Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৭ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ : ৪ ছাত্রলীগ কর্মীর ছাত্রত্ব ও সার্টিফিকেট বাতিল

সিলেট ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৩ অক্টোবর, ২০২০, ১২:৩৮ পিএম | আপডেট : ১:০৯ পিএম, ১৩ অক্টোবর, ২০২০

সিলেট এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণের ঘটনায় এজাহারনামীয় ৪ আসামীর ছাত্রত্ব এবং সার্টিফিকেট বাতিল করেছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। এছাড়াও স্থায়ীভাবে এমসি কলেজ থেকে বহিষ্কারও করা হয়েছে তাদের। সোমবার (১২ অক্টোবর) জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন এমসি কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর সালেহ আহমদ। বহিস্কৃতরা হচ্ছে, ১. বিএসএস ডিগ্রি পাস কোর্সের ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের অনিয়মিত ছাত্র সাইফুর রহমান (২৮)। রেজিঃ নং ২৯৪৯৪১৩। ২. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের ইংরেজি মাস্টার্স ফাইনাল বর্ষের নিয়মিত শিক্ষার্থী শাহ মাহবুবুর রহমান ওরফে রনি (২৫)। রেজিঃ নং- ১৬৩১১০২৩১৪২। ৩. বিএসএস ডিগ্রি পাস কোর্সের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের নিয়মিত শিক্ষার্থী রবিউল ইসলাম (২৫)। রেজিঃ নং- ১৩১০২০৫১২৪৮। ৪. ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ইংরেজি বিভাগের মাস্টার্স ফাইনাল বর্ষের নিয়মিত শিক্ষার্থী মাহফুজুর রহমান মাসুম (২৫)। রেজি নং ১৭৩১১০২৪৪৮৪। এই ৪জনই গণধর্ষণ মামলার আসামি। এর মধ্যে সাইফুর এই মামলার প্রধান আসামি। এ ঘটনার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন ৪জনই।
প্রসঙ্গত, গত ২৫ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ৭ টার দিকে সিলেট এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে বালিকা বধূ গণধর্ষণ করে কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মী। এ ঘটনায় ৬ জনকে আসামি করে এসএমপির শাহপরাণ থানায় মামলা দায়ের করেন ধর্ষণের শিকার বালিকা বধূর স্বামী মাইদুল ইসলাম। মামলার এজাহারভুক্তরা হলেন- সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার উমেদনগরের রফিকুল ইসলামের ছেলে তারেকুল ইসলাম তারেক (২৮), হবিগঞ্জ সদরের বাগুনীপাড়ার মো. জাহাঙ্গীর মিয়ার ছেলে শাহ মো. মাহবুবুর রহমান রনি (২৫), জকিগঞ্জের আটগ্রামের কানু লস্করের ছেলে অর্জুন লস্কর (২৫), দিরাই উপজেলার বড়নগদীপুর (জগদল) গ্রামের রবিউল ইসলাম (২৫) ও কানাইঘাটের গাছবাড়ি গ্রামের মাহফুজুর রহমান মাসুম (২৫)। এছাড়া আরও অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে ৩ জনকে। মামলার এজাহারনামীয় সকল আসামী সহ সন্দেহভাজন আরো ২ আসামীকে গ্রেফতার করতে সমর্থ হয় আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী। গ্রেফতার পর ৫দিনের রিমান্ডেও নেয়া হয় তাদের। রিমান্ড শেষে ১৬৪ ধারায় ধর্ষণ ঘটনার দায় স্বীকার করে জবানবন্দিও প্রদান করেছে আদালতে তারা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ