Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১১ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত খন্ডিত করার প্রতিবাদে কক্সবাজারে মানববন্ধন

কক্সবাজার ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৭ অক্টোবর, ২০২০, ৬:০১ পিএম

বিশ্বের দীর্ঘতম কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতকে খন্ডিত করে অবৈধ বাঁধ নির্মানের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে পরিবেশবাদী সংগঠন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) কক্সবাজার শাখা। ৭ অক্টোবর (বুধবার) সকালে কক্সবাজার জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে এই মানববন্ধনের আয়োজন করে। কক্সবাজারের একাধিক সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন একাত্বতা প্রকাশ করে মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করে।

মানববন্ধনে পরিবেশ আন্দোলনের সভাপতি প্রবীণ সাংবাদিক ফজলুল কাদের চৌধুরী বলেন, আমরা প্রয়োজনে মেজর সিনহার মতো প্রাণ দেব তারপরেও এই র্দীঘ সমুদ্র সৈকতকে খন্ডিত করতে দেবনা । পৃথিবীর একমাত্র দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত আমাদের দেশের সম্পদ। এটি আমাদের গর্ব অহংকার। এই অহংকার যেন কোন কিছুর বিনিময়ে রক্ষা করা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব।

মানববন্ধনের প্রধান অথিতি ও কক্সবাজার জেলা সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) এর সভাপতি নঈমুল হক চৌধুরী টুটুল বলেন, পরিবেশ সঙ্কটাপন্ন এলাকায় (ইসিএ) এমন একটি বাঁধ বা জেটি নির্মাণ করা হচ্ছে অথচ সংশ্লিষ্ট প্রশাসন অবগত নয়। এই কাজে কেউ বাধা দিচ্ছেনা। এমন একটি বাঁধ বা জেটি নির্মাণ করা হচ্ছে যেটি পরিবেশকে বিপর্যয়ের মুখে ফেলবে। আমরা এই বাঁধ বা জেটি যাই হোক না কেন পরিবেশ নষ্ট করে বা পৃথিবীর র্দীতম সমুদ্র সৈকতকে খন্ডিত করে তা করতে দেওয়া হবেনা।

ডেইলি স্টার এর সিনিয়র ষ্টাফ রিপোর্টার মোহাম্মদ আলী জিন্নাত বলেন, কোনভাবেই এই সমুদ্র সৈকতকে দ্বিখন্ডিত করতে দেয়া যাবেনা। আইন সবার জন্য সমান। আমি মোহাম্মদ আলী জিন্নাত যেমন সমুদ্র সৈকতে অবৈধ কিছু করতে পারবোনা, ঠিক তেমনি পরিবেশ বিপর্যয় করে কোন বাহিনী এই বাঁধ বা জেটি নির্মাণ করতে পারবেনা। যদি করতে হয় আরো অনেক জায়গা আছে সেখানে করতে পারে। এই দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকতকে বিনষ্ট করে নয়।
পরিবেশ আন্দোলন কক্সবাজার জেলা সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম চৌধুরী কলিম বলেন, আমাদের কক্সবাজারবাসীর অহংকার এই কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত। এই সৈকতকে দ্বিখন্ডিত করতে কে বা কারা ইনানী রয়েল টিউলিপ এর সামনে এক কিলোমিটারের বাধ নির্মাণ করছে। এটি আমাদের কক্সবাজারবাসীর জন্য আতঙ্কের বিষয়। যদি এটি কোন সরকারি কাজের জন্য করা হয় তবে অন্যকোন জায়গায় করা যেত। রয়েল টিউলিপ এর সামনে কেন করা হচ্ছে? এর পেছনে তাদের ভূমি দস্যুতার কুমতলব আছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত। এই সমুদ্র সৈকতকে দ্বিখন্ডিত করতে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী উঠে পড়ে লেগেছে । পৃথিবীর বুকে ১২০ কিলোমিটার সমুদ্র আর কোথাও নেই। এই সুনামকে ভুলন্ঠিত করতে ইনানীর রয়েল টিউলিপ এর সামনে দীর্ঘ এক কিলোমিটারের বাঁধ দিয়ে সমুদ্র সৈকত দ্বিখন্ডিত করে এই ১২০ কিলোমিটারের র্দীঘ সুনাম নষ্ট করেছ্ সেই সাথে পরিবেশ হুমকীর মুখে পড়েছে। পাশাপাশি এতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গড়া মেরিন ড্রাইভ সড়কটি হুমকির মুখে পড়বে।

মানববন্ধনে আরো যারা বক্তব্য রাখেন ,বাপা’র সহসভাপতি আ ন ম হেলাল উদ্দিন, সিভিল সোসাইটিজ ফোরাম কক্সবাজার এর সহসভাপতি অধ্যাপক আনোয়ারুল ইসলাম, জাতীয় পাটির নেতা মফিজুর রহমান মফিজ, জাসদ এর শহর সভাপতি মোহাম্মদ হোসাইন মাসু, সাইকেলিং ক্লাবের সভাপতি ফসাল সাকিব, সিভিল সোসাইটিজ ফোরাম কক্সবাজার সহসভাপতি সমীর পাল,বাংলাভিশন এর ষ্টাফ রিপোটার ও বাপা’র যুগ্ন সম্পাদক মোর্শেদুর রহমান খোকন, বাপা’র সহসভাপতি রুহুল আমিন সিকদার, কক্সবাজার বার্তার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক এইচ এম নজরুল ইসলাম, আমরা কক্সবাজারবাসী সংগঠনের আহবায়ক কলিম উল্লাহ কলিম, ইয়েস এর কক্সবাজার এর পরিচালক ইব্রাহিম খলিল মামুন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মানববন্ধন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ