Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

রাতভর গণধর্ষণ

ছাগলনাইয়ায় ৪ বছর বয়সী শিশুসহ শিকার আরো ৮ : আটক ১৫

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১১ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০০ এএম

ট্রেন মিস করা কিশোরীকে সারারাত গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ থানায় ৪ জনকে আসামি করে মামলা করেছে ওই কিশোরী। কুড়িগ্রামের উলিপুরে এক গৃহবধূকে রাতভর আটকে রেখে পালাক্রমে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ল²ীপুরের রামগতিতে সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে এক মাদরাসাছাত্রীকে শ্লীলতাহানির খবর পাওয়া গেছে। কক্সবাজারের রামুতে এক কিশোরীকে জোরপূর্বক গণধর্ষণ করা হয়েছে। এছাড়া সোনারগাঁয়ে ৯ বছরের শিশু, আশুগঞ্জে প্রতিবন্ধি কিশোরী, মৌলভীবাজারের বড়লেখায় সিএনজি চালিত অটোরিকশা চালকের সহযোগিতায় তরুণী, ফেনীর ছাগলনাইয়ায় ৪ বছর বয়সী শিশু ও টাঙ্গাইলে সৎ বাবার বিরুদ্ধে এক কিশোরী ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এদিকে, যশোরে বাসের ভেতর নারী ধর্ষণ ঘটনায় ৭ আসামিসহ বিভিন্ন স্থানে ধর্ষণ মামলায় ১৫ জনকে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

যশোর : যশোরে বাসের ভেতর নারী ধর্ষণ মামলার সাত আসামিকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। গতকাল জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশিদের আদালতে তাদেরকে সোপর্দ করা হয়। মামলার প্রধান আসামি মনিরুল ইসলাম (২৮) ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার কাশিমপুর গ্রামের ওহিদুলের ছেলে ও এমকে পরিবহনের হেলপার বর্তমানে মনিরুল যশোর সদর উপজেলার রামনগর ধোপাপাড়ায় কাঠমিস্ত্রি শহিদুলের বাড়ির ভাড়াটিয়া। অভিযুক্ত মনিরুল এক কন্যা সন্তানের জনক।

অন্য ছয় আসামি হলেন-শহরের সিটি কলেজপাড়ার রনজিৎ বিশ^াসের ছেলে কৃষ্ণ, একই এলাকার সমর সিংহের ছেলে সুবাস সিংহ, শহরের বারান্দিপাড়ার জাবেদুল ইসলাম জাবেদের ছেলে রকিবুল ইসলাম রকিব, শহরের বেজপাড়ার গোলাম মাওলার ছেলে মইনুল ইসলাম মইন ও শহরের পূর্ববারান্দি মোল্লাপাড়ার শফিকুল ইসলাম বাবুর ছেলে শাহিন আহমেদ জনি।

লালমনিরহাট : চলন্ত ট্রেন থেকে নামিয়ে গণধর্ষণের অভিযোগ তুলে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ থানায় ৪ জনকে আসামি করে মামলা করেছে এক কিশোরী। এ ঘটনায় অভিযান চালিয়ে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় মাতব্বররা বৈঠকে বসে গণধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দিতে মোটা অংকের টাকা নিয়েছেন ধর্ষকদের কাছ থেকে। গত শুক্রবার বিকেলে কালীগঞ্জ প্রেসক্লাব এলাকা থেকে কিশোরীকে উদ্ধার করে হেফাজতে নেয় কালীগঞ্জ থানা পুলিশ।

পুলিশ ও ওই কিশোরী জানায়, রংপুরের কাউনিয়া এলাকার মামার বাড়ি থেকে এতিম কিশোরী (১৫) গত সোমবার লালমনিরহাটের পাটগ্রামে খালার বাড়ি বেড়াতে আসে। সেখান থেকে পরদিন সন্ধ্যায় লালমনিরহাটগামী আন্তঃনগর করতোয়া এক্সপ্রেস ট্রেনে কাউনিয়ার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। ট্রেন কালীগঞ্জের কাকিনা স্টেশনে দাঁড়ালে ওই কিশোরী পানি নিতে ট্রেন থেকে নেমে পড়ে।

এ সময় কাকিনা স্টেশনে নিজেকে রকি পরিচয় দিয়ে এক ছেলে জানতে চাইলে ওই কিশোরী কাউনিয়া যাচ্ছে বলে পরিচয় দিলে যুবক রকিও নিজেকে কাউনিয়ার বাসিন্দা বলে পরিচয় দেয়। এরই মাঝে ট্রেন স্টেশন ছেড়ে গেলে রকি অটোরিকশা যোগে কাউনিয়া যাবেন এবং সেই অটোরিকশায় তাকে বাড়ি পৌঁছে দেয়ার প্রতিশ্রæতি দেয়। সেই মোতাবেক একটি অটোরিকশাযোগে রকি নামের ওই যুবক কিশোরীকে নিয়ে কাউনিয়া যাওয়ার কথা বলে বিভিন্ন সড়কের ঘুরে মধ্যরাতে একটি সেচ পাম্পের নির্জন ঘরে নিয়ে রকির আরও তিন বন্ধুসহ চার যুবক মিলে পালাক্রমে কিশোরীকে ধর্ষণ করে। পরদিন বুধবার সকালে মুখ না খোলার শর্তে কিশোরীকে মুক্তি দেয় চার যুবক। পরে অসুস্থ কিশোরী পথ ভুলে চলতে থাকলে স্থানীয়দের জিজ্ঞাসাবাদে বিষয়টি স্বীকার করে সে। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় এক গ্রাম পুলিশ সদস্যের বাড়িতে আশ্রয় নেয় ওই কিশোরী। বৃহস্পতিবার রাতে বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় মাতব্বররা বৈঠকে বসে ধর্ষণকারী যুবকদের শনাক্ত করে মোটা অংকের টাকা জরিমানা আদায় করেন বলেও ওই কিশোরী দাবি করে।

জরিমানার টাকা না দিয়ে উল্টো তাকে হুমকি ধামকি দিয়ে পথখরচ দুই হাজার টাকা দিয়ে মাতব্বররা তাকে পাঠিয়ে দেয় বলে অভিযোগ করেন কিশোরী। পরে শুক্রবার দুপুরে স্থানীয়দের মাধ্যমে ওই কিশোরী কালীগঞ্জ প্রেসক্লাবে আশ্রয় নেয়। প্রেসক্লাবে ঘটনার লোমহর্ষক এ বর্ণনা শুনে সাংবাদিকরা থানা পুলিশকে অবগত করলে কালীগঞ্জ থানা পুলিশ ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে হেফাজতে নেয়। কিশোরীর দেয়া তথ্যমতে প্রাথমিক তদন্ত শুরু করে কালীগঞ্জ থানা পুলিশ। রাত ৯টার দিকে ৪ জনকে আসামি করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

কালীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) ফরহাদ হোসেন বলেন, কিশোরীর দেয়া তথ্যের প্রাথমিক তদন্ত করে একটি মামলা নেয়া হয়েছে। আসামিদের মধ্যে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের ধরতে মাঠে পুলিশ নেমেছেন। দ্রæত বাকি আসামিদের ধরা হবে বলেও তিনি জানান।

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) : কুড়িগ্রামের উলিপুরে এক গৃহবধূকে রাতভর আটকে রেখে পালাক্রমে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটেছে ১৫দিন পূর্বে। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূ বাদি হয়ে গতকাল থানায় মামলা করলে পুলিশ চারজনকে গ্রেফতার করেন। ঘটনাটি ঘটেছে, গত ২৫ সেপ্টেম্বর উপজেলার রাজারঘাট এলাকায়।

মামলা ও গৃহবধুর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, উলিপুর পৌরসভার বলদিপাড়া গ্রামের ওই গৃহবধূ (২৫) এক সন্তানের জননী। তার স্বামীর অনুপস্থিতিতে প্রতিবেশি মোহাম্মদ আলীর পুত্র ব্যবসায়ী রবিউল ইসলাম (৩০) তাদের বাড়িতে আসতেন এবং তাকে প্রেমের প্রস্তাব দিতেন। এক পর্যায়ে ওই গৃহবধুকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন রবিউল ইসলাম। ঘটনার দিন গত ২৫ সেপ্টেম্বর রাতে রবিউল ইসলাম ওই গৃহবধূকে নতুন করে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে মোবাইল ফোনে ডেকে নেন। এরপর গৃহবধূ তার দেড় বছরের শিশু সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে উলিপুর বাজারে রবিউল ইসলামের সাথে দেখা করেন।

পরে একটি অপরিচিতি অটোরিক্সাযোগে রবিউল ইসলাম ওই গৃহবধূকে উপজেলার তবকপুর ইউনিয়নের রাজারঘাট গ্রামের জনৈক আবু বক্কর (৩৫) এর ফাঁকা বাড়িতে নিয়ে একটি ঘরে আটকে রেখে জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করে। এ সময় রবিউল ইসলামের সঙ্গী ওই এলাকার সেফাত উল্যার ছেলে কায়ছার আলী (৪০), ফকর উদ্দিনের ছেলে সোবহান আলী লিটন (৪২), আবুল হোসেনের ছেলে মমিনুল ইসলাম (৩৮) ওই গৃহবধুকে রাতভর পালাক্রমে জোর পূর্বক গণধর্ষণ করে। পরদিন ২৬ সেপ্টেম্বর সকালে ওই গৃহবধূকে ঘরের মধ্যে একা রেখে তারা সটকে পরে। এরপর গৃহবধূ নিরুপায় অটোরিক্সা যোগে চিলমারী উপজেলাধীন তার পিতার বাড়িতে চলে যান।

গৃহবধুর শ্বশুর (নুর ইসলাম) অভিযোগ করে বলেন, ঘটনার কয়েকদিন পর তার ছেলের স্ত্রী বাড়িতে ফিরে আসলে রবিউল ইসলাম পুনরায় তাকে কু-প্রস্তাব দেয়। এতে ওই গৃহবধূ রাজি না হলে রবিউল ইসলাম গণধর্ষণের ঘটনা প্রকাশ করার ভয় দেখাতে থাকেন। এতে গৃহবধূ নিরুপায় হয়ে তাকেসহ পরিবারের সকলকে বিষয়টি জানালে তিনি স্থানীয় মাতব্বরদের কাছে রবিউল ইসলামের বিচার চান। এ ঘটনায় রবিউল ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে বিভিন্ন হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে। পরে বিষয়টি জানাজানি হয়ে গেলে ওই গৃহবধূ বাদি হয়ে গতকাল রবিউল ইসলামসহ ৫ জনের নামে উলিপুর থানায় মামলা করেন। এরপর পুলিশ অভিযান চালিয়ে আবু বক্কর, কায়ছার আলী, সোবহান আলী লিটন ও মমিনুল ইসলামকে গ্রেফতার করেন। কিন্তু মামলার মূল আসামি রবিউল ইসলাম পলাতক থাকায় তাকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। এ বিষয়ে ওই এলাকার কাউন্সিলর আনিছুর রহমানের সাথে মুঠোফোনে (০১৭৯৬০৪০০..) বার-বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তার ফোন নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়।
রামু (কক্সবাজার) : রামুর রাবার বাগানের পাহাড়ি এলাকায় এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ সাইফুল ইসলাম সোহেল (২৫) নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। গত শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টায় এই ঘটনা ঘটেছে।ধর্ষণের অভিযোগে আটক সাইফুল ইসলাম সোহাল স্থানীয় জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের পাহাড়িয়া পাড়া’র নুরুল ইসলামের ছেলে।

কক্সবাজার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম জানান, কিশোরীসহ তারা ৪ সহপাঠী পাশ্ববর্তী নাইক্ষ্যংছড়ি লেকে ভ্রমণ শেষে বাড়ি ফেরার পথে রাবার বাগান এলাকায় দুই যুবক তাদের গতি রোধ করে। এসময় যুবক সাইফুল ইসলাম সোহেল কিশোরীকে’ টানা হেচড়া করে পাশ্ববর্তী জঙ্গলে নিয়ে গেলে অপর সহযোগী যুবক অন্যদের ভয় দেখিয়ে জঙ্গলের পাশ্বেই জিন্মি করে রাখে। অপরদিকে ওই কিশোরীকে জঙ্গলে জোরপুর্বক ধর্ষণ শেষে ২য় যুবক পালাক্রম ধর্ষণ করতে চাইলে কিশোরীর চিৎকারে লোকজন এগিয়ে আসে। এসময় ধর্ষকরা পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাদের উদ্ধার করে।

বড়লেখা (মৌলভীবাজার) : মৌলভীবাজারের বড়লেখায় সিএনজি চালিত অটোরিকশা চালকের সহযোগিতায় তরুণীকে (১৮) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। গত শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নে এই ঘটনা ঘটে। তরুণী বাদী হয়ে বড়লেখা থানায় ধর্ষণ ও সহযোগিতার অভিযোগে দুইজনের নামে মামলা করেন। মামলার পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে সন্ধ্যায় শাহবাজপুর বাজারের পাহারাদার ও এক সিএনজি চালককে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতার ব্যক্তিরা হলেন- বড়লেখা উপজেলার উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের বাদেপুকুরিয়া গ্রামের মৃত রফিক উদ্দিনের ছেলে দেলোয়ার হোসেন (২৫) ও উপজেলার চুকারপুঞ্জি গ্রামের মাসুক মিয়ার ছেলে আলী আহমদ (১৮)।

টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইলে এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে তার মায়ের পরের স্বামীর বিরুদ্ধে। এই অভিযোগে গত বৃহস্পতিবার ১৩ বছর বয়সী এই মেয়েটির মা বাদী হয়ে ঘাটাইল থানায় মামলা করেছেন। মামলায় হবিবুর রহমান (৫৫) নামের ওই ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকেই তিনি পলাতক রয়েছেন বলে জানিয়েছেন ঘাটাইল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ছাইফুল ইসলাম।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, ওই নারীর দ্বিতীয় স্বামী হবিবুর। বিয়ের পর ঘরজামাই হিসেবে টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার দিগর ইউনিয়নে থাকেন হবিবুর। স¤প্রতি বাড়িতে বন্যার পানি ওঠায় মেয়েকে নিয়ে স্বামীর সঙ্গে পাশের এলাকায় আধাপাকা টিনের ঘরে ভাড়া থাকেন এই নারী। গত ৬ অক্টোবর রাতের খাবার শেষে তারা ঘুমাতে যান। মেয়ে খাটে ঘুমায় এবং তারা দুজন ঘরের মেঝেতে ঘুমিয়ে পড়েন। রাতে হবিবুর মেয়েকে ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে। পরে মেয়ের কান্নার শব্দে মায়ের ঘুম ভাঙলে স্বামীকে পালিয়ে যেতে দেখেন।

ওই কিশোরী সাংবাদিকদের বলে, স্থানীয় একটি মাদরাসার ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী সে। মাঝে মাঝে তার মায়ের আগের স্বামী হবিবুর রহমান তাকে কুপ্রস্তাব দিত। বিষয়টি মাকে জানালেও মা কিছু করতে পারেননি। কিশোরীর মা বলেন, মেয়ের বিষয়টি নিয়ে যখনই স্বামীর সঙ্গে কথা বলতে চেষ্টা করেছি তখনই আমার ওপর চলতো অমানবিক নির্যাতন। আমি মানুষের বাড়িতে কাজ করে মেয়ের লেখাপড়ার খরচ জোগাই। ওই লোকটা কোনো টাকা পয়সাও দেয় না। কিশোরীর প্রতিবেশী এক নারী বলেন, “ছোট বাচ্চারাও এখন ওই লোকটার কথা শুনে ভয় পাচ্ছে। এমন জঘন্য কাজের জন্য তার ফাঁসি হওয়া দরকার।

নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলায় আবারো ৯ বছরের এক শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার সনমান্দি ইউনিয়নের পশ্চিম সনমান্দি গ্রামে। এ ঘটনায় ধর্ষিত শিশু’র বাবা গত শুক্রবার রাতে বাদি হয়ে কিশোর সোহেল মিয়াকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন। এর আগে গত মঙ্গলবার বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নে ৫শ শ্রেণিতে পড়ুয়া এক মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ করে তার আপন চাচাতো ভাই। সে ঘটনার ৩ দিনের মাথায় ফের ধর্ষিত হলো ৯ বছরের আরেক শিশু।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে এক প্রতিবন্ধি কিশোরী (১২) কে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার রাতে উপজেলার আড়াইসিধা ইউনিয়নের পাঁচবিটা গ্রামে এ ঘটনায় ঘটে। নির্যাতনের শিকার কিশোরীর দেয়া তথ্য অনুযায়ী গতকাল দুপুরে অভিযুক্ত দেলোয়ার মিয়াকে আটক করেছে পুলিশ। দেলোয়ার পাচঁবিটা গ্রামের মলাই মিয়ার ছেলে। সম্পর্কে দেলোয়ার কিশোরীর চাচাতো মামা।

আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রার্প্ত কর্মকর্তা জাবেদ মাহমুদ জানান, খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক ধর্ষক দেলোয়ারকে পাঁচবিটা তার বাড়ি থেকে আটক করা হয়েছে। ইতিমধ্যে কিশোরীর পরিবারকে মামলা দায়ের জন্য বলা হয়েছে।

ফেনী : ফেনীর ছাগলনাইয়ায় ৪ বছর বয়সী ভাতিজীকে ধর্ষণের মামলায় চাচাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ছাগলনাইয়া থানার ওসি মো. মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ জানান, শুক্রবার রাতে ছাগলনাইয়া পৌরসভার বাঁশপাড়া এলাকা থেকে ইমন ফারুক বাদশাকে (২০) তারা গ্রেফতার করেন। বাদশা মহামায়া ইউনিয়নের উত্তর যশপুর গ্রামের রবিউল হক কন্ট্রাকটর বাড়ির রবিউল হক কন্ট্রাকটরের ছেলে। তিনি পেশায় অটোরিকশা চালক।

রামগতি (ল²ীপুর) : ল²ীপুরের রামগতিতে সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে এক মাদরাসাছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বুধবার রাতে উপজেলার পূর্ব চরসীতা এলাকার এ ঘটনায় শুক্রবার স›দ্বায় অভিযুক্ত রাশেদুল ইসলাম রাসেলকে (২৩) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মৌলভীবাজার : মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে কিশোরীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে লুৎফুর রহমান নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল দুপুর ২ টার দিকে মৌলভীবাজার চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তাকে হাজির করা হলে আদালতের বিচারক কারাগারে প্রেরণ করেন। ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনাটি সালিশে ধামাচাপার চেষ্টা করা হলে কিশোরী মেয়েটি বিষ পানে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। পরে পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।



 

Show all comments
  • Khorshed Gazi ১১ অক্টোবর, ২০২০, ১:৪৭ এএম says : 0
    এই সমাজের এতো ওদোপতন হলো কিকরে
    Total Reply(0) Reply
  • Anwar Hossen Anik ১১ অক্টোবর, ২০২০, ১:৪৭ এএম says : 0
    শিক্ষার বড় অভাব।
    Total Reply(0) Reply
  • Tipu Alam ১১ অক্টোবর, ২০২০, ১:৪৮ এএম says : 0
    সারা দেশে উদ্বেগজনক হারে বেড়েছে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন। প্রতিবাদ হোক।ধর্ষনের শাস্তি মৃত্যু দন্ড কার্যকর করা হোক।
    Total Reply(0) Reply
  • Najmul Hoque ১১ অক্টোবর, ২০২০, ১:৪৮ এএম says : 0
    গ্রেফতার করে লাব নাই গণপিটুনি দিয়ে মেরে ফেলতে হবে
    Total Reply(0) Reply
  • Sayma Jemy ১১ অক্টোবর, ২০২০, ১:৪৯ এএম says : 0
    মন খারাপ হয়ে গেলো লেখা পড়ে। খুব হতাশ লাগছে। মেয়েটার দিকে তাকিয়ে থাকি আর চিন্তা হয় কিভাবে বড় করবো। মনে হয় মেয়েকে বুকের মধ্যে রেখে দিই নিরাপদে থাকুক।
    Total Reply(1) Reply
    • ১১ অক্টোবর, ২০২০, ৪:২৪ পিএম says : 0
  • Sazzad Mahmood Khan ১১ অক্টোবর, ২০২০, ১:৪৯ এএম says : 0
    এদেশে ভাইরাল না হলে বিচার পাওয়া কঠিন..সেটা যে অপরাধের শিকারই হোক না কেনো
    Total Reply(0) Reply
  • Md Rejaul Karim ১১ অক্টোবর, ২০২০, ৭:২৪ এএম says : 0
    আগে হতো ধর্ষণ এখন গণধর্ষণ।। হে আল্লাহু আপনি সবাই কে হেদায়েত দান করেন।।। এই জঘন্যতম খবর আর দেখতে না হয়।
    Total Reply(0) Reply
  • sats1971 ১ নভেম্বর, ২০২০, ৬:৪৫ পিএম says : 0
    Now very easy to rape a woman,girl,house wife and male also because found very few trusted people maximum are involved crime activities, One criminal hits to others criminal using many technical criminally procedure to take action against the criminal.In this activities some innocent people also caught in the net. Clear picture finding very difficult to the real case. Now many people did not trust any person due to after death of Bangabandhu this activities increased and reached very difficult position in our country, before this govt many rape cased not raised now it is raised and given punishment real guilty people .If any false case they will get punishment also.Now govt very hard line to trace out real case or false case, of false case they will get punish and real case also.All people make general diary for his/her daily works with time position even mobile call also for primary safe him/her from false case if possible cc camera also fitted.this diary is very helpful to police for finding false/real case.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গণধর্ষণ

১৮ অক্টোবর, ২০২০
১১ অক্টোবর, ২০২০
৬ অক্টোবর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ