Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১১ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

মঠবাড়িয়ায় ২৪ ঘন্টায় ২ গৃহবধূর শ্লিলতাহানি ও নির্যাতনের অভিযোগে পৃথক ২ টি মামলা

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৫ অক্টোবর, ২০২০, ৫:৫৭ পিএম

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় গত ২৪ ঘন্টায় তুচ্ছ ঘটনায় ২ গৃহবধূর শ্লীলতাহানী ও শারিরিক নির্য়াতনের অভিযোগে থানায় ২ টি পৃথক মামলা হয়েছে।
উপর পূর্ব পাতাকাটা গ্রামের গৃহবধূ মোসা. ডলি বেগম (৪৫) পারিবারিক তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে তাকে বিবস্ত্র করে শ্লিলতাহানি ও শারিরিক নির্যাতনের অভিযোগে সোমবার ৩ জন নামীয় এবং অজ্ঞাত ৩ জনের বিরুদ্ধে মঠবাড়িয়া থানায় একটি মামলা করেছেন। আহত ডলি বেগম ওই গ্রামের মো. নাসির উদ্দিন হাওলাদারের স্ত্রী। তাকে আহতবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেস্কে ভর্তি করা হয়েছে। আসামীরা হলো উপজেলার পূর্ব পাতাকাটা গ্রামের বাপ্পি (২৬), তার তার পিতা মজিবর ওরফে চাঁন মিয়া হাওলাদার (৫৮) ও তার মাতা সেতারা বেগম (৪৫)।
মামলা ও আহত সূত্রে জানাযায়, প্রতিবেশী চাঁন মিয়ার সাথে ডলি বেগমের দীর্ঘ দিনের পারিবারিক বিরোধ চলে আসছিলো। সোমবার বিকেলে ডলি বেগমের একটি গরু চাঁন মিয়ার জমির ধানের চারা খেয়ে নস্ট করে। এ ঘটনা ও পূর্ব বিরোধের জেরে বিকেল ৫ টার দিকে চাঁন মিয়ার নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ডলি বেগমের বাড়ি প্রবেশের রাস্তায় ডলি বেগমের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। তাকে বিবস্ত্র ও নির্যাতন করে সাথে থাকা স্বর্ণালংকার ছিনিয়ে নিয়ে গলা টিপে হত্যার চেষ্টা চালায়। তার আর্তচিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান।
এদিকে পূর্ব শত্রতার জেরে গভীর রাতে বসত ঘরে হমলা, লুটপাট ৪ সন্তানের জননী গৃহবধুকে পিটিয়ে জখম ও শ্লীলতাহানীর অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। রোববার রাতে আহত ওই গৃহবধু রানী বেগম বাদী হয়ে মিলন শিকদারের ছেলে শুভ শিকদার (২৫) কে প্রধান আসামী করে ৪ জন নামিয় ও অজ্ঞাত ৫ জনকে আসামী করে মঠবাড়িয়া থানায় মামলা করেন। আহত ওই গৃহবধু উপজেলার দূর্গাপুর গ্রামের কবির শিকদারের স্ত্রী সে ৪ সন্তানের জননী।

মামলা ও আহত সূত্রে জানা যায়, আহত গৃহবধু রানী বেগমের স্বামী কবির শিকদারের সাথে প্রতিবেশী শুভ শিকদারসহ অন্য আসামীদের সাথে জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। তারই ধারাবাহিকতায় গত ২ অক্টোবর দিবাগত গভীর রাতে আসামীরা দেশিয় অস্ত্র ও লোহার রড নিয়ে বসত ঘরে প্রবেশ করে ভাংচুর ও লুটপাট করে এতে বাধা দিলে আসামীরা আমার (ওই গৃহবধু) এর শাড়ী ব্লাউজ টানিয়া ছিড়িয়া শ্লীলতাহানী করে। এ সময় ডাক চিৎকার করিলে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে ওই গৃহবধুর মাথায় মারাত্মক জখম করে। এ সময় ওই গৃহবধুর ছেলের স্ত্রী ও মেয়েদের গলায় থাকা শ^র্ণলংকার ছিনিয়ে নেয় এবং মারধর করে প্রাননাশের হুমকি দিয়ে চলে যায়। পরে স্থানীয়রা এসে আমাদে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে ছেলের স্ত্রী ও মেয়েদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেরে দেয় এবং ওউ গৃহবধুর মাথার জখম গুরুতর হওয়ায় তাকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।
মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আ,জ,মো মাসুদুজ্জামান মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মামলা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ