গৃহকর্মী রাখার ক্ষেত্রে গৃহকর্তা ও গৃহকর্ত্রীকে সতর্ক থাকতে হবে। সতর্কবার্তাগুলোর মধ্যে রয়েছে, (১) গৃহকর্মী নিয়োগের তারিখ থেকে ৯০ দিন সতর্ক থাকতে হবে, যাতে করে কোনও চুরি-ডাকাতি না করতে পারে। (২) গৃহকর্মী রাখার ক্ষেত্রে তাদের জাতির পরিচয়পত্র, ছবি ও জীবনবৃত্তান্ত রাখতে হবে এবং নিকটস্থ থানায় জমা দিতে হবে। (৩) বাসার মূল গেটে সিসি ক্যামেরা না থাকলে অবশ্যই সিসি ক্যামেরা লাগাতে হবে। (৪) কোনও গৃহকর্মী যদি অন্য কোনও গৃহকর্মীদের কাজ দেয় তাহলে উভয়ের জীবনবৃত্তান্ত, ছবি সংশ্লিষ্ট থানায় জমা দিতে হবে। (৫) গৃহকর্মী দেয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর অবশ্যই লাইসেন্স থাকতে হবে।

এ সময় আদালত আরও বলেন, অধ্যক্ষ মাহফুজা চৌধুরী পারভীন ছিলেন একজন নারী শিক্ষার অগ্রদূত। ইডেন মহিলা কলেজের আদর্শবান ও ভূতপূর্ব অধ্যক্ষ এবং একজন আদর্শবান দেশপ্রেমিক বীর মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী। তিনি দলমত নির্বিশেষে সকলের শ্রদ্ধাভাজন ছিলেন।

রায়ের পর্যবেক্ষণে আদালত বলেন, আসামিরা অধ্যক্ষ মাহফুজা চৌধুরী পারভীনকে হত্যা করে তার স্বামী, কন্যা ও পুত্রকে স্নেহ-মমতা থেকে চিরতরে বঞ্চিত করে স্থবির করে দেয় তাদের সাজানো সংসার। তার অবসরকালীন জীবনে সমাজ তথা সংসারকে অনেক কিছু দেয়ার সুযোগ ছিল। এ হত্যার ঘটনায় আসামিরা কোনওভাবে আদালতের নিকট থেকে অনুকম্পা পেতে পারে না।

প্রসঙ্গত: ২০১৯ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডের নিজ বাসায় খুন হন মাহফুজা চৌধুরী। এখানকার সুকন্যা টাওয়ারের একটি ফ্ল্যাটে থাকতেন ইডেন কলেজের সাবেক এই অধ্যক্ষ। ওই ঘটনায় নিহতের স্বামী ইসমাত কাদির গামা নিউমার্কেট থানায় বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় দুই গৃহকর্মী স্বপ্না (৩৬) ও রেশমাসহ (৩০) তিনজনকে আসামি করা হয়। পরবর্তীতে স্বপ্না ও রেশমা এবং দুই গৃহকর্মীর জোগানদাতা রুনু বেগম ওরফে রাকিবের মাকে গ্রেফতারের পর রিমান্ডে নেয় পুলিশ। পরে স্বপ্না এবং রেশমা হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেন। তারা দু’জনই এখন কারাগারে।



 

Show all comments
  • Zillur Rahaman ৫ অক্টোবর, ২০২০, ১২:৫০ এএম says : 0
    উপযুক্ত শাস্তি এবং এটা উচ্চ আদালতেও যেন বহাল থাকে।
    Total Reply(0) Reply
  • Sanawar Ali ৫ অক্টোবর, ২০২০, ১২:৫০ এএম says : 0
    In this case the women are most likely to be hanged for the first time because they are from a weaker section of our society.There will not be much resistance from the ruling class.
    Total Reply(0) Reply
  • Abdul Motin Jakir ৫ অক্টোবর, ২০২০, ১২:৫০ এএম says : 0
    নারীরাও আজকাল অধীক হারে অপরাধ নৃশংসতায় জড়িয়ে যাচ্ছেন। সম্প্রতিক সময়ে হত্যার সাথে নারীর সরাসরি সম্পৃক্ততার দুইটি ঘটনা ঘটলো। যদিও এ পর্যন্ত বাংলাদেশের ইতিহাসে কোন নারীকে ফাঁসিতে ঝুলতে হয় নি। এবার বুঝি আর রক্ষা হলোনা। এসবকি --- ভারাকরা উচ্ছিষ্ট সাংস্কৃতির প্রভাব?
    Total Reply(0) Reply
  • SA MD Ibrahim ৫ অক্টোবর, ২০২০, ১২:৫২ এএম says : 0
    আলহামদুলিল্লাহ
    Total Reply(0) Reply
  • WE V Nayeem ৫ অক্টোবর, ২০২০, ১২:৫৫ এএম says : 0
    মিন্নীর সাথে এই দুইজন কেও একত্রে ফাসি তে ঝুলিয়ে দেয়া হোক।
    Total Reply(0) Reply
  • Imran Bin Forhad ৫ অক্টোবর, ২০২০, ১২:৫৬ এএম says : 0
    এরা অমানুষ। দ্রুত ফাঁসি দিতে হবে।কনডেম সেলে রেখে রাষ্ট্রের অর্থ অপচয়।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Salauddin ৫ অক্টোবর, ২০২০, ১২:৫৬ এএম says : 0
    শুধু রায় দিতে থাকলে হবেনা, জাতি এই রায় কার্যকর দেখতে চায়
    Total Reply(0) Reply
  • Tahsin Tania ৫ অক্টোবর, ২০২০, ১২:৫৭ এএম says : 0
    এখন কি এরা নারী বলে এদেরও ফাঁসি হবে না? এমন জগন‍্য খুনিদের অবশ‍্যই ফাঁসি দিতে হবে।সে নারী পুরুষ যেই হোক।
    Total Reply(0) Reply
  • Orin Ahmed ৫ অক্টোবর, ২০২০, ১২:৫৭ এএম says : 0
    অপরাধিদের এইভাবেই শাস্তি দিলে তাদের অন্তরে ভয় জাগবে
    Total Reply(0) Reply
  • Myusuf ৫ অক্টোবর, ২০২০, ৭:২৪ এএম says : 0
    They must be hanged and also Minni of Barguna
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অধ্যক্ষ মাহফুজা চৌধুরী পারভীন

৪ অক্টোবর, ২০২০
আরও পড়ুন