Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

করোনা নিয়ে বিভ্রান্তিকর মন্তব্য, ট্রাম্পের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ ফেসবুক-টুইটারের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ অক্টোবর, ২০২০, ৩:১৭ পিএম

করোনাভাইরাস ফ্লু ছাড়া কিছুই নয়, এমন মন্তব্য করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করার পরই বিতর্কের মুখে পড়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সোমবার হাসপাতাল থেকে হোয়াইট হাউসে ফিরেই মাস্ক খুলে ফেলেন তিনি। আর তার পরই টুইটারে আশ্বাসবাণী, ‘করোনা নিয়ে ভয় পাওয়ার কিচ্ছু নেই!’ তবে, করোনাভাইরাস নিয়ে ট্রাম্পের এই ভুল তথ্য প্রদানের ব্যাপারে কড়া পদক্ষেপ নিল ফেসবুক ও টুইটার।

করোনা নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিতর্কিত পোস্টটি সঙ্গে সঙ্গে ডাউন করে দেয় ফেসবুক। উল্লেখ্য, ট্রাম্পের পোস্টটি সেই মুহূর্তে ২৬ হাজারেরও বেশিবার শেয়ার করে হয়েছিল। এ ব্যাপারে ফেসবুক থেকে জানানো হয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় করোনা নিয়ে ভুল তথ্য ও বিভ্রান্তিকর পোস্ট করা হলে তা সঙ্গে সঙ্গে সরিয়ে ফেলা হবে। এই ইস্যুতেই মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিয়ে চলেছে জুকেরবার্গের সংস্থাটি। ফেসবুকের পাশাপাশি টুইটারও একই পদক্ষেপ নিয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যায় হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফেরার পর গ্রাউন্ড লেভেল এন্ট্রান্স ব্যবহার না করে সিঁড়ি দিয়েই তড়তড়িয়ে উঠে যান ট্রাম্প। তার পর মিডিয়ার উদ্দেশে হাত নেড়ে, মাস্ক খুলে ছবির পোজ। প্রেসিডেন্টের চিকিৎসক শন কোনলের দাবি, প্রেসিডেন্টের অবস্থার উন্নতি হয়েছে, কিন্তু তিনি বিপন্মুক্ত, সেটা এখনই বলা যাবে না। ট্রাম্পের রিপোর্ট নেগেটিভ কি না, সে ব্যাপারেও মন্তব্য করতে চাননি শন।

পরে ট্রাম্পের টুইট, ‘কোভিডকে ভয় পাবেন না। কোভিড আতঙ্ক যেন আপনার জীবনকে গিলে খেতে না পারে। আমার প্রশাসনে চিকিৎসা ব্যবস্থার অনেক উন্নতি হয়েছে। ২০ বছর আগে যেমন ছিলাম, তার থেকে এখন অনেক ভালো বোধ করি।’ তাতে বিরোধী শিবির তথা নেটিজেনদের একাংশের প্রশ্ন, প্রেসিডেন্টের মতো চিকিৎসা তো সাধারণ মানুষের জুটবে না, সেক্ষেত্রে ২ লাখের বেশি মৃত্যুও কি ভয় পাওয়ার জন্য যথেষ্ট নয়?

প্রশ্ন হোয়াইট হাউসের অন্যদের নিরাপত্তা নিয়েও। যে প্রেসিডেন্ট হাসপাতাল থেকে ফিরেই ফটো পোজের জন্য মাস্ক খুলে ফেলেন, তাকে কতটা নিয়মনীতির বাঁধনে রাখা যাবে, থাকছে প্রশ্ন। এ দিকে, ট্রাম্প যতই নির্বাচনী প্রচারে ফেরার জন্য ছটফট করুন, ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেনের স্পষ্ট বক্তব্য, আগামী সপ্তাহের প্রেসিডেন্সিয়াল ডিবেটে তিনি আদৌ ট্রাম্পের মুখোমুখি দাঁড়াবেন কি না, তা পুরোপুরি নির্ভর করছে চিকিৎসকের মতামতের উপর। এ দিন ট্রাম্পের মাস্ক খুলে ফেলা নিয়ে কটাক্ষ করতেও ছাড়েননি বাইডেন। সূত্র: টাইমস নাউ।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ