Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

যুক্তরাষ্ট্র উপকূলে আঘাত হেনেছে হারিকেন ‘ডেল্টা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ অক্টোবর, ২০২০, ১২:৩৫ পিএম

যুক্তরাষ্ট্রের লুইজিয়ানা অঙ্গরাজ্যের ক্রেওল উপকূলে স্থানীয় সময় শুক্রবার সন্ধ্যায় ঘণ্টায় ১৫৫ কিলোমিটার বেগে আঘাত আঘাত হেনেছে হারিকেন ‘ডেল্টা’।
যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টার (এনএইচসি) জানিয়েছে, উপকূলে আঘাত হানার সময় হারিকেন ডেল্টা ক্যাটাগরি ২ মাত্রার থাকলেও ঘণ্টাখানেক পরেই শক্তি হারিয়ে সেটি ক্যাটাগরি ১-এ নেমে আসে। তবে ঝড়টি এখনও প্রাণঘাতী হতে উঠতে পারে বলে সতর্ক করেছে কর্তৃপক্ষ।
গত আগস্টে ঘূর্ণিঝড় লরার আঘাত সামলাতে না সামলাতেই এ অঙ্গরাজ্যের বাসিন্দারা আবারও দুর্যোগের সম্মুখীন হলেন। সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় রাত ৮টার দিকে ডেল্টার বাতাসের গতি ছিল ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৯০ মাইল। তবে সময় পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে এটি শক্তি হারিয়ে নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে। ঝড়ের ফলে সেখানে ব্রাপক বৃষ্টি হচ্ছে। এর জেরে লুইজিয়ানায় আকস্মিক বন্যা দেখা দিতে পারে। এতে পানিবন্দি হয়ে পড়ার ঝুঁকিতে রয়েছেন অন্তত ৫৫ লাখ মানুষ।
দেশটির আবহওয়া অফিসের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, হারিকেন ডেল্টার কারণে লুইজিয়ানার বেশিরভাগ এলাকায় ৫ থেকে ১০ ইঞ্চি বৃষ্টিপাত হতে পারে। এমনকি কিছু কিছু জায়গায় এর পরিমাণ ১৫ ইঞ্চিতে পৌঁছাতে পারে বলে সতর্ক করা হয়েছে।
পাওয়ারআউটেজ নামে একটি ওয়েবসাইটের বরাতে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিবিএস নিউজ জানিয়েছে, হারিকেন ডেল্টার কারণে লুইজিয়ানার প্রায় সাড়ে তিন লাখ মানুষ বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন। টেক্সাসেও বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন রয়েছেন এক লাখের বেশি বাসিন্দা।
এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের আঘাত হানার সঙ্গে সঙ্গেই ভয়ঙ্কর একটি রেকর্ড গড়েছে হারিকেন ডেল্টা। এটি চলতি বছরে দেশটিতে আঘাত হানা ১০ম ঝড়। ২০০৫ সালের পর আর এক মৌসুমে এত বেশি ঝড়ের মুখোমুখি হয়নি যুক্তরাষ্ট্র।
এছাড়া, চলতি বছর দেশটিতে এত বেশি ঝড় হচ্ছে যে, সেগুলোর জন্য পূর্বনির্ধারিত নামের ভাণ্ডারই ফুরিয়ে গেছে। একারণে ১৯৫০ সালের পর যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে মাত্র দ্বিতীয়বারের মতো নতুন ঝড়ের নামকরণ করতে গ্রিক বর্ণমালা ব্যবহার করা হচ্ছে।
হারিকেন ডেল্টার মাত্র ছয় সপ্তাহ আগে লুইজিয়ানাতেই তাণ্ডব চালিয়েছিল প্রলয়ঙ্করী হারিকেন লরা। ক্যাটাগরি ৪ মাত্রার এ ঝড়ের কারণে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল উপকূলের শত শত তেল স্থাপনা। এর এক মাস যেতে না যেতে একই অঞ্চলে ফের তাণ্ডব চালায় স্যালি নামে আরেকটি সামুদ্রিক ঝড়। সূত্র : বিবিসি



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ডেল্টা


আরও
আরও পড়ুন