Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

প্রচলিত আইনের তোয়াক্কা না করে নির্বাচনী প্রচারণায় জবি ট্রেজারার

জবি সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৮ অক্টোবর, ২০২০, ১২:২৪ পিএম

প্রচলিত আইনের তোয়াক্কা না করে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়েছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড.কামালউদ্দিন আহমদ।
কুমিল্লার দাউদকান্দির উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মেজর (অবঃ) মোহাম্মদ আলী সুমন পক্ষে প্রচারণা চালিয়েছেন তিনি। গতকাল বুধবার ট্রেজারার নিজে তার ফেসবুক টাইমলাইনে দাউদকান্দিতে নৌকার পক্ষে প্রচারণা ও জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু ক্যাপশন দিয়ে দুটি ছবি আপলোড দেন। যা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আইন ২০০৫ ও উপজেলা পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬ এর পরিপন্থী।
জবি ট্রেজারারের এমন কর্মকাণ্ডের পরপরই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক আলোচনা সমালোচনার সৃষ্টি হয়। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ট্রেজারার হয়ে কোন প্রার্থীর পক্ষে ভোট চাইতে পারেন কি না সেটা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে দাউদকান্দি উপজেলা নির্বাচন অফিসার আশরাফুন নাহার বলেন, 'বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ট্রেজারার হিসেবে কেউ নির্বাচনী প্রচারণা অংশগ্রহণ করতে পারেন না। এটা প্রচলিত আইনের পরিপন্থী। এ বিষয়ে কেউ রিটার্নিং অফিসার বরাবর অভিযোগ দিলে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।'
বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দিন আহমদ ইনকিলাবকে বলেন, 'আমি ২০০৮ সালেও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হিসেবে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রচারণা করেছি। আমি একজন শিক্ষক নেতা হিসেবে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিতে পারি। তবে আমি দাউদকান্দি উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে প্রচারণায় অংশগ্রহণ করিনি। শুধুমাত্র প্রার্থীর সঙ্গে মতবিনিময় করতে গিয়েছিলাম।'
বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ট্রেজারার হিসেবে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশগ্রহণ করা যায় কি না জানতে চাইলে তিনি উত্তেজিত হয়ে বলেন, 'অবশ্যই অংশগ্রহণ করা যায়।' এরপর তিনি ফোন সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ