Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

হাথরস-ইস্যুতে ভারতের সমালোচনায় জাতিসংঘ

প্রতিবাদ দিল্লির

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০৩ এএম

মোদি সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই ভারতে সহিংসতা ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা বেড়েই চলেছে। কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘন, দিল্লির সহিসংতাসহ বিভিন্ন ইস্যুতে আর্ন্তজাতিক ক্ষেত্রে মোদি সরকার সমালোচিত হয়েছে। এবার হাথরসের সাম্প্রতিক গণধর্ষণ ও খুনের ঘটনায় ভারতে মহিলাদের নিরাপত্তা নিয়ে নতুন করে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে আন্তর্জাতিক মহলে।
গত রোববার হাথরস-কান্ডের তীব্র নিন্দা করেন ভারতে জাতিসংঘের কো-অর্ডিনেটর রিনাতা লোক-দেসালিয়েন। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘অন্যান্য ক্ষেত্রে ভারত যতই উন্নতি করুক না কেন, সমাজের একটি অংশের মহিলারা আজও সাধারণ সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত। যে কারণে অনেক বেশি দুর্বল ওরা। যৌন নির্যাতন ও লিঙ্গ বৈষম্যমূলক হিংসার শিকার।’

পরিস্থিতি সামাল দিতে মাঠে নামতে হয় ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে। তার এই মন্তব্যেই আপত্তি জানায় দিল্লি। ভারতে জাতিসংঘের কো-অর্ডিনেটর বিষয়টি নিয়ে মুখ খোলায় তাকে জানিয়ে দেয়া হয়, এ ব্যাপারে কোনওরকম অনধিকার চর্চা কাম্য নয়। সোমবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব বলেন, ‘মহিলাদের বিরুদ্ধে সাম্প্রতিক হিংসার ঘটনায় অযাচিত মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘের কো-অর্ডিনেটর। তার জানা উচিত যে, এই বিষয়গুলি অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে দেখছে কেন্দ্র। এখনও তদন্ত চলছে। তাই বাইরের কোনও সংস্থা এ নিয়ে মন্তব্য না করলেই ভাল। সংবিধানে সকলের সমানাধিকারের কথা বলা রয়েছে। গণতান্ত্রিক দেশ হিসেবে সমাজের সব স্তরের মানুষকে ন্যায় বিচার দেওয়ার নজির রয়েছে আমাদের।’

প্রসঙ্গত, উত্তরপ্রদেশের হাথরসে ১৯ বছরের এক দলিত তরুণীকে চার জন মিলে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। তার সঙ্গে ঘটে যাওয়া নৃশংসতায় স্তম্ভিত গোটা দেশ। অভিযোগ, উঠছে, পুলিশ এবং প্রশাসন মিলে ধর্ষণের তত্ত¡ মুছে ফেলতে চাইছে। সেই নিয়ে গত কয়েক দিন ধরে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বিক্ষোভে শামিল হয়েছেন সাধারণ মানুষ ও বিরোধী শিবিরের রাজনীতিকরা। এর আগেও কাশ্মীর ইস্যুতে আর্ন্তজাতিক সমালোচনাকে ‘অভ্যন্তরীণ বিষয়’ হিসাবে দেখানোর চেষ্টা করেছে ভারত। সম্প্রতি, কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে ভারতে কর্মকান্ড বন্ধ ঘোষণা করেছে আর্ন্তজাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। এতে মোদি সরকারের ভাবমূর্তি আরও ক্ষুন্ন হয়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। সূত্র : টাইমস নাউ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত

২৯ নভেম্বর, ২০২০
২৮ নভেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন